২১ অগাস্ট, ২০১৯ ০৯:৫৭ এএম

সবাইকে নিয়ে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন করার চেষ্টা করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সবাইকে নিয়ে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন করার চেষ্টা করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: চিকিৎসকদের উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, আমরা চেষ্টা করছি আপনাদের সবাইকে নিয়ে স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়ন করার। আমাদের সেবা দিয়ে যেতে হবে। আমাদের ভালো কাজগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। অনেক ভালো ভালো কাজ হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নিউরোসায়েন্স হাসপাতালের অডিটোরিয়াম হলে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে এসব কথা বলেন। স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ ও নিউরোসায়েন্স হাসপাতাল যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

নিউরোসায়েন্স হাসপাতালের পরিচালক প্রফেসর ডা. কাজী দীন মোহাম্মদের সভাপতিত্বে শোক সভায় আরও বক্তব্য দেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ইকবাল আরসালান, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এম এ আজিজ, অধ্যাপক ডা. বদরুল আলম, ডা. জহিরুল হক চৌধুরী প্রমুখ।

নিউরোসায়েন্সে এক্সটেনশন হচ্ছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, বাংলাদেশে যতগুলো প্রতিষ্ঠান সুনামের সঙ্গে কাজ করছে তার মধ্যে নিউরোসায়েন্স অন্যতম। সাধারণ মানুষ নিউরোসায়েন্সের নাম জানে, ঢাকা মেডিকেলের নাম জানে, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম জানে। আমরা চাই এসব প্রতিষ্ঠান আরও ভালো করুক। এ ব্যাপারে আমাদের পূর্ণ সহযোগিতা থাকবে। যেভাবে তারা জনগণের সেবা দিয়ে যাচ্ছে সেভাবে সেটা বজায় রাখতে হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আমরা অনেক ক্ষেত্রে ভারত-পাকিস্তান থেকে এগিয়ে আছি। আমাদের গড় আয়ু ৭৩ বছর। আশপাশের সকল দেশ থেকে বেশি। পৃথিবীর আধুনিক ও ধনী রাষ্ট্র আমেরিকার গড় আয়ু ৭৮ বছর, আর আমাদের ৭৩ বছর। গড় আয়ুতে আমরা প্রায় তাদের কাছাকাছি চলে গেছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আজ গড় আয় আমাদের প্রায় ২ হাজার ডলারের সমান। পাকিস্তানের সময় এই অঞ্চলের গড় আয় ২০০ ডলার ছিল।

জাহিদ মালেক বলেন, একজন মানুষের আত্মীয়-স্বজন বা কাছের মানুষ মারা গেলে তার ভেতরে যে কষ্ট সেটা আমরা বুঝি। তার পরিবারের সবাই নিহত হওয়ার পর তিনি সেই শোককে শক্তিতে পরিণত করে দেশের জন্য কাজ করছেন। আজকে দেশ সম্মানের সাথে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গোটা পরিবারকে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যার মনে কষ্টের পাহাড় জমাট বেঁধেছিল সত্য, কিন্তু তিনি কখনোই ভেঙে পড়েননি। উলটো বঙ্গবন্ধু কন্যা ধীরে ধীরে এখন গোটা বিশ্বের শীর্ষ নেতৃত্বের কাতারে চলে এসেছেন। তার মনোবল আজ এতটাই দৃঢ় যে, শত্রুর শত কূট-কৌশলগুলো তিনি নষ্ট করে দিয়ে দেশকে উন্নয়নের শীর্ষে নিয়ে গেছেন। 

জাহিদ মালেক বলেন, জাতির পিতাসহ বঙ্গবন্ধুর গোটা পরিবারকে হত্যার মাধ্যমে ৭৫ এর ঘাতকেরা কেবল জাতির জনকের ওপরই প্রতিশোধ নেয়নি, এর মাধ্যমে তারা গোটা বাঙালি জাতীয়তাবাদকেই নিশ্চিহ্ন করতে ঔদ্ধত্য হয়েছিল। 

প্রধানমন্ত্রী গোটা পরিবার হারানোর কষ্টকে শক্তিতে পরিণত করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার ফলে বাংলাদেশ একদিন পাকিস্তানের তাবেদার রাষ্ট্রে পরিণত হবে। কিন্তু তাদের সে ষড়যন্ত্রকে দুরাশায় পরিণত করে এদেশের জনগণ ও জাতির জনকের বেঁচে থাকা সন্তান আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে পাকিস্তানের থেকে অনেক বেশি অনন্য সাধারণ উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছেন।

Add
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি