৩০ জুলাই, ২০১৯ ০৩:৫৭ পিএম

‘আগস্ট মাসে বাড়ে ডেঙ্গুর ভয়াবহতা’

‘আগস্ট মাসে বাড়ে ডেঙ্গুর ভয়াবহতা’

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বিংশ শতাব্দির শেষ প্রান্তে এসে বাংলাদেশে ডেঙ্গু রোগের আবির্ভাব ঘটে।  এরপর থেকে এ নিয়ে চলেছে নানা ধরনের গবেষণা। যার মাধ্যমে ডেঙ্গুর ভয়াবহতা ও ভালো-খারাপ উভয় দিকই উঠে এসছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, অন্যান্য মাসের থেকে আগস্ট মাসে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেশি থাকে।

বিএসএমএমইউ’র করা এক গবেষণা জরিপের কথা উল্লেখ করে ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, বাংলাদেশে ২০০০ সাল থেকে ডেঙ্গু রোগ আসার পর থেকে নানা গবেষণা চলেছে। তবে গত আট বছরে ডেঙ্গুর তথ্য-উপাত্ত নিয়ে একটি গবেষণা করা হয়েছে।  যা বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, আগস্টে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেশি থাকে।

মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) বিএসএমএমইউ’র করা ওই গবেষণা জরিপের পরিসংখ্যান তুলে ধরতে বিশ্ববিদ্যালয়ের মিল্টন অডিটরিয়ামে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

জরিপের পরিসংখ্যান তুলে ধরে অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, জরিপে দেখা গেছে, যারা দ্বিতীয়বার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে এক থেকে পাঁচ শতাংশ মৃত্যুর সম্ভাবনা থাকে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের এখানে ২৫-২৯ জুলাই পর্যন্ত প্রায় এক হাজার ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী এসেছেন। এদের মধ্যে ১৭৭ জনকে ভর্তি করা হয়েছে আর ৮১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

তবে এখন পর্যন্ত কোনও রোগী বিএসএমএমইউতে হাসপাতালে মারা যায়নি বলে জানান তিনি।

বিএসএমএমইউ উপাচার্য বলেন, বহির্বিভাগে তিন থেকে চারশো রোগী জ্বর নিয়ে আসে, যাদের অধিকাংশ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছে ৩৩ জন নতুন রোগী। এর আগে বিএসএমএমইউতে আরও ভর্তি রয়েছে ৬৩ জন ডেঙ্গু রোগী। বর্তমানে হাসপাতালটিতে মোট ৯৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছে। এর মধ্যে হাসপাতালে ২১ জন শিশু ভর্তি আছে। জটিল অবস্থায় আছেন ১২ জন। তাদের মধ্যে বয়স্ক আট ও শিশু তিনজন।

বিএসএমএমইউ’র ভাইরোলোজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সি বলেন, বিএসএমএমইউতে গত জানুয়ারি থেকে ২৫ জুলাই পর্যন্ত করা জরিপে ৬ হাজারেরও বেশি মানুষের ডেঙ্গু টেস্ট করা হয়েছে। তাতে ২৬ শতাংশ মানুষের NS1 পজিটিভ এসেছে, ৬ শতাংশের IgM পজিটিভ এসেছে।

এছাড়া IgM এবং IgE দুটোই পজিটিভ এসেছে  ৫ শতাংশ মানুষের। তবে যাদের বয়স ১৬ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে তারাই বেশি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন বলে জানান তিনি।

অধ্যাপক ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সি বলেন, নারীদের চেয়ে পুরুষরাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছে ডেঙ্গু জ্বরে। একইসঙ্গে চারটি সেরোটাইপেই মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত