২৫ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:১৪ এএম
আপডেট: ২৫ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:৪৮ এএম

বিদেশী চিকিৎসক এনে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প: বিএমডিসির সতর্কবার্তা

বিদেশী চিকিৎসক এনে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প: বিএমডিসির সতর্কবার্তা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: অনুমতি ছাড়াই দেশের বিভিন্ন স্থানে বিদেশী চিকিৎসক এনে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনাকে সম্পূর্ণ অবৈধ ও বেআইনী ঘোষণা করে এর বিরুদ্ধে সতর্কবার্তা দিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি)। অন্যথায় আইন অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি দিয়েছে সংগঠনটি।

সোমবার (২৫ নভেম্বর) জাতীয় গণমাধ্যমে দেয়া বিএমডিসির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, কিছু প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তির উদ্যেগে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে বিদেশী চিকিৎসক সমন্বয়ে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনা করছেন, তা বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) গোচরীভুত হয়েছে। বিএমডিসির অনুমতি ব্যতিরেকে বিদেশী চিকিৎসকদের বাংলাদেশে চিকিৎসা প্রদান সম্পূর্ণ বেআইনী ও অবৈধ। ভবিষ্যতে এ ধরনের কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার জন্য সকলকে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। অন্যথায় বিএমডিসি আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে বাধ্য হবে।

এ প্রসঙ্গে ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি এন্ড রাইটসের (এফডিএসআর) কার্যকরী পরিষদের সদস্য ডা. রাশেদুল হক বলেছেন, দেরিতে হলেও বিএমডিসির ঘুম ভেঙেছে, আর এই ঘুম ভাঙ্গানোর কাজটি করেছে এফডিএসআর। বিএমডিসিকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আরো অনেক জঞ্জাল জমে আছে সারাদেশে কোয়ার্ক, অল্টারনেটিং মেডিসিন, কবিরাজ, জ্বিন-ভূতে ধরা চিকিৎসায়। সবাই নিজেকে 'ডাক্তার' পরিচয় দিয়ে সাধারণ মানুষকে প্রতারণা করছে।

ডা. রাশেদুল হক বলেন, ভুয়া চিকিৎসকে সারাদেশ ভরে গেছে। ক্লাস এইট পাশ, ফাইভ পাশ এমবিবিএস ডাক্তার লেখে চিকিৎসা দিচ্ছে। বিসিএমডিসি (অল্টারনেটিভ মেডিসিন) এর ১০ হাজার চিকিৎসক সারা দেশে ছড়িয়ে গেছে। এ থেকে পরিত্রাণের পথ বের করতে হবে, বিএমডিসির লোকবল বাড়াতে হবে, বিএমডিসিকে বাংলাদেশে চিকিৎসা ক্ষেত্রে সব ধরণের অপচিকিৎসা বন্ধে কার্যকর ভূমিকা নিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ অফিসার, সিভিল সার্জন অফিসারগণ যদি স্ব-স্ব জেলায় চিরুনি অভিযান মাঝে মাঝে পরিচালনা করে তবে এইসব জঞ্জাল অনেকাংশে কমে যাবে।

উল্লেখ্য, গত ১৩ নভেম্বর (বুধবার) সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজে ৪ ভারতীয় চিকিৎসককে চিকিৎসা প্রদানের অনুমতি দিয়েছিল বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি)। এছাড়াও ৩০ নভেম্বর থেকে আগামী ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কাজের জন্য তাদেরকে সাময়িক রেজিস্ট্রেশন প্রদান করা হয়েছিলো। পরবর্তীতে চিকিৎসক সমাজে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদের ভারতীয় চিকিৎসকদের চিকিৎসা প্রদানের অনুমতি বাতিল করে বিএমডিসি।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত