২৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০৩:০৫ এএম
আপডেট: ২৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০৩:২৫ এএম

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ফেলোশিপ পেলেন ১৫ সাংবাদিক (ভিডিও)

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ফেলোশিপ পেলেন ১৫ সাংবাদিক (ভিডিও)

মেডিভয়েস রিপোর্ট: পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি আয়োজিত ‘মিডিয়া ফেলোশিপ’ পেয়েছেন ১৫ জন সাংবাদিক। সোমবার (২৫ নভেম্বর) অধিদপ্তরের সভাকক্ষে নির্বাচিত সাংবাদিকদের হাতে এ ফেলোশিপের অর্থ তুলে দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালেক।

এ সময় নির্বাচিতদের প্রত্যেকের হাতে নগদ এক লাখ টাকার চেক হাতে তুলে দেন মন্ত্রী। সেঁজুতিসহ আরো যারা ফেলোশিপ পেলেন- আরটিভির স্টাফ রিপোর্টার আল আমিন খান, একাত্তর টিভির স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট নাজনীন আক্তার মুন্নি, মোহনা টিভির রিপোর্টার নাজনীন আক্তার লাকি, চ্যানেল আইয়ের স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট জান্নাতুল বাকেয়া কেকা, লাইভ টিভির সম্পাদক আনোয়ার হক, দৈনিক সমকালের স্টাফ রিপোর্টার সাজিদা ইসলাম পারুল, দ্য ডেইলি স্টারের স্টাফ করেসপন্ডেন্ট মওদুদ আহম্মেদ সুজন, প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার মানছুরা হোসেন, দেশ রূপান্তরের রিপোর্টার মামুন আব্দুল্লাহ, দ্য ঢাকা ট্রিবিউনের রিপোর্টার বিলকিস ইরানি, ভোরের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার মরিয়ম সেঁজুতি, সামহোয়্যার ইন ব্লগ ডটনেটের ব্লগার এনায়েত হায়দার শাওন, দৈনিক সংবাদের কার্টুনিস্ট মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস ও উন্মাদের কার্টুনিস্ট আরিফ ইকবাল।

এ বছর পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের যুগ্ম সচিব ও পরিচালক (আইইএম) ড. আশরাফুন্নেছা নির্বাচিতদের তালিকা প্রকাশ করেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আইইএম ইউনিটের আইইসি অপারেশনাল প্ল্যানের ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে পরিবার পরিকল্পনা, মা, শিশু ও নবজাতক স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা ইস্যু বিষয়ক লেখালেখি নিয়ে প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক, অনলাইন, সোশ্যাল মিডিয়া সাংবাদিকদের মধ্যে মিডিয়া ফেলোশিপ (৩ মাসের) প্রদানের লক্ষ্যে এ ফেলোশিপ প্রদান করা হলো।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন। পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী আ খ ম মহিউল ইসলাম এসময় উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যখাতে ১০ বছরে ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। প্রাইমারি স্বাস্থ্যসেবা জোরদার করা হয়েছে। পাশের কয়েকটি দেশের তুলনায় যা অনেক ভালো। এখন মানুষের গড় আয়ু ৭২ বছর। এভাবে কাজ করতে পারলে গড় আয়ুতে আমেরিকার কাছাকাছি যাওয়া খুব কঠিন নয়।

তিনি বলেন, ওষুধ তৈরিতে আমরা সাফল্য দেখিয়েছি। স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নের জন্য জনবল খুব প্রয়োজন। আমাদের সে ঘাটতি রয়েছে। আগামী সপ্তাহে সাড়ে ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হবে। অল্প লোক দিয়ে আমরা ভালো সেবা দেয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। শুধু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একার পক্ষে সব করা সম্ভব না। সবাইকে সচেতন হতে হবে।

এছাড়া তিনি আরো বলেন, মশা মারার দায়িত্ব আমাদের না। আমরা স্বাস্থ্যসেবা দিতে পেরেছি কি না সেটা দেখার বিষয়। একজনও সেবার বাইরে ছিল না। পরিবার পরিকল্পনা নিয়ে তিনি বলেন, পরিবার পরিকল্পনার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করতে হবে। আমরা এখন যে অবস্থানে আছি তা অনেক ভাল। এর চেয়ে বেশি বাড়াতে চাই না, আবার মাইনাসেও থাকতে চাই না। এসময় নির্বাচিতদের অভিনন্দন জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও মেডিভয়েস অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল বিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-[email protected]-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত