ডা. আব্দুন নূর তূষার

ডা. আব্দুন নূর তূষার

মিডিয়া ব্যক্তিত্ব

সাবেক শিক্ষার্থী, ঢাকা মেডিকেল কলেজ

 


৩০ জুলাই, ২০১৯ ১১:১৬ এএম

হারপিক ব্লিচিং ঢালার পরামর্শ ও চরম নির্বুদ্ধিতা

হারপিক ব্লিচিং ঢালার পরামর্শ ও চরম নির্বুদ্ধিতা

হারপিক ঢালার পরামর্শ একটা চরম নির্বুদ্ধিতা। এডিস মশা বদ্ধ স্রোতহীন বা নড়াচড়াহীন স্বচ্ছ পানিতে জন্মায়। বেসিনে হারপিক বা ব্লিচ দিলে সেটা পাইপের ও বেসিনের, দুটোরই ক্ষতি করবে।

যে পানি বেসিন থেকে ড্রেনে যাবে সেটা বদ্ধ পানি না। সেখানে মশার ডিম নাই। মশার ডিম আছে ফুলদানি, এসির নীচে জমে থাকা পানি, পুরোনো কৌটা, টায়ার, ডাবের খোলা, ফেলে রাখা বালতি, হাড়ি, ছোট গর্ত যেমন বাগান বা কন্সট্রাকশন এর সময় ইট ডোবানোর চৌবাচ্চা, রাস্তার পটহোল এসব জায়গায়। এসব পরিস্কার করলে, এডিস কমবে।

ছাদ-বাগান পরিস্কার করুন। বারান্দার গাছপালার তলে পানি যাতে না জমে সেটার ব্যবস্থা করুন। মশারি, মশা প্রতিরোধক ক্রীম, এসব দরকারী। দরকার হাত পা আবৃত রাখা। বাসার জানালায় নেট লাগানো।

হারপিক ঢেলে, ব্লিচিং ঢেলে কাজ হবে না বরং পরিবেশ দূষন হবে। হারপিকের এসিড আর ব্লিচ এর হাইপোক্লোরাইট তৈরী করবে বিষাক্ত ক্লোরিন। যেসব জলজ প্রানী মশার ডিম খেতো সেগুলো মরবে। এবার কিউলেক্স অ্যানোফিলিসও বাড়বে।

ব্লিচিং দিলে পড়ে থাকা জমে থাকা পানিতে দেন। বেসিনে বা কমোডে ঢেলে বোকামি করার কোন মানে হয় না।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত