২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:১২ পিএম

ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের পাশে দাঁড়াতে হবে

ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের পাশে দাঁড়াতে হবে

ক্যান্সার আক্রান্ত শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কামরুল হাসান খান।
 
রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘সেপ্টেম্বর- শিশু ক্যান্সার সচেতনতা মাস’ উপলক্ষে আয়োজিত র‌্যালি শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এ আহ্বান জানান। 
 
জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের শিশু ক্যান্সার বিভাগের আয়োজনে র‌্যালিটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিএসএমএমইউ’র শিশু হেমাটোলজি ও অনকোলজি বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের শিশু ক্যান্সার বিভাগ, সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-চিকিৎসক-কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।
 
ডা. অধ্যাপক কামরুল হাসান খান বলেন, কিছু ক্যান্সার শিশু বয়সে হয়ে থাকে। বাংলাদেশসহ তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে ক্যান্সারের প্রকোপ বেড়ে যাচ্ছে। ক্যান্সার জন্মগত বা জেনেটিক কারণে হয়। আবার দূষিত পরিবেশ, খাদ্য ও পানির কারণেও হতে পারে।
 
তিনি বলেন, ক্যান্সারের চিকিৎসা ব্যয়বহুল। কোনো পরিবারে একজন ক্যান্সার রোগী থাকলে সেই পরিবার মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যেহেতু আমরা নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশ তাই আমাদের প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে ক্যান্সার প্রতিরোধ করা।
 
উপাচার্য বলেন, জন্মগত কারণে যে ক্যান্সার হয় তা প্রতিরোধ করা সহজ বিষয় নয়। তবে পরিবেশগত কারণে যে ক্যান্সার হয় তা আমরা সহজে প্রতিরোধ করতে পারি।
 
ডা. কামরুল হাসান খান বলেন, ক্যান্সার প্রতিরোধ কর্মকাণ্ড শুধু চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীদেরই নয়, এটি একটি সমন্বিত কাজ। তবে এতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারে গণমাধ্যম।
 
যদি ক্যান্সার শুরুতে সনাক্ত করা যায়, তাহলে চিকিৎসার মাধ্যমে সহজে এ ব্যাধি ভালো করা সম্ভব বলে উল্লেখ করেন তিনি।
 
শিশু ক্যান্সার সচেতনতা মাসে উপাচার্য সবাইকে আহ্বান জানিয়ে বলেন, আসুন আমরা সম্মিলিতভাবে দূরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার প্রতিহত করি। আর যেসব শিশু ক্যান্সারে আক্রান্ত তাদের পাশে দাঁড়াই।
 
বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য ছাড়াও জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের শিশু ক্যান্সার বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রাশেদ জাহাঙ্গীর কবির, সহযোগী অধ্যাপক ডা. মমতাজ বেগম, ঢামেক হাসপাতালের শিশু ক্যান্সার বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আমিরুল মোরশেদ খসরু প্রমুখ র‌্যালিতে অংশ নেন।

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’
যৌন হয়রানির শিকার শেবাচিমের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসক

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’

যৌন হয়রানির শিকার শেবাচিমের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসক

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি