০৬ জানুয়ারী, ২০২০ ০৬:২৯ পিএম

নিউরোসায়েন্সেস হাসপাতালে ১০০ শয্যার স্ট্রোক ইউনিট চালু

নিউরোসায়েন্সেস হাসপাতালে ১০০ শয্যার স্ট্রোক ইউনিট চালু
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স অ্যান্ড হসপিটাল

মেডিভয়েস রিপোর্ট: রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স অ্যান্ড হাসপাটালে ১০০ শয্যার স্ট্রোক ইউনিট উদ্বোধন করা হয়েছে। 

আজ সোমবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে এ ইউনিটের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি। 

এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, নিউরোসায়েন্সেস হাসপাতালে চালু হওয়া ১০০ শয্যার স্ট্রোক ইউনিট বিশ্বের মাত্র অল্প কয়েকটি দেশের মধ্যে একটি। চিকিৎসা ক্ষেত্রে এটি আমাদের এক বিরাট অর্জন। 

তিনি স্বাস্থ্য সেবার এই সকল সুবিধা ভালোভাবে সম্পন্ন করার জন্য খুব জরুরি ভিত্তিতে খুব দ্রত সময়ের মধ্যে অধিক সংখ্যক ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য লোকবল প্রয়োজন। এ কারণে এ বছরই নতুন করে অন্তত আরো ৫ হাজার ডাক্তার ও ১৫ হাজার নার্স নিয়োগ দেয়া হবে।

স্ট্রোক চিকিৎসায় বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ থেকেই বাংলাদেশ এগিয়ে রয়েছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, সরকারি হাসপাতালে ১০০ শয্যার স্ট্রোক ইউনিট স্থাপন একটি বিরল ঘটনা। পৃথিবীর হাতে গোনা কয়েকটি দেশের হাসপাতাল ছাড়া ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম ও মালেয়েশিয়াসহ বিশ্বের আর কোথাও ১০০ শয্যার স্ট্রোক ইউনিট নেই। সুতরাং সরকারের এই মহতী উদ্যোগকে সকলে মিলে সর্বাত্মক সহায়তা করতে হবে।

স্বাস্থ্য খাতে সরকারের বিভিন্ন অর্জনের কথা তুলে ধরে জাহিদ মালেক বলেন, "দেশের প্রতিটি সরকারি হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা দ্বিগুণ করা হয়েছে। ক্যান্সার হাসপাতালে গত মাসেই ২শ’ শয্যা থেকে ৫শ’ শয্যা করা হয়েছে। দেশের ৮ বিভাগে ৮টি ক্যান্সার হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার কাজ প্রক্রিয়াধীন। এ বছরই দেশের সকল আইসিইউ শয্যা সংখ্যাও দ্বিগুণ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ২৫০ টি নতুন ডায়ালাইসিস বেড স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। 

ঢাকার অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে পদায়ন করা গেলে জেলা পর্যায় থেকে ঢাকায় আসা রোগীদের চাপ কমবে বলে অনুষ্ঠানে অন্যান্য বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করেন। 

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঘুরে ঘুরে নতুন শয্যাগুলো দেখেন ও চিকিৎসারত রোগীদের সঙ্গে কথা বলেন।

ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস এন্ড হসপিটালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. কাজী দীন মোহাম্মদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস অ্যান্ড হসপিটালের যুগ্ম পরিচালক ডা. বদরুল আলম।
 

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি