১৫ জুলাই, ২০১৯ ১০:২৪ এএম

ডাক্তারি সনদ ছাড়াই মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ!

ডাক্তারি সনদ ছাড়াই মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ!

মেডিভয়েস রিপোর্ট: লক্ষ্মীপুরে এমবিবিএস সনদ ছাড়াই নিজেকে ডাক্তার এবং মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে এমএ নাঈম (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে র‌্যাব-১১। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তার এক মাসের কারাদণ্ড দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত এমএ নাঈম সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের আটিয়াতলী গ্রামের রসুল আমিনের ছেলে।

রোববার (১৪ জুলাই) সন্ধ্যায় উপজেলার জকসিন পূর্ব বাজারের মেসার্স কাজী ফার্মাতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মো. খবিরুল আহসান বলেন, এমএ নাঈম দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ডাক্তার পরিচয় ব্যবহার করে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছেন। তিনি এমবিবিএস কিংবা বিডিএস চিকিৎসক না হওয়া সত্ত্বেও ভিজিটিং কার্ডে অতিরিক্ত পদ-পদবি ও ভুয়া নিবন্ধন ব্যবহার করে কার্যত্রম চালাচ্ছেন। এর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন-২০১০-এর ২৮ ও ২৯-এর (১) ধারায় নাঈমকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

অভিযান প্রসঙ্গে র‍্যাব-১১ অধিনায়ক নরেশ চাকমা জানান, চিকিৎসক না হয়েও মা ও শিশু বিশেষজ্ঞ পরিচয় দিয়ে এম. এ. নাঈম ব্যবস্থাপত্রে যে ঔষধ পত্র লেখেন তা না জেনেই লেখেন। এছাড়া তিনি চিকিৎসা পেশার অভিজ্ঞতা সম্পর্কিত কোনো কাগজপত্রও দেখাতে পারেন নি। এমনকি তিনি এমবিবিএস নন। এ জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের রায় প্রদান করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

অভিযানে র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক নরেশ চাকমা, জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফুর রহমান ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রাজিব হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত