১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:১০ পিএম
আপডেট: ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:১৪ পিএম

৩৯ এ নিয়োগের অপেক্ষায় থাকা চিকিৎসকদের রেসিডেন্সিতে ভর্তিতে সিদ্ধান্ত সরকারের

৩৯ এ নিয়োগের অপেক্ষায় থাকা চিকিৎসকদের রেসিডেন্সিতে ভর্তিতে সিদ্ধান্ত সরকারের

মো. মনির উদ্দিন: স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগের জন্য রাষ্ট্রপতির অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা ৪ হাজার ৭৫০ জন চিকিৎসকের মধ্য থেকে এবার রেসিডেন্সি পরীক্ষায় চান্সপ্রাপ্তদের কোর্সে ভর্তির বিষয়ে সরকার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। 

শনিবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে মেডিভয়েসকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। 

নিয়োগের অপেক্ষায় থাকা চিকিৎসকদের রেসিডেন্সি কোর্সে ভর্তিতে কোনো সমস্যা দেখছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তাদের ভর্তির বিষয়ে কি হবে সে ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত না। তাদেরকে এখন ডেপুটেশন দেওয়া হবে কিনা সেটা সরকারের বিষয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘তারা যেহেতু প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সুযোগ পেয়েছে। তাছাড়া সিলেকশন হলেও তো অনেকে ভর্তি হয় না। সুতরাং এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। বিএসএমএমইউর তরফে কোনো সমস্যা নাই। সরকার অনুমতি দেবে কি দেবে না—এটা সরকারের বিষয়। তারা যেহেতু সুযোগ পেয়েছে, তাদের ভর্তিতে আমরা নিষেধ করতে পারবো না।’

নিয়োগের অপেক্ষায় থাকা ডা. রিয়াজ মাহমুদ মেডিভয়েসকে বলেন, ‘যেহেতু ভিসি স্যার বলছেন, বিএসএমএমইউর পক্ষ থেকে কোনো সমস্যা নেই। সুতরাং এখানে যদি ভর্তি হতে পারি, তাহলে নিয়োগের পর আমরা দুই বছরের জন্য গ্রামে চলে যাবো। সাধারণত সেখানে দুই বছর থাকতে হয়। এ সময় কেউ কোর্সে চান্স পেলে চলে আসতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যদি আমাদের ভর্তিতে বাধা না দেয়, তাহলে তো একই রকম হবে। সরকার তো কোনো ক্ষতির মুখে পড়ছে না। সবাই কোর্সে ভর্তি হয়ে দুই বছরের গ্রামে চলে যাবে, এর পর ফিরে আসবে।’

ঢাকা মেডিকেল কলেজের কে-৬৭ ব্যাচের এ শিক্ষার্থী আরও বলেন, ‘সরকারের তরফ থেকে সমস্যা হবে—এ রকম কোনো আশঙ্কা আমরা করিনি। আমাদের আশঙ্কা ছিল, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনো আপত্তি করে কিনা!যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো সমস্যা নেই, আশা করি সরকারের কোনো সমস্যা হবে না। কারণ নিয়োগের পরে আমরা তো গ্রামে যেতে প্রস্তুত। ’

প্রসঙ্গত, ৩৯তম বিশেষ বিসিএস উত্তীর্ণ চিকিৎসকদের মধ্য থেকে ৪ হাজার ৭৫০ জনকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। গত ১৪ নভেম্বর জাতীয় সংসদে হারুনুর রশীদের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, ৩৯তম বিশেষ বিসিএস উত্তীর্ণ এসব ডাক্তারদের ফাইল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হয়ে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন নিয়ে এখন রাষ্ট্রপতির অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

এর ফলে প্রতি উপজেলায় ৯ থেকে ১০ জন করে নতুন ডাক্তার নিয়োগ হবে বলে জানান তিনি।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত