২৮ অগাস্ট, ২০১৯ ১১:৩৯ এএম

৮ মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত ১০৭ চিকিৎসক, মৃত্যু ৪ জনের

৮ মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত ১০৭ চিকিৎসক, মৃত্যু ৪ জনের

মেডিভয়েস রিপোর্ট: সারাদেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমতে শুরু করলেও এ রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে অতীতের সব রেকর্ড। হাসপাতালগুলোতে রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের আক্রান্তের সংখ্যাও ছাড়িয়েছে পূর্বের সকল রেকর্ড। ২৪ ঘন্টার ব্যাবধানে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৩ জন চিকিৎসক। সবমিলিয়ে দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত চিকিৎসকের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০৭ জনে।

বুধবার (২৮ আগস্ট) সকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমাজেন্সি অপারেশনস এন্ড কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক ডা. আয়শা আক্তার মেডিভয়েসকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, গত ৮ মাসে ১০৭ জন চিকিৎসক, ১৩৭ জন নার্স এবং ৯১ জন স্বাস্থ্যকর্মী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩ জন চিকিৎসক, ১ জন মেডিকেল শিক্ষার্থী এবং ১ জন স্বাস্থ্যকর্মীসহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

চিকিৎসা সেবা দিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২৫ চিকিৎসক ,শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১১ চিকিৎসক এবং মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৪ চিকিৎসক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। চিকিৎসকরা বলছেন, ডেঙ্গুর প্রকোপ কমাতে এর বাহক এডিস মশা নিমূর্ল করা না হলে চিকিৎসা সেবার অতিরিক্ত কার্যক্রম ব্যাহত হবে।

কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে নতুন করে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ২৯৯ জন। যা গত দিনের তুলনায় ৪৮ জন বেশি। এর মধ্যে ঢাকায় ৬০৮ জন এবং ঢাকার বাইরে অন্যান্য জেলায় ৬৯১ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়েছে।

এছাড়া সারাদেশে বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু ও সন্দেহজনক ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজার ৩২২ জন। যা গতদিনের তুলনায় ৪ শতাংশ কম। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে বর্তমানে ভর্তি রয়েছে দুই হাজার ৯৯৯ জন। ঢাকার বাইরে দুই হাজার ৩২৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড়পত্র নেয়া রোগীর সংখ্যা এক হাজার ৫৩৯ জন। এর মধ্যে ঢাকায় ৬৯০ জন এবং ঢাকার বাইরে অন্যান্য জেলায় ৮৪৯ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৬০ হাজার ৫৬৯ জন। আর মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ হাজার ৬৪ জন। অর্থাৎ সারাদেশে ছাড়পত্র পাওয়া রোগীর সংখ্যা ৯২ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এ পর্যন্ত সম্ভাব্য ডেঙ্গুতে ১৭৩টি মৃত্যুর ঘটনা জেনেছে। এর মধ্যে ৮৮টি মৃত্যু পর্যালোচনা করেছে ডেঙ্গুতে মৃত্যু পর্যালোচনা কমিটি। সেখান থেকে কমিটি ৫২টি মৃত্যু ডেঙ্গুর কারণে বলে নিশ্চিত করেছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি