ঢাকা      বুধবার ১৮, সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ৩, আশ্বিন, ১৪২৬ - হিজরী



ডা. তাইফুর রহমান

কনসালটেন্ট কার্ডিওলজি

জেনারেল হাসপাতাল, কুমিল্লা।


স্বতঃস্ফূর্ত জীবন

মাহবুব সাহেব একটু পরপর ঘড়ি দেখছেন আর বিরক্তি নিয়ে চোখ -মুখ ভেংচে একটা একটা বুকডন দিচ্ছেন। আজ শরীরটা ভালো লাগছে না। কিন্তু কি করা, ডাক্তারের এডভাইস, ৪০ মিনিট ব্যয়াম করতেই হবে।

মাহবুব সাহেব বরাবরই একজন পাংচুয়াল মানুষ। সময় ও নিয়মের ব্যাপারে কোন আপোষ নাই। ঝড়-বৃষ্টি কোনটাই তাকে এ ব্যাপারে সামান্যও টলাতে পারেনি।

ব্যয়াম শেষ করে গাড়িতেই বাসায় ফিরেন মাহবুব সাহেব। চাকর, আর্দালির অভাব নাই তার। বাজারে তো কখনো যেতেই হয়না। এক গ্লাস পানিও ঢেলে খেতে হয়না কখনো। কলবেল টিপলেই হাজির হয়ে যায় চাকর, জোঁ হুকুম জাঁহাপনা।

এই ব্যায়ামে মাহবুব সাহেবের কোন আকর্ষণ বা ভালোবাসা নেই , আছে দায়িত্ববোধ, আছে দায়। এ দায় চাপিয়ে দেয়া, এই দায় আতংকের।
এমন দায় মাথায় নিয়ে বেশিক্ষণ কাজ করা যায় না। জানটা হাতে নিয়ে উর্ধশ্বাসে কতটুকুই বা দৌঁড়ানো যায়? এতে শরীরের কি লাভ হবে?

সেই জন্যই দায় এড়ানোর ছুতো খুঁজে মানুষ, মনকে প্রবোধ দেওয়ার জন্য বলে কোরবানির মাংস খেলে সমস্যা নাই। সাথে আতংকও কাজ করে। কথা না শুনে একটা টুকরা মাংস খেয়েছিলাম, তারপরই শুরু হলো বুকে ব্যাথা।

আহা..। জীবনটাতো দায় নয়, উপভোগের।

এই সেদিনও যে মেয়েটাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে মুখে লোকমা দিয়ে খাইয়ে দিত মা। মেয়েটা শুধু ঘুমচোখে কিছু বুঝে না বুঝে গিলতো। সেই মেয়েটাই আজ নিজেই সন্তানের জন্য সারারাত জাগ্রত থাকে, বাবু সোনা, লক্ষীসোনা বলে বাচ্চার মুখে তুলে খাওয়ায়। এখানে দায়বদ্ধতার বেড়াজাল নেই, আাছে মায়া, আছে ভালোবাসা, আছে আকর্ষণ। তাই এখানে ক্লান্তি আসে না। বারেবারে ঘড়ি দেখতে হয়না। এটাই স্বতঃস্ফূর্ততা। সব কল্যাণ এখানেই নিহিত।।

জীবনটাকে কঠিন করবেন না, সহজ করুন, ভালোবাসুন। জীবনটাকে আতংকে আবদ্ধ করবেন না। স্বতঃস্ফূর্ত, সাবলীল করুন প্রতিটি চলা, বলাকে। আপনি সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠবেন, হাটবেন, চলবেন, নিজের কাজগুলো নিজের হাতে করবেন, সুন্দর বাগান করবেন আঙিনায়, নির্মল আনন্দের সাথে উপভোগ করবেন এ জীবনটাকে।

এখানেই কায়িক পরিশ্রমটা ঢুকে যাক। এ কাজগুলোকে প্রতিদিনের স্বাভাবিক চলায় ইনক্লুড করুন। ডায়াবেটিস, হার্টের রোগ থাকলেও করবেন, না থাকলেও করবেন। যেমন- নিত্যদিনই আমরা ভাত খাই। আলাদা ৪০ মিনিট পার্কের কোনায় নিস্ফল ঘাম ঝরানোর দরকার নাই।

খেয়াল করুন, ঈমানের পর স্রষ্টার খুব গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ নামাজেও দিয়েছেন সাবলীলতা। ক্ষুধা পেটে, প্রস্রাবের বেগ নিয়ে নামাজ পড়তে নিষেধ করেছেন। নামাজ শুরু হয়ে গেলেও দৌঁড়ে যেতে নিষেধ করেছেন। অসুস্থ হলে বসে, প্রয়োজনে শুয়ে নামাজ পড়ার অনুমতি দিয়েছেন। অজুতে কষ্ট হলে তায়াম্মুমের অনুমতি দিয়েছেন। ৪৮ মাইল পেরিয়ে মুসাফির হলেই বিশেষ ছাড় কসর! শুধু রুটিনটা ঠিক রাখুন, প্রভুকে স্মরণে রাখুন।

প্রয়োজনীয় ইচ্ছা, আশা-আকাঙ্ক্ষা, অভাব -অভিযোগ খুলে বলুন তাঁকে। এটাই চান তিনি। এটা হোক আকর্ষণীয়, সাবলীল, স্বতঃস্ফূর্ত।

আপনার এই স্বতঃস্ফূর্ত পরিশ্রমে ফুলেরা হাসবে কাননে কাননে। মৌমাছির গুঞ্জন আর প্রজাপতির রঙিন উড়াউড়িতে মুখরিত থাকবে সে বাগান। বিকেলের সোনাঝরা রোদ ঠিকরে পরবে পত্র পল্লবের ফাঁক গলে, আপনার প্রশান্তির চেহারায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এক্সাম ফোবিয়া ও ডিপ্রেশন: মুক্তির সহজ সমাধান

এক্সাম ফোবিয়া ও ডিপ্রেশন: মুক্তির সহজ সমাধান

প্রশ্ন: স্যার আমি মেডিকেলের ৩য় বর্ষের ছাত্রী। মেডিকেলে ইতিমধ্যেই ১ বছর লস…

ডাক্তাররা রোগের চিকিৎসা করে, মৃত্যুর নয়

ডাক্তাররা রোগের চিকিৎসা করে, মৃত্যুর নয়

: ব্যাটসম্যানদের ভুলে আজ খেলাটা চলে গেল! : ভুল বলছেন কেন? বল…

সন্তানের থ্যালাসেমিয়ার জন্য পিতা-মাতার অজ্ঞতাই দায়ী!

সন্তানের থ্যালাসেমিয়ার জন্য পিতা-মাতার অজ্ঞতাই দায়ী!

সিএমসি, ভেলোরে আমি যে রুমে বসে রোগী দেখছি সেখানে ইন্ডিয়ার অন্যান্য রাজ্যের…

আনিসের প্রত্যাবর্তন 

আনিসের প্রত্যাবর্তন 

রাস্তায় একজনের মুখে সরাসরি সিগারেটের ধোঁয়া ছেড়ে দিলো আনিস। আচমকা এ আচরণে…

বদ লোকের গল্প!

বদ লোকের গল্প!

উপজেলায় নতুন তখন। সবাইকে ঠিকঠাক চিনিও না। হঠাৎ একদিন আমার রুমে পেট…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর