২৬ জুলাই, ২০১৯ ০৭:৩৫ পিএম

হেপাটাইটিস ‘বি’ নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশের সফলতা

হেপাটাইটিস ‘বি’ নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশের সফলতা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে হেপাটাইটিস বি সংক্রমণের হার শতকরা এক ভাগের কম হলে সেই দেশকে হেপাটাইটিস বি নিয়ন্ত্রিত বলে ঘোষণা দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিওএইচও)। সে হিসাবে বাংলাদেশ এক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করেছে।

শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নয়াদিল্লি কার্যালয় থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, হেপাটাইটিস বি নিয়ন্ত্রণে ডব্লিওএইচওর নির্ধারিত টার্গেট অর্জন করেছে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার তিনটি দেশ। বাকি তিন দেশ হলো- ভুটান, নেপাল ও থাইল্যান্ড।

দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া আঞ্চলিক দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল ও থাইল্যান্ড প্রথম দেশ হিসেবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এ টার্গেট অর্জন করলো।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ড. পুনম ক্ষেত্রপাল বলেন, প্রতিটি শিশুকে জীবন রক্ষাকারী হেপাটাইটিস বি ভ্যাকসিন প্রদানের মাধ্যমে এসব দেশ সাফল্য অর্জন করেছে। এ সাফল্যের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়, এসব দেশের সরকার তাদের জনগণের স্বাস্থ্যসেবার জন্য বদ্ধপরিকর এবং এ সফলতা অর্জনের জন্য তারা নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের হেপাটাইটিস বি নিয়ন্ত্রণের বিশেষজ্ঞরা বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল ও থাইল্যান্ডের টিকাদান কর্মসূচি পর্যালোচনা করে দেখেছেন। এসব দেশে টিকা প্রদানের হার শতকরা ৯০ ভাগ। এ ছাড়া গত কয়েক বছর যাবত শিশুদের হেপাটাইটিস বি টিকা দেয়া হচ্ছে।

এক জরিপে তারা দেখতে পেয়েছেন, এসব দেশে ৫ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে হেপাটাইটিস বি সংক্রমণের হার শতকরা এক ভাগের চাইতেও কম। এ অঞ্চলের দেশগুলোয় শিশুর জন্মের এক বছরের মধ্যে সম্প্রসারিত জাতীয় কর্মসূচির মাধ্যমে হেপাটাইটিস বি টিকা প্রদান করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের মধ্যে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার ১১টি দেশে হেপাটাইটিস বি মুক্ত করার টার্গেট নিয়ে টিকাদান কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি