ঢাকা      মঙ্গলবার ২০, অগাস্ট ২০১৯ - ৫, ভাদ্র, ১৪২৬ - হিজরী



মো: গোলাম মোস্তফা

চিকিৎসক ও লেখক


ডেঙ্গুজ্বর আতঙ্ক: কারণ ও করণীয়

ইদানিং দেশের ভয়াবহ মৃত্যুর আতঙ্কের অপর নাম ডেঙ্গু জ্বর। এ জ্বরে মানুষ মারা যাচ্ছে মূলত “এক্সপান্ড ডেঙ্গু সিন্ডম” (Expend Dengue Syndrome) স্টেজ থেকে। আর জ্বরের স্টেজ এক্সপান্ড ডেঙ্গু সিন্ডমে গেলে অনেক সময় চিকিৎসকদের কিছুই করার থাকে না। এই স্টেজে এসে প্লাজমা ফ্লুয়িড লিকেজ হতে থাকে, ফলে এক্সটারনাল ও ইন্টারনাল দুইদিকেই ব্লেডিং হতে পারে।

সেক্ষেত্রে রোগীদের প্রস্রাবের ও পায়খানার সাথে রক্ত যেতে পারে। সাথে পেট ডোলের মত ফুলে যেতে পারে, মানে Ascites লিভার প্রদাহ দেখা যেতে পারে। যেমন- 

১. Hepatomegaly সাথে GPT, SGOT অনেক বেড়ে যেতে পারে।

২. Spleen এর সাইড বড় হতে পারে।

৩. Lung এ ফুসফুসের Pleural Cavity তে পানি দেখা যেতে পারে।

৪. এন্টিবডি আইজিজিওএম পজিটিভ থাকতে পারে।

৫. সাথে Platelets লেভেলের ধস নামতে পারে।

৬. তাছাড়াও সাবকজিক্টভাল ব্লেডিং দেখা যেতে পারে।

৭. নাক দিয়ে রক্ত পড়া দেখা যেতে পারে।

আর এসবের ফলে রোগী দ্রুতই Shock বা Coma তে চলে যায়।

এডিস মশা যখন মানুষের শরীরে কামড় দেয়, তখন মশা মুখের লাভা থেকে মানব দেহের সার্কোলোশন এ ইনফেকশন প্রবেশ করে ডেঙ্গু জ্বরের সৃষ্টি হয়।
এজেন্ট Flavivirdae family, RNA স্টান্ড ভাইরাস টাইপ DENV1-4. সাধারণত, ইনকিউবেটেশন সময় ৫ থেকে ৬ দিন। আবার ৩-১৫ দিন ও থাকতে পারে। এখন প্রশ্ন হলো, কিভাবে বুঝব ডেঙ্গুজ্বর?

ডেঙ্গুজ্বর চেনার উপায়-

১. হঠাৎ করে দেহের তাপমাত্রা অত্যাধিক বেড়ে যেতে পারে ১০১-১০৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস হতে পারে।

২. শরীরে রাস মানে, লাল লাল ফুসকুড়ি দেখা যেতে পারে।

৩. মাথা ব্যাথা।

৪. জয়েন্টর সাথে মাংশপেশীর ব্যাথা দেখা যায়। আবার অনেক সময় শরীরের জয়েন্ট ফুলে যেতে পারে।

৫. হঠাৎ করে রক্তপাত হতে পারে। যেমন, নাক দিয়ে রক্ত পড়তে পারে।

৬. চোখে লাল হতে পারে।

৭. ব্লাড প্রেসার কমে যেতে পারে।

৮. বমি বা বমিভাব দেখা যেতে পারে।

ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হলে এসব সমস্যা ছাড়াও আরও অন্যান্য সমস্যা দেখা দিতে পারে। এখন প্রশ্ন হলো, ডেঙ্গু জ্বর কেন মারাত্মক? বা কেন রক্তক্ষরণ হয়? আমরা জানি, মানব দেহ তিন প্রকার রক্তকনিকা দিয়ে ব্লাড গঠিত। শ্বেত রক্তকণিকা, লোহিত কনিকা, অনুচিক্রা বা প্লেটেলেট।

ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হলে, মানব দেহের অনুচিক্রা বা প্লেটেলেট কনিকা ব্যাপক আকারে হ্রাস পায়। আর অনুচিক্রার মেইন কাজ মানব দেহের ব্লেডিং ফেক্টরকে নিয়ন্ত্রণ করা। সহজ কথা, রক্ত জমাট বাঁধার কাজে সহযোগীতা।

মনে করুন, কোন ব্যাক্তি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হলো, তার দেহের প্লেটলেট রক্ত কনিকা অনেক কমে গেল, সেক্ষেত্রে রক্ত কনিকা খুব বেশি তরল হয়ে যায়। যখন রক্তকণিকা তরল হয়ে যাবে, সেক্ষেত্র রক্তপাত সহজে হয়ে যায়। সেটা ইন্টারনাল কিংবা এক্সটারনাল দুই ধরনের হেমোরেজিক ঘটতে পারে।

একজন বয়স্ক মানুষের দেহে প্রায় ৫ লিটার রক্ত থাকে। দেহের বিলিয়ন বিলিয়ন কোষের প্রত্যকের রক্ত সাপ্লাই প্রয়োজন হয়। যখন দেহে রক্তঘাটতি দেখা দেয়, তখন দেহের অর্গান গুলোর ব্লাড সাপ্লাই কমে যায়। যখন ব্লাড সাপ্লাই অনেক বেশি কমে যাবে তখন সাথে অক্সিজেন সাপ্লাই বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে টিসু ক্রোসিস মানে ডেথ হবে। অর্থাৎ কোষের মৃত্যু।

দেহের ভাইটাল অর্গান কিডনি, লিভার, হার্ট, ব্রেইন দ্রুত সাটডাউন হয়ে থাকে, এক্ষেত্রে মরণ ঘ্রাস করে।

ডেঙ্গুজ্বরে প্যারাসিটামল ছাড়া অন্য কোন প্রকার ব্যাথার ওষুধ দেওয়া যাবে না। কেন? কারণ হলো, নন-স্টেরয়েড এন্টিইনফ্লামেটরি ড্রাগস, ব্লেডিং ফেক্টরকে রিস্ক করে। NSAIDs প্লেটেলেট agrregation করে PGI2 কে কমিয়ে দেয়। ফলে ব্লেডিং বা রক্তপাত আরো বেড়ে যেতে পারে।

যেহেতু ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে প্লেটেলেটের মাত্রা কমে যায়, সেক্ষেত্রে যদি ব্যাথানাশক প্রয়োগ করা হয়, তাহলে আরো বেশি রক্তপাত বা রক্তক্ষরণ হবে। এতে রোগীর মৃত্যু আরো বেশি নিকটে আসবে। তাই ব্যাথানাশক ওষুধ পরিহার করতে হবে। এই সময়ে এসপিরিন, স্টোরেয়েড এভায়েড করতে হবে।

হঠাৎ ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হলে-

১. দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দিতে হবে।

২. বেশি করে তরল খাবার, ডাবের পানি, আখের রস খেতে দিতে হবে।

৩. প্রতিদিন রক্তের প্লেটেলেট লেভেল পরিমাপ ও প্লাজমা লিকেজের পরিমাণ চেক করতে হবে।

৪. রোগীকে আইসিইউতেও ট্রান্সপার করা লাগতে পারে।

সতর্কতা-

১. বাসার আশেপাশের ময়লা, আর্বজনা, ডোবানালা সব কিছু পরিস্কার রাখুন, মশার বংশ বিস্তার ধবংস করুন।

২. মশার কয়েল ব্যবহার করুন অথবা, মশারি টানিয়ে ঘুমাবেন।

৩. হোস্টেলে যারা থাকেন তারা মশা নিরোধকারী ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

সময় এখন বর্ষাকাল, ডেঙ্গু করে দিতে পারে পঙ্গু। তাই সতর্ক থাকুন। সুস্থ থাকুন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ঈদে ভোজন-পূর্ব যে বিষয়গুলোতে দৃষ্টি রাখবেন

ঈদে ভোজন-পূর্ব যে বিষয়গুলোতে দৃষ্টি রাখবেন

শুরুতেই ঈদ মোবারক। কোরবানী ঈদের সবচেয়ে আনন্দদায়ক, আকর্ষনীয় শেষ পর্ব- মাংস কাটা,…

ব্যথাবিলাস ও আমাদের ব্যথাসহনীয়া ট্যাবু

ব্যথাবিলাস ও আমাদের ব্যথাসহনীয়া ট্যাবু

ব্যথা নিয়ে আমার নিজের মাথাব্যথা কম। আমার নিজের পেইন থ্রেসল্ড খুবই বেশী।…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর