০২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১০:১১ এএম
আপডেট: ০২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১০:১৬ এএম

স্বাস্থ্যখাতে আরও ৩০ হাজার জনবল নিয়োগ দেয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যখাতে আরও ৩০ হাজার জনবল নিয়োগ দেয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
সোসাইটি অব অটোল্যারিংগোলজিস্টস এন্ড হেড-নেক সার্জনস্ অব বাংলাদেশের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন। ছবি: পিআইডি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্যখাতের আরও ৩০ হাজার জনবল নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন।

তিনি বলেন, আদালতে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মামলার কারণে স্বাস্থ্যখাতের মেডিকেল টেকনোলজিস্টসহ বিভিন্ন পদে প্রায় ১০ বছর ধরে নিয়োগ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এতে করে স্বাস্থ্যসেবা খাতের সেবা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করা হবে। যত দ্রুত সম্ভব স্বাস্থ্য খাতে ২০ থেকে ৩০ হাজার জনবল নিয়োগ দেবে সরকার।

রোববার (১ ডিসেম্বর) সোসাইটি অব অটোল্যারিংগোলজিস্টস এন্ড হেড-নেক সার্জনস্ অব বাংলাদেশের ১৭তম জাতীয় সম্মেলন ২০১৯-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চলতি মাসের ৮ তারিখে সাড়ে চার হাজার চিকিৎসক যোগদান করবেন। আগামী বছর আরো সাড়ে ৫ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হবে। সম্প্রতি ১৩০০ চিকিৎসককে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও গত মাসে প্রায় ৫ শত চিকিৎসককে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। উপজেলা পর্যায়ে চিকিৎসকদের জন্য সাড়ে চার শত গাড়ির ব্যবস্থা করা হচ্ছে। উপজেলাতে চিকিৎসকদের থাকার সুব্যবস্থাসহ তাঁদের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করার কার্যকরী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

মন্ত্রী আরো বলেন, সবার কাছে গ্রণযোগ্য ও কল্যাণকর হবে এমন স্বাস্থ্য সুরক্ষা আইন পাশের কার্যকরী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এজন্য সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবছর “ভ্যাকসিন হিরো” পুরস্কার অর্জন করেছেন। তার নেতৃত্বে সরকার স্বাস্থ্য খাতে ব্যাপক কাজ করে যাচ্ছে। দেশে এখন শিশু মৃত্যু হার কমেছে। টিকাদান কর্মসূচিসহ স্বাস্থ্যখাতে নানা উন্নয়নের কারণে প্রতি বছর অন্তত ১ লক্ষ শিশুর জীবন রক্ষা পাচ্ছে।

দেশের প্রতি জেলায় ১০বেডের কিডনি ডায়ালাইসিস ইউনিট করা হবে বলে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এখন থেকে রোগীরা নিজ এলাকায় থেকেই কিডনি ডায়ালাইসিস করতে পারবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, ক্রম-বিকাশমান ও বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রার এই যুগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাক কান গলা বিভাগ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। নতুন নতুন বিষয় সংযোজিত হচ্ছে। এই বিভাগে বর্তমানে চারটি ডিভিশন চালু রয়েছে। শীঘ্রই আরো ২টি ডিভিশন চালু করা হবে। এই বিভাগে ফেলোশীপের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, নাক কান গলা বিভাগের চিকিৎসা শিক্ষা, চিকিৎসাসেবা ও গবেষণা কার্যক্রমকে এগিয়ে নেয়া, উক্ত বিভাগের উন্নতি ও সমৃদ্ধিতে যা যা প্রয়োজন এর সবকিছুতেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহায়তা প্রদান করা হবে।

সোসাইটি অব অটোল্যারিংগোলজিস্টস এনইড হেড-নেক সার্জানস অব বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোঃ আবুল হাসনাত জোয়ারদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব (স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ) মো. আসাদুল ইসলাম, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের মহাসচিব ডা. মোঃ ইহতেশামুল হক চৌধুরী, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. মোঃ আব্দুল আজিজ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ১৭তম জাতীয় অটোল্যারিংগোলজিস্টস এন্ড হেড-নেক সার্জারি সম্মেলন ২০১৯-এর অভ্যর্থনা কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান তরফদার। সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্য রাখেন সোসাইটি অব অটোল্যারিংগোলজিস্টস এন্ড হেড-নেক সার্জনস্ অব বাংলাদেশে এর সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মোঃ নাজমুল ইসলাম। এছাড়াও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সোসাইটি অব অটোল্যারিংগোলজিস্টস এন্ড হেড-নেক সার্জনস্ অব বাংলাদেশ এর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খোরশেদ আলম মজুমদার।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অটোল্যারিংগোলজি এন্ড হেড-নেক সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. বেলায়েত হোসেন সিদ্দিকী, অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম জহুরুল হক সাচ্চু, অধ্যাপক ডা. নাসিমা আখতার, অধ্যাপক ডা. মোঃ মোসলেহ উদ্দিন প্রমুখসহ সোসাইটি অব অটোল্যারিংগোলজিস্টস এন্ড হেড-নেক সার্জনস্ অব বাংলাদেশ এর সম্মানিত সদস্যবৃন্দ ও বিদেশী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকবৃন্দ।

সম্মেলনে চিকিৎসাসেবায় অসামান্য অবদান রাখার জন্য ১১ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে সম্মাননা দেয়া হয়।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত