ডা. মোবারক হোসাইন

ডা. মোবারক হোসাইন

প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি
ডক্টরস ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট


১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ০১:৫০ এএম

সাথী আক্তার: অসমাপ্ত এক স্বপ্নবাজের বিদায়

সাথী আক্তার: অসমাপ্ত এক স্বপ্নবাজের বিদায়

সাথী আক্তার। ফরিদপুরে জন্ম নেওয়া একজন ক্ষণজন্মা মেধাবীমুখ৷ জীবনের শুরু থেকে মার্কস মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষ পর্যন্ত যার জীবনটি ছিল অর্জন আর অর্জনের।

শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন তিনি। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি ডক্টরস্ ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের তত্ত্বাবধানে ঢাকা সিএমএইচ ক্যান্সার সেন্টারে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

তার মৃত্যুতে আজ আমরা শোকাহত। একটি স্বপ্নের রাজকুমারী ছাত্রজীবন শেষ করে, দুনিয়ার আপনজন ছেড়ে পাড়ি জমালেন অসীম পরপারে...

ছোটবেলা থেকেই খুব ভাল শিল্পী ছিলেন, উপস্থিত বক্তৃতা, পড়াশোনা, কলেজ জীবনে এসে একজন সত্যিকারের প্রাকটিক্যাল মুসলিম হিসেবে জীবন যাপন করা, সবমিলিয়ে বেঁচে থাকলে এই জাতি সাথীর মধ্য দিয়ে হয়ত অনেক কিছু পেতেন ৷

তিন বোনের মধ্যে সাথী দ্বিতীয় বোন, পড়াশোনায় অনেক ভাল ছিল বলেই, মধ্যবিত্ত পরিবারের আর্থিক টানাপড়েন থাকা স্বত্বেও ডাক্তার বানানোর স্বপ্ন নিয়ে মার্কস মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন তিনি। ভালই যাচ্ছিল মেডিকেল লাইফের দিনকাল।

প্রথম বর্ষের শেষের দিকে হঠাৎ মরণব্যাধি Brain tumour : Anaplastic astrocytoma রোগ ধরা পড়ে।

দেশের প্রখ্যাত নিউরোসার্জন প্রফেসর কনক কান্তি বড়ুয়া স্যার Subtotal Resection of Tumour অপারেশন করেন। দেশের সর্বোচ্চ facilities সম্পন্ন CMH Cancer Center এ CCRT: Radiotherapy with Chemotherapy ( Temozolamide) চিকিৎসাও করা হয়। 

দীর্ঘ প্রায় আড়াই মাস হসপিটালের বেডে নির্বাক আর নিষ্পাপ একটি দৃষ্টিতে শুধু তাকিয়েছিলেন।

শত ব্যস্ততার মাঝেও প্রতিদিনই সাথীর খোঁজখবর নেওয়ার চেষ্টা করতাম। যখনই CMH Cancer Center গিয়ে সাথীর পাশে দাঁড়াতাম, মনটা ধুমড়ে মুচড়ে যেতো এই বয়সের একটি মেয়ে আজ কত প্রাণোচ্ছল থাকার কথা সে আজ কত অসহায়, তার পরিবার কত অসহায়, সময়ের ব্যবধানে কত স্বপ্নের কবর হয়ে গেলো .......

ডক্টরস ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের নামের একটি দায়বদ্ধতা নিয়ে সাথীর জন্য কতকিছুই না করলাম, মার্কস মেডিকেল কলেজের ছেলেমেয়েগুলোকে এত বেশি এটা করো, ঐটা করো, আজ ব্লাড লাগবে, কাল ঔষুধ লাগবে, একটার পর একটা কাজের কথা বলেই যেতাম, নিজেকে খুব নিষ্ঠুর মনে হতো, এদেশের অসংখ্য মেডিকেল ডেন্টাল কলেজের ছেলেমেয়ে তার চিকিৎসার ব্যাপারে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল , মেজর জেনারেল আজীজ স্যারকে তো স্যারের অনেক ব্যস্ততা থাকা স্বত্বেও একটু সমস্যাই পড়লেই কল দিতাম, স্যার কখনোই বিরক্ত হতেন না, অকল্পনীয় সহযোগিতা করতেন ৷

এত মানুষের দোয়া, ভালোবাসা, বুকফাটা আর্তনাদ, বাবা মায়ের কলিজার টুকরা, বোনের আহাজারী, অসংখ্য সহপাঠীর চোখের অশ্রুকে পুঁজি করে প্রিয় বোন আজ চলে গেল না ফেরার দেশে,

বোন ! তোমাকে তোমার ফরিদপুরের গ্রামে রেখে গেলাম। শুধু অতৃপ্তি এতটুকু তোমাকে হাসিমুখে বাবা মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিতে পারিনি, রেখে গেলাম এক নিথর নিস্তব্ধ সাদা কাফনে মোড়ানো কফিনে, রেখে গেলাম সাড়ে তিন হাত মাটির নিঃস্বঙ্গ নির্জন ঘরে,
ভালো থেকো প্রিয় বোন, জান্নাতে গিয়ে,
অসমাপ্ত জীবনেই তুমি,
সমাপ্ত হয়ে গেলে .....

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি