২৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০৯:১১ পিএম

গর্ভাবস্থায় বিতর্কিত ডিএনএ স্ক্রিনিংয়ের কৌশল ব্যবহার!

গর্ভাবস্থায় বিতর্কিত ডিএনএ স্ক্রিনিংয়ের কৌশল ব্যবহার!

রোগের ঝুঁকি নির্ধারণে অসংখ্য ডিএনএকে বিশ্লেষণ করার পরে নির্বাচিত ভ্রূণ নিয়ে একজন মহিলা গর্ভবতী হন। আইভিএফ ভ্রূণের স্ক্রিনিংয়ের জন্য এই পদ্ধতি প্রথম ব্যবহার করা হয়েছে, তবে অনেকেই এই প্রযুক্তিটির ব্যবহার সঠিক বলে মনে করেন না। জিনোমিক প্রেডিকশন নামে একটি সংস্থা বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
 
জিনোমিক প্রেডিকশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) লরেন্ট টেলিয়ার বলেন, পলিজেনিক ট্রেইটসের জন্য প্রি-ইমপ্ল্যানটেশন জেনেটিক পরীক্ষার সাহায্যে ভ্রূণগুলো বেছে নেয়া হয়, যার ফলে গর্ভাবস্থার সৃষ্টি হয়ে থাকে। এই পদ্ধতিতে রোগের ঝুঁকি কম।

যখন জেনেটিক মিউটেশনের ফলে রোগের সৃষ্টি হয়, তখন বেশিরভাগ ডিএনএর পরিবর্তনের প্রভাব কমে যায়। এই রূপান্তর হৃদরোগ বা ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। জেনেটিক বিশেষজ্ঞরা মানুষের ডিএনএ সিকোয়েন্স করে এবং প্যালোজেনিক ঝুঁকি স্কোর গণনা করে মিউটেশনের সামগ্রিক প্রভাব কার্যকর করার চেষ্টা করেন। তবে এগুলো কতটা সঠিক বা কার্যকর তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

জিনোমিক প্রেডিকশন সংস্থাটি প্রথম প্রাপ্ত বয়স্কদের ভ্রূণের জন্য প্যালোজেনিক রিস্ক স্কোর সরবরাহ করে। আবার কম আইকিউ থাকার আশঙ্কা রয়েছে—এমন ভ্রূণগুলোর স্ক্রিন করার বিকল্প হিসেবেও এটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

ভ্রূণের স্ক্রিনে প্যালোজেনিক রিস্ক স্কোরগুলো ব্যবহার করা বিতর্কিত। যুক্তরাজ্যের গবেষক ফ্রান্সেস ফ্লিন্টার বলেন, কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজের মতো প্যালোজেনিক ঝুঁকির কারণগুলো পরীক্ষা করতে প্রি-ইমপ্লান্টেশন জেনেটিক ডায়াগনোসিস করা উচিত নয়।

এন এইচ এস ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের পরিচালক সেন্ট থমাস বলেন, আমি মনে করি এটি প্রযুক্তির অপব্যবহার।

তিনি বলেন, জেনেটিক্সের উপর এ জাতীয় স্ক্রিনিং অপ্রয়োজনীয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আমাদের হৃদরোগের ঝুঁকি ডায়েট দ্বারা নির্ধারিত হয়। এছাড়াও আমরা ধূমপান করি কিনা, আমরা কতটা ব্যায়াম করি তার উপরও নির্ভর করে।

ফ্লিন্টার বলেন, মারাত্মক রোগগুলোর ক্ষেত্রে ভ্রূণ নির্ধারণের জন্য প্রি-ইমপ্ল্যান্টেশন জেনেটিক ডায়াগনোসিস ব্যবহার করা সম্পূর্ণ ভিন্ন ব্যাপার। যখন আমরা বলতে পারবো যে, এর ফলে ভ্রূণগুলো প্রভাবিত হবে না।

জিনোমিক প্রেডিকশনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা স্টিভেন হু বলেছেন, প্যালোজেনিক স্কোর ব্যবহারের ফলে ৩ ভাগ মানুষের ব্রেস্ট ক্যান্সারে ও হার্ট এ্যাটাকের ঝুঁকি দেখা দিতে পারে। তাদের খুঁজে বের করা আমাদের লক্ষ্য। এই ফলাফল নতুন।

হু আরও বলেন, একজন সাধারণ প্রি-ইমপ্ল্যান্টেশন জেনেটিক ডায়াগনোসিস বিশেষজ্ঞ একক জিনের অবস্থান বুঝতে পারেন না। এবং প্যালোজেনিক প্রেডিকশন কিভাবে শক্তিশালী হতে পারে তাও ধারণা রাখেন না।

ভাষান্তর: আহসান হাবিব

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে