ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১ ঘন্টা আগে
ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

সহকারী সার্জন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল


০৬ অগাস্ট, ২০১৯ ১১:১৭

শর্ট সিনড্রোম ও করণীয়

শর্ট সিনড্রোম ও করণীয়

শর্ট সিনড্রোম। এই সিনড্রোমের আরও কিছু নাম আছে। তবে সেই নামগুলো বেশ জটিল। একসাথে অনেকগুলো জন্মগত ত্রুটি থাকে শর্ট সিনড্রোমে। অসুখটি সারা পৃথিবীতেই খুব একটা দেখতে পাওয়া যায় না। ১৯৭৫ সালে গরলিন নামে একজন বিজ্ঞানী এই রোগের প্রথম বর্ণনা দেন। এরপরে আরও কিছু রোগী পাওয়া যায়।

শর্ট সিনড্রোমে যেসব সমস্যা দেখা দেয় তার মধ্যে আছেঃ

১। উচ্চতা কম থাকে। বাচ্চা স্বাভাবিকভাবে বেড়ে উঠে না।

২। অস্থিসন্ধিতে সমস্যা থাকে।

৩। হার্নিয়া থাকতে পারে।

৪। দাঁত উঠতে দেরি হয়।

৫। গ্লুকোমা দেখা দিতে পারে।

৬। কানে শুনতে সমস্যা হয়।

৭। ডায়াবেটিস থাকতে পারে।

৮। মুখের গঠনের পরিবর্তন হয়।

৯। চামড়ার নিচে চর্বি থাকেনা।

একজনের মধ্যে যে সব সমস্যা থাকবে তা নয়। একেকজনের ক্ষেত্রে একেকরকম উপসর্গ থাকে। শারীরিক পরীক্ষা এবং জেনেটিক টেস্ট করে এই রোগ ধরা যায়। যদিও আমাদের দেশে এই পরীক্ষাগুলোর সুযোগ বেশ কম।

শর্ট সিনড্রোমের সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই। লক্ষণভিত্তিক চিকিৎসা করা হয়। হার্নিয়া এবং গ্লুকোমার জন্য সার্জারি লাগতে পারে। শর্ট সিনড্রোমের রোগীদের ডায়াবেটিস দেখা দিতে পারে। তখন ইনসুলিন দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। দক্ষ টিমের প্রয়োজন হয় এসব জটিল রোগ চিকিৎসার জন্য।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত