ডা. মো. তাহমিদুল ইসলাম

ডা. মো. তাহমিদুল ইসলাম

সহকারী কমিশনার এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, যশোর

( ৩৭তম বিসিএস প্রশাসনে মেধা তালিকায় তৃতীয়)

সাবেক সহকারী সার্জন (৩৫তম বিসিএস )

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (২০০৮-০৯)


০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১২:০৩ এএম

নতুন যোগ দেয়া চিকিৎসকদের প্রতি ১৬টি পরামর্শ

নতুন যোগ দেয়া চিকিৎসকদের প্রতি ১৬টি পরামর্শ
৩৯তম বিসিএস ব্যাচের চিকিৎসকদের কয়েকজন। ছবি: সংগৃহীত

সদ্য যোগদানকৃত স্বাস্থ্য ক্যাডার অফিসারদের অভিনন্দন। সরকারি চাকরিতে যোগদানের সময় সবাই গণহারে হতাশার বাণী বিতরণ করা শুরু করেন। আমি বরং একটু স্রোতের বিপরীতে বলার চেষ্টা করি। প্রথম থেকে আত্ববিশ্বাস, সন্তুষ্টি নিয়ে আর একটু বুঝে শুনে চললে মনে হয় না হতাশ হবার কিছু আছে। কিছু ব্যাপার মাথায় রাখা উচিত বলে মনে করি-

১. যেদিন থেকে সরকার আপনার সেবার বিনিময়ে আপনাকে নিযুক্ত করেছে সেদিন থেকে আপনি সরকারের কর্মকর্তা। আপনার প্রথম পরিচয় আপনি সরকারি কর্মকর্তা, দ্বিতীয় পরিচয় আপনি ডাক্তার। সুতরাং মনে প্রাণে ধারন করতে হবে আপনি একজন অফিসার। পোশাক- পরিচ্ছদে, আচরণে, কথাবার্তায় নিজেকে একজন অফিসার হিসেবে তুলে ধরতে হবে।

২. আমি ডাক্তার, আমি সেরা ছাত্র ছিলাম এই ইগো ধরে রেখে অন্যদের থেকে আলাদা হওয়া যাবে না । একে একে এলাকার সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, থানার ওসি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকসহ অন্য্যন্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিদের সঙ্গে পরিচিত হতে হবে এবং সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। উপজেলার অনুষ্ঠান এবং মিটিংগুলোতে নিয়মিত অংশগ্রহণ করলেই সবার সঙ্গে মিশে যাবার সুযোগ পাওয়া যাবে।

৩. মুক্তিযোদ্ধা রোগী বা সেবাপ্রত্যাশীদের সঙ্গে খুবই সাবধানে deal করতে হবে। তাদের সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলতে হবে এবং কোনভাবেই মাথা গরম করা যাবে না।

৪. সাংবাদিকদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হবে ।

৫. সবার সাথে হেসে কথা বলার অভ্যাস করতে হবে, বিপদে পড়লে এমনিই হাজার মানুষ এগিয়ে আসবে। অফিসারসুলভ attitude ধরে রেখেও সবার সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখা সম্ভব।

৬. নারী রোগী দেখার সময় সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে এবং রোগী দেখার নির্ধারিত কক্ষ ছাড়া অন্য কক্ষ বিশেষ করে বিশ্রামকক্ষে নারী রোগী দেখা যাবে না এবং নার্সদেরও ফাইল নিয়ে বা অন্য কোন কাজে বিশ্রাম কক্ষে ডাকা উচিত হবে না।

৭. যেকোনো রোগী সামান্য খারাপ হলেও রেফার করার কথা বলতে হবে, সবার সামনে বারবার বলতে হবে, বাকিটা তাদের ব্যাপার।

৮. কর্মরত উপজেলায় চেম্বার করলে কিছুটা হলেও ইম্প্রেশন খারাপ হবে, না করাই ভালো।

৯. ওষুধ কোম্পানির উপহার নেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে, ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের বাইকে না চড়াই ভালো।

১০. কোন কাগজে স্বাক্ষর করার আগে বা কোন সার্টিফিকেট দেবার সময় সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

১১.  বিপদে পড়লে আইনি সহায়তা নিতে দেরি করা যাবে না।

১২. ডিউটি শুরু করার আগেই অক্সিজেন লাইন, আম্বুব্যাগ, সাকার মেশিন, ইসিজি চালু আছে কিনা দেখে নিতে হবে। বিপদের সময় এগুলা ঠিক না থাকলে মহাবিপদ তা বলায় বাহুল্য।

১৩. কোন বিষয় (যেমন হাড় ভেঙ্গেছে কিনা) এর ক্ষেত্রে ফাইনাল জাজমেন্ট দেয়া ঠিক হবে না, বলতে হবে আমার কাছে মনে হচ্ছে, তবে বিশেষজ্ঞ দেখান।

১৪.  অবশ্যই নিয়মিত পড়াশোনা করতে হবে। দিনশেষে এটাই জমা থাকবে, অন্য কিছুই থাকবে না।

১৫. আনন্দ করতে হবে, হতাশ হবার কিছুই নেই। কেউ দুইদিন আগে সফল হবে, কেউ দুইদিন পর।

১৬. সবশেষে, তারপরও ডাক্তারি ভাল না লাগলে সাধারন বিসিএসে পরীক্ষা দিয়ে ক্যাডার পরিবর্তনের চেষ্টা করতে পারেন। একটু পরিশ্রম করলে এটি মোটেও অসম্ভব কোন কাজ নয়।

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম গুলো মেনে চলুন। সর্দি কাশি জ্বর হলে হাসপাতালে না গিয়ে স্বাস্থ্য সেবা দানকারী হটলাইন গুলোতে ফোন করুন। আইইডিসিআর হটলাইন- 10655, email: [email protected]
‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’
যৌন হয়রানির শিকার শেবাচিমের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসক

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’

যৌন হয়রানির শিকার শেবাচিমের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসক

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত