০২ অগাস্ট, ২০১৯ ০৮:০৭ পিএম

মাশরাফির অর্থায়নে ডেঙ্গু শনাক্তকারী ৬০০টি কিটস হাসপাতালে হস্তান্তর 

মাশরাফির অর্থায়নে ডেঙ্গু শনাক্তকারী ৬০০টি কিটস হাসপাতালে হস্তান্তর 

মেডিভয়েস রিপোর্ট: নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজার ঘোষণা অনুযায়ী ডেঙ্গু শনাক্তকারী ৬০০টি কিটস জেলা প্রশাসনের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ব্যক্তিগত অর্থায়নে ক্রয় করা এসব কিটস বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসনের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়।

জেলা প্রশাসক আঞ্জুমান আরার নেতৃত্বে আজ শুক্রবার বেলা ১২টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ৩০০টি কিটস নড়াইল সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নিকট ও ৩০০টি কিটস লোহাগড়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা পুলিশ সুপার মো. জসীম উদ্দিন, সিভিল সার্জন ডা. আসাদুজ্জামান টনি, সদর পৌরসভার মেয়র মো. জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, ডা. মশিউর রহমান বাবুসহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা।

এসময় জেলা প্রশাসক বলেন, সকল পেশার মানুষকে সঙ্গে নিয়ে নড়াইলের প্রতি ইঞ্চি জায়গা থেকে ডেঙ্গু নির্মূলে তিনি কাজ করবেন। মাশরাফি বিন মুর্তজাকে নড়াইলবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান।

পুলিশ সুপার মো. জসীম উদ্দীন সংসদ সদস্যের এমন প্রশংসনীয় উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, জনগণের সেবা প্রদানে পাশে থেকে রোগীদের হাসপাতালে অবস্থান নির্বিঘ্ন করা, সেবা প্রদানে যেকোন হয়রানি মোকাবেলা, জরুরি আম্বুলেন্স সেবা প্রাপ্তি ও হাসপাতালের পরিবেশ স্বাস্থ্যসেবা প্রদান ও গ্রহণের উপযোগী রাখতে নড়াইল সদর ও লোহাগড়া হাসপাতালে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, ডেঙ্গু প্রকোপে সবাই যখন আতঙ্কিত, বন্ধু হিসেবে তখন জনগণের পাশে দাঁড়ানো পুলিশ প্রশাসনের নৈতিক ও পেশাগত দায়িত্ব।

পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাস বলেন, সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজার ডাকে সাড়া দিয়ে এরই মধ্যে পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলরদের নেতৃত্বে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হচ্ছে।

কিটস গ্রহণ করতে এসে নড়াইল সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক বলেন, এই কিটসের অভাবে বিগত কয়েকদিন ডেঙ্গু শনাক্তে তারা বেশ বিড়ম্বনায় পড়েছেন। এখন তারা জনপ্রত্যাশা অনুযায়ী সেবা দিতে পারবেন। 

প্রসঙ্গত, ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়ে গেলে নড়াইলের আক্রান্তদের পাশে থাকার কথা দিয়ে যাবতীয় সহযোগিতার ঘোষণা দেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। এসময় তিনি সকলকে নিজ নিজ বাড়ির আঙ্গিনা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বান জানান এবং কারো জ্বর অনুভূত হলে দেরি না করে সরাসরি নড়াইল সদর হাসপাতাল বা লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে ডেঙ্গু রোগ শনাক্ত করে সেবা নেওয়ার আহ্বান জানান।

তার এমন ঘোষণার পর নড়াইলের রাজনৈতিক, প্রশাসনিক ও সামাজিক সংগঠন নিজ নিজ অবস্থান থেকে মাঠে নেমে কাজ করতে শুরু করে। ফলে নড়াইল জেলায় আক্রান্ত রোগীরা সুচিকিৎসা পাচ্ছে এবং আতঙ্কিত হওয়ার বদলে সকলে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত