ঢাকা      মঙ্গলবার ২৪, সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ৯, আশ্বিন, ১৪২৬ - হিজরী

চিকিৎসক না বাঁচলে রোগী বাঁচাবে কে?

মেডিভয়েস রিপোর্ট​:​​​​​​ হাসপাতালে রোগীমৃত্যুর জেরে চিকিৎসকের ওপর হামলা আর ভাঙচুরের প্রবণতা যেন এখন আমাদের নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। বরগুনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক লাঞ্ছিতের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার এবার খুলনায় চিকিৎসক লাঞ্ছিত ঘটনা ঘটেছে। সাম্প্রতিক সময়ের এসব এঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে চিকিৎসক সমাজে। ক্ষোভ জানিয়েছেন চিকিৎসকদের জনপ্রিয় মুখ, বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ও ঢাকা মেডিকেল কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ডা. আব্দুন নূর তূষার।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। খুলনায় চিকিৎসকের উপর হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “চিকিৎসক না বাঁচলে রোগী বাঁচাবে কে?”

ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি বলেন, নিরাপত্তা প্রতিটি নাগরিকের অধিকার। ডাক্তার কেন নিরাপত্তা পাবে না? কেন মদের বিষক্রিয়ায়, হার্ট অ্যাটাকে রোগী মরে গেলে, মাতালের বন্ধুরা ডাক্তারকে কোপাবে? এরা কারা? এদের পরিচয় কি? সকল চিকিৎসকের উচিত একসাথে বলা , চিকিৎসক না বাঁচলে রোগী বাঁচাবে কে?

উল্লেখ্য, গতকাল (৮ সেপ্টেম্বর) খুলনার খালিশপুর ক্লিনিকে রিপন (২৪) নামে এক পলিটেকনিক ছাত্রের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে রোগীর স্বজনরা মরদেহসহ কর্তব্যরত চিকিৎসককে মারধর ও জোর করে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে খুমেক হাসপাতাল থেকে কায়েস ও কৌশিক নামে দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, নগরীর মুজগুন্নী শেখ পাড়া এলাকার বাসিন্দা শওকত সর্দারের ছেলে ও সিটি পলিটেকনিকের ছাত্র রিপন সর্দারকে (২৪) বুকে ব্যাথা অনুভব করায় রাত ১২টার দিকে খালিশপুর ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক চিকিৎসা দেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই রিপনের মৃত্যু হয়। এতো অল্প সময়ের মধ্যে রোগীর মৃত্যুতে স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে চিকিৎসককে মারধোর করে চিকিৎসকসহ রিপনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সেখানেও রোগীর স্বজনরা দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। পরে সেখান থেকে কায়েস ও কৌশিক নামে দুই যুবককে গ্রেফতার করে সোনাডাঙ্গা থানা পুলিশ।

এ ব্যাপারে খালিশপুর ক্লিনিকের মালিক ডা. মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, রাত ১২টার পরে একটা রোগী আসে বুকে ব্যাথা নিয়ে। তাকে সম্ভাব্য সব চিকিৎসা দেয়া হয়। চিকিৎসা চলাকালীন তার মৃত্যু হয়। কিন্তু রোগীর স্বজনরা কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সুজাউদ্দিনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে অস্ত্রের মুখে খুমেক হাসপতালে নিয়ে যায়। সে গুরুতর অবস্থায় খুমেক হাসপাতালে অর্থপেডিক ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে।

সোনাডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মমতাজুল হক বলেন, চিকিৎসককে লাঞ্ছিত ও জিম্মি করে খুমেক হাসপাতালে নিয়ে আসার জন্য কায়েস ও কৌশিক নামে দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় রেকর্ড সংখ্যক আবেদন

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় রেকর্ড সংখ্যক আবেদন

মেডিভয়েস রিপোর্ট: দেশের সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায…

চিকিৎসক হিসেবে স্বীকৃতি চান পল্লী চিকিৎসকরা

চিকিৎসক হিসেবে স্বীকৃতি চান পল্লী চিকিৎসকরা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: নির্ধারিত কিছু কোর্স সম্পন্ন করেই নিবন্ধিত চিকিৎসকের মর্যাদা চাচ্ছেন পল্লী…

‘ভ্যাকসিন হিরো’ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

‘ভ্যাকসিন হিরো’ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বাংলাদেশে টিকাদান কর্মসূচির সাফল্যের জন্য ‘ভ্যাকসিন হিরো’ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন…

ঢাকা মেডিকেল কলেজ নিয়ে সরকারের নতুন পরিকল্পনা

ঢাকা মেডিকেল কলেজ নিয়ে সরকারের নতুন পরিকল্পনা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) ভেঙে সম্পূর্ণ নতুন আঙ্গিকে বড় পরিসরে নির্মাণের…

উপ-পরিচালক পদে পদোন্নতি পেলেন ৪৯ চিকিৎসক

উপ-পরিচালক পদে পদোন্নতি পেলেন ৪৯ চিকিৎসক

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের বিভাগীয় পদোন্নতি পদোন্নতি কমিটির (ডিপিসি) সুপারিশক্রমে…

ক্যানসার আক্রান্ত এন্ড্রু কিশোর, চলছে কেমোথেরাপি

ক্যানসার আক্রান্ত এন্ড্রু কিশোর, চলছে কেমোথেরাপি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের শরীরে ক্যানসার ধরা পড়েছে। গতকাল শনিবার…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস