০২ নভেম্বর, ২০১৯ ০৩:৫৭ পিএম
আপডেট: ০২ নভেম্বর, ২০১৯ ০৫:১১ পিএম

দেশে আধুনিক সেন্ট্রাল ব্লাড ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দেশে আধুনিক সেন্ট্রাল ব্লাড ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমাদের দেশে অসংখ্য মানুষ রক্তের অভাবে মৃত্যুবরণ করে। আমরা তাদেরকে প্রয়োজন মতো রক্ত দিতে পারিনা বিধায় রক্তের অভাবে তাদেরকে মৃত্যুবরণ করতে হয়। তবে, সন্ধানীসহ অনেকেই এ নিয়ে কাজ করছে। দেশের প্রতিটি জায়গায়, প্রতিটি হাসপাতালে ব্লাড ব্যাংক তৈরি হয়েছে। কিন্তু সেন্ট্রাল ব্লাড ব্যাংক এখানো তৈরি হয়নি। আমি আপনাদের কথা দিচ্ছি, আমাদের এই সময়কালেই বাংলাদেশে একটি উন্নত মানের আধুনিক সেন্ট্রাল ব্লাড ব্যাংক আমরা প্রতিষ্ঠা করবো।

শনিবার (২ নভেম্বর) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ব্লকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয় ও সন্ধানী চক্ষুদান সমিতি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আজকাল রক্ত দেওয়ার জন্য অনেকেই এগিয়ে আসনে। হাসপাতালগুলোর চারদিকে রক্ত দেওয়ার জন্য ভিড় করে। এটিই বুঝায়, মানবতাই হোক জাতির ঐক্য। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালে উদ্যোগ নিয়েছিলেন রক্ত পরিসঞ্চালণ বিভাগ প্রতিষ্ঠার। ১৯৭৫ সালে অন্ধত্বমোচনে অধ্যাদেশ নির্ধারণ করেন। জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা মানব দেহে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সংযোজন আইন-২০১৯ করেছেন। এখন আমরা স্বাস্থ্য সেবায় অনেকদূর এগিয়ে গেছি। অনেক পুরস্কার আমরা পেয়েছি, প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের একটি বিভাগে ভ্যাক্সিন হিরো পুরস্কার পেয়েছেন। 

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে মাঠ পর্যায় থেকে শুরু করে জেলা-উপজেলায় আমরা কাজ করেছি, ফলে আমাদের গড় আয়ু বৃদ্ধি পেয়ে ৭৩ বছর হয়েছে। এটা কোন ম্যাজিক নয়, এটার জন্য চিকিৎসক নার্সসহ হাজার হাজার লোক কাজ করছে। সকলের প্রচেষ্টাতেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট হচ্ছে, এখানকার ডাক্তাররা লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করেছে। এখানে সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল হচ্ছে, দেশে ৩৫টি মেডিকেল কলেজ নির্মিত হচ্ছে, ৪টি নতুন মেডিকেল ইউনিভার্সিটি তৈরি হয়েছে। আমরা উচ্চশিক্ষায় আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা জনগনের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে। তবে এতোসব অর্জনের মধ্যেও আমাদের অনেক কাজ করার বাকি আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতিনিয়তই স্বাস্থসেবার খোঁজখবর নেন।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি এমপি। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা হাবিবে মিল্লাত এমপি, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা সচিব শেখ ইউসুফ হারুন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাক্তার আবুল কালাম আজাদ, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম প্রমূখ।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত