২৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০৩:১৮ পিএম
আপডেট: ২৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:৫৫ এএম

আলঝাইমার রোগ: বয়স্কদের জীবনেও চাই সক্রিয় জীবন যাপন

আলঝাইমার রোগ: বয়স্কদের জীবনেও চাই সক্রিয় জীবন যাপন

গবেষকরা দেখেছেন, সক্রিয় জীবন যাপনে বয়স্কদের মস্তিষ্কের ধুসর পদার্থ অটুট থাকে, এতে ডিমেনশিয়া আর আলঝাইমার রোগের বোঝা হ্রাস পায়। গড় বয়স ৭৮ এমন ৮৭৬ জন লোকের উপর এই গবেষণা করা হয়েছে। যে সব লাইফ স্টাইল কাজ পর্যবেক্ষণে ছিল সেগুলো হল- বাড়ির প্রাঙ্গন আর বাগানে কাজ, সাইকেল চালান, বিনোদনমূলক খেলা, এক্সারসাইজ বাইক চালানো আর নৃত্য।

আলঝাইমার রোগের ১০টি আগাম লক্ষণ:

১. স্মৃতি হানি, যা জীবনে বিপর্যয় আনে। স্বাভাবিক ভাবে বয়স্ক হলে অনেক সময় কারো নাম মনে আসে না, এপয়েনটমেনট মনে থাকে না, তবে পরে মনে আসে। আলঝাইমার হলে আগাম যে লক্ষণ তা হল সাম্প্রতিক তথ্য ভুলে যাওয়া। আর একটি হল গুরুত্বপূর্ণ তারিখ বা ঘটনা ভুলে যাওয়া, ঘটনা ভুলে যাওয়া। বারবার একই সংবাদ জিজ্ঞাসা করা। মেমরি এইডের উপর নির্ভরতা, যেমন রিমাইন্ডার নোট বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস। পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসা করে করে মনে করা।

২. সমস্যা ব্যালেন্স করতে বা পরিকল্পনা করতে চ্যালেঞ্জ সামলানো। স্বাভাবিক ভাবে কখন ভূল হতে পারে। চেক বুক ব্যলেন্স করতে। কিছু লোক সংখ্যা আছে এমন, কোন প্ল্যান বা কাজ বাস্তবায়নে দক্ষতা হারিয়ে ফেলেন। যেমন- মাসিক বিল দিতে সমস্যা। পরিচিত রেসিপি মনে আসে না। এমন কাজ যা আগে দ্রুত করা গেছে এমন কাজ করতে মন সংযোগ আসে না, সময় লাগে বেশি।

৩. ঘরে, কর্মস্থলে বা অবসরে পরিচিত কাজ শেষ করতে সমস্যা। স্বাভাবিক ভাবে হয়তো কখনও অন্যের সাহায্য লাগে মাইক্রোওয়েব সেট করতে বা কোনও টিভি প্রোগ্রাম রেকর্ড করা।

আলঝাইমার রোগী দৈনন্দিন কাজ করতে অসুবিধা বোধ করেন। পরিচিত গন্তব্যে ড্রাইভ করে যেতে পারেন না, কর্মস্থলে বাজেট ম্যানেজ করতে পারেন না, পরিচিত খেলার রুল মনে করতে পারেন না।

৪. স্থান কাল নিয়ে বিভ্রান্তি। স্বাভাবিকভাবে সপ্তাহের তারিখ নিয়ে সাময়িক বিভ্রান্তি, পরে ঠিক হয়ে যায়। আলঝাইমার রোগী তারিখ, কাল, সময় নিয়ে ভ্রান্তিতে পড়েন। কোথায় আছেন, কিভাবে এলেন, মনে করতে পারেন না।

৫. ছবি, প্রতিচ্ছবি, দিক স্থিতি নিয়ে বিভ্রম। স্বাভাবিকভাবে দৃষ্টি সমস্যা হয় চোখে ছানি পড়লে। কারো কারো ক্ষেত্রে দৃষ্টি শক্তিতে সমস্যা আলঝাইমারের আগাম লক্ষণ হতে পারে। পড়তে, দূরত্ব পরিমাপে, রং বা কনট্রাস্ট নির্ণয়ে সমস্যা হতে পারে। আয়নাতে মনে করেন ঘরে অন্য কারো প্রতিচ্ছবি, নিজের প্রতিফলন চিনতে পারেন না।

৬. কথা বলতে, লিখতে শব্দাবলী নিয়ে সমস্যা। স্বাভাবিক ভাবে অনেক সময় সঠিক শব্দ মনে করতে বা পেতে সমস্যা হয়।

এ ধরণের রোগীর কোনও আলাপ-আলোচনা অনুসরণে সমস্যা হয় বা যোগ দিতে সমস্যা হয়। হয়ত আলাপ করছেন, মাঝখানে থেমে গেলেন, কীভাবে এগুবেন তা বোঝেন না, আবার পুরনো আলাপ বলতে শুরু করলেন। শব্দ ভাণ্ডার নিয়ে, সঠিক শব্দ চয়নে সমস্যা। ভুল নামে ডাকা যেমন দেশলাই বাক্সকে বলে বসলেন হাত ঘড়ি।

৭. জিনিস অস্থানে রাখা, কোন জিনিস হারালে খুঁজে বের করতে সমস্যা। স্বাভাবিক ভাবে কোন কোন জিনিস অস্থানে রাখা হতে পারে যেমন এক জোড়া চশমা বা রিমোট কনট্রোল। আলঝইমার রোগী জিনিস রাখেন অস্বাভাবিক স্থানে। জিনিস হারালেন কিন্তু মনে করে একে খুঁজে বের করতে পারেন না। অন্যকে চুরির দায়ে অভিযুক্ত করেন। এভাবে কালক্রমে এটি বাড়তে থাকে।

৮. বিচার বুদ্ধি হ্রাস। স্বাভাবিকভাবে হয়ত কদাচিৎ দু’একটা সু-বিবেচনার কাজ হয় না। আলঝাইমার রোগীদের বিচার বিবেচনা প্রসূত কাজ হল না, যুক্তিসঙ্গত সিদ্ধান্ত হল না এমন অভিজ্ঞতা হয়। যেমন, অর্থের ব্যাপারে ভুল বিচার বিবেচনা হল, হয়ত বিশাল পরিমান অর্থ ভুল বিনিয়োগ করলেন। নিজেদের পরিচ্ছন্ন রাখতে, সুসজ্জিত রাখতে এদের খেয়াল কম।

৯. কাজকর্ম আর সামাজিক কর্ম থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করা। স্বাভাবিক ভাবে কদাচিৎ কাজ কর্ম সামাজিকতা, পরিবারের ভার গুরুতর মনে হলে সাময়িক বিরাগ হতে পারে।

আলঝাইমার রোগীরা নিজেদের সরিয়ে নিতে থাকে শখ, সামাজিক কাজ কর্ম, কোনও কর্ম প্রজেক্ট আর খেলাধূলা থেকে। প্রিয় খেলার টিমের সাথে চলতে অসুবিধা হয়। সমাজ থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেয়।

১০. মন মেজাজ আর ব্যক্তিত্বে পরিবর্তন। স্বাভাবিক ভাবে কাজের রুটিন বিপর্যস্ত হলে বিরক্তি হয়, মেজাজ খারাপ হয়। আলঝাইমার রোগীর মন মেজাজ আর ব্যক্তিত্বে ঘটে পরিবর্তন। এরা হতে পারেন বিভ্রান্ত, বিষণ্ণ, সন্দেহপ্রবন, দুশ্চিন্তাগ্রস্ত, ভীত। ঘরে, কর্মস্থলে, বন্ধুদের সাথে বা অস্বস্তিকর স্থানে সহজেই তাদের মন খারাপ হতে পারে।

Add
একজন এফসিপিএস পরীক্ষা উত্তীর্ণ চিকিৎসকের অনুভুতি

পরীক্ষা প্রস্তুতির শেষের কয়েকদিন মেয়ের সাথে দেখা করতে পারিনি

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সতর্কতা

চীনে রহস্যজনক ‘করোনা ভাইরাসে’ দ্বিতীয় মৃত্যু

একজন এফসিপিএস পরীক্ষা উত্তীর্ণ চিকিৎসকের অনুভুতি

পরীক্ষা প্রস্তুতির শেষের কয়েকদিন মেয়ের সাথে দেখা করতে পারিনি

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সতর্কতা

চীনে রহস্যজনক ‘করোনা ভাইরাসে’ দ্বিতীয় মৃত্যু

একজন এফসিপিএস পরীক্ষা উত্তীর্ণ চিকিৎসকের অনুভুতি

পরীক্ষা প্রস্তুতির শেষের কয়েকদিন মেয়ের সাথে দেখা করতে পারিনি

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ইফতার-সেহেরিতে কী খাবেন
গরমের দিনে রোজা

ইফতার-সেহেরিতে কী খাবেন