২৭ অগাস্ট, ২০১৯ ১১:১০ এএম

‘স্বাস্থ্য সেক্টরে উন্নয়নের ধারা বঙ্গবন্ধুই শুরু করেছিলেন’

‘স্বাস্থ্য সেক্টরে উন্নয়নের ধারা বঙ্গবন্ধুই শুরু করেছিলেন’

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ বলেছেন, স্বাস্থ্য সেক্টরে উন্নয়নের ধারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুরু করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু সে সময়ে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের মধ্য দিয়ে স্বাস্থ্য সেক্টরের যে উন্নয়নের যাত্রা শুরু করেছিলেন, তারই সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা এই জাতীয় স্বাস্থ্যখাতকে আন্তর্জাতিক মানের করার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

সোমবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

ডা. এমএ আজিজ বলেন, ইতিমধ্যে আমাদের দেশে চারটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী আমাদের জন্য বিশ্বের সর্ববৃহৎ বার্ন হসপিটাল ‘শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট’ করে দিয়েছেন।

বর্তমান ডিজিটাল ও উন্নয়নশীল বাংলাদেশের সূত্রপাত বঙ্গবন্ধুর হাতেই হয়েছিল উল্লেখ করে স্বাচিপ মহাসচিব বলেন, আজ আমরা বাংলাদেশ মহাকাশযান আকাশে উঠেয়েছি। যার ভিত্তি বঙ্গবন্ধু ১৯৭৪ সালেই বেত বুনিয়া ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র উদ্ধোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছিল।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই আজ বাংলাদেশ উন্নয়শীল বিশ্বের তালিকায় নাম লেখাতে পেরেছে। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে তা বহু আগেই হতো।

১৫ আগস্টকে সারা বিশ্বের জঘণ্যতম হত্যাকাণ্ড আখ্যা দিয়ে স্বাচিপ মহাসচিব বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জগণ্যতম রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। কিন্তু কোথাও শিশু বা নারীকে রাজনৈতিকভাবে হত্যাকাণ্ড করা হয়নি। কিন্তু একমাত্র বাংলাদেশেই এরকম পৈচাশিক হত্যাকাণ্ড ঘটিছে খুনি চক্র। এটি ছিল একটি আন্তুর্জাতিক ষড়যন্ত্র। দেশী ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রকারীরা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে পারলে উদ্দেশ্য হাছিল হবে, কিন্তু তা হতে দেওয়া হয়নি।

আলোচনা সভায় কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ফারুকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. এফএম শাখাওয়াত হোসেন, সার্জারী বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. একেএম রুহুল আমীন, ডেন্টাল বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. প্রদীপ কুমুর দেবনাথ, প্যাথলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. খোদেজা নাহার প্রমূখ।

Add
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত