১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:৪৫ এএম
আপডেট: ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:৫১ এএম

নিখোঁজ মেডিকেল ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার 

নিখোঁজ মেডিকেল ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার 

মেডিভয়েস রিপোর্ট: নিখোঁজের দুই দিন পর মিললো ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থী নয়ন চন্দ্র নাথের (২৪) লাশ। শনিবার সকাল আটটায় ফরিদপুরের মুন্সীবাজার এলাকার একটি স মিলের পাশে তার ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়। 

জানতে চাইলে ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান মেডিভয়েসকে বলেন, ‘গত পরশুদিন থেকে সে নিখোঁজ ছিল। আজ সকালে মেডিকেল কলেজ থেকে একটু দূরে একটি স মিলের কাছে তার ঝুলন্ত লাশ পাওয়া গেছে। মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও সহপাঠীরা তার লাশ শনাক্ত করেছেন। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

সে আত্মহত্যা করেছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে সেটাই ধারণা করা হচ্ছে। কারণ সে বিষণ্ণতায় ভুগছিল। এ কারণে হয়তো আত্মহত্যা করেছে। আইনি পদক্ষেপের অংশ হিসেবে একটি অপমৃত্যু মামলার পর লাশের ময়না তদন্ত হবে। এরপর মৃত্যুর কারণ নিয়ে শতভাগ নিশ্চিত হওয়া যাবে।’ 

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার কবির মেডিভয়েসকে বলেন, ‘গত ১৪ নভেম্বর সকাল পৌনে ৯টার দিকে গাইনি পরীক্ষা না দিয়ে হোস্টেল থেকে বের হয়। দুই দিন যাবত তাকে খোঁজাখুঁজির পর আজ সকালে ফরিদপুরের মুন্সিবাজারে একটি স মিলে তার ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ পাওয়া যায়।’

তিনি আরও বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে নয়ন মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিল। তার ইচ্ছে ছিল একজন সার্জন হওয়ার। কিন্তু ডান হাতের আঙুলে সমস্যা থাকায় সে সার্জন হতে পারবে না—এটা জানার পর থেকেই নয়ন বিপর্যস্ত হয়ে পরে।

সূত্রে জানা গেছে, গত ৩ নভেম্বর থেকে মেডিকেলের চূড়ান্ত পেশাগত পরীক্ষা দিচ্ছিলেন নয়ন চন্দ্র নাথ। তিনটি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার পর ১৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় চতুর্থ পরীক্ষা শুরু হয়। নয়ন অন্তত এর সোয়া এক ঘণ্টা আগে ছাত্রাবাস থেকে বের হয়ে যান। 

নয়ন রুম মেটকে বলে যান, ‘আমি একটু আসতেছি। কিন্তু সে আর ফিরেনি।’

এ ব্যাপারে ওই দিন বিকেলেই ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে কলেজ কর্তৃপক্ষ। 

তার বাড়ি ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার আজিজ ফাজিলপুর এলাকায়। তার বাবা মৃত দিলীপ চন্দ্র নাথ। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে নয়ন সবার ছোট।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত