২৯ জুলাই, ২০১৯ ০৭:০২ পিএম

এক দিনে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৬ ডেঙ্গু রোগী ভর্তি

এক দিনে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৬ ডেঙ্গু রোগী ভর্তি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: রাজধানীসহ সারাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। যা এখন শহর থেকে ছড়িয়েছে গ্রাম পর্যন্ত। সারাদেশে একমাত্র আতঙ্কের বিষয়ে পরিণত হয়েছে ডেঙ্গু। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে চলতি বছরের সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৬ জন রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে।

সোমবার (২৯ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন্স সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এমন তথ্য জানিয়েছে।

কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকাসহ সারা দেশের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চলতি বছরের সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছে। অর্থাৎ প্রতি ঘন্টায় হাসপাতালে প্রায় ৪৬ জন করে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছে। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৮২৪ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ১২৫ জন, মিডফোর্ড হাসপাতালে ১১৩ জন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৪৮ জন, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ৩৪ জন, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ৪১ জন, বারডেমে ২৩ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ৩৭ জন, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে ২১ জন, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৬০ জন, বিজিবি হাসপাতালে ১০ জন এবং কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৭৯ জন রোগী ভর্তি হয়েছে।

এদিকে বেসরকারি হাসপাতালে গত ২৪ ঘন্টায় ভর্তি হয়েছে ২৬৫ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী। এছাড়া ঢাকা শহরের বাইরে ঢাকা বিভাগে ৩৯ জন, চট্টগ্রামে ১০১ জন, খুলনায় ১৭ জন, রংপুর ১৯ জন, রাজশাহীতে ৪২ জন, বরিশালে ৬ জন এবং সিলেটে ১৬ জন রোগী ভর্তি হয়েছে।

তথ্য অনুযায়ী, এ বছরের শুরু থেকে শুধু ঢাকাতেই আক্রান্ত হয়েছে ১২ হাজার ৩৫৪ জন। আর বেসরকারি হাসপাতালে ৫ হাজার ৬১৮ জন এবং ঢাকার বাইরে ১ হাজার ২৮৩ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে।এর মধ্যে সোমবার (২৯ জুলাই) পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। যদিও সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মৃত্যুর সংখ্যা সরকারি এই হিসেবের চেয়ে অনেক বেশি

কন্ট্রোল রুমের হিসাব অনুযায়ী, ডেঙ্গু রোগে গত জানুয়ারিতে ৩৭ জন, ফেব্রুয়ারিতে ১৯ জন, মার্চে ১৭ জন, এপ্রিলে ৫৮ জনের মধ্যে মারা গিয়েছিল ২ জন, মে মাসে ১৯৩ জন, জুনে ১ হাজার ৮৬৩ জনের মধ্যে মারা গিয়েছিল ২ জন এবং চলতি মাসের এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৪৫০ জন। এছাড়া চলতি মাসে মারা গেছে ৪ জন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত