ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১৯ মিনিট আগে
১২ জুলাই, ২০১৯ ২১:২৪

ফ্রান্সে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধ হচ্ছে

ফ্রান্সে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধ হচ্ছে

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ২০২১ সাল থেকে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স। সম্প্রতি হোমিওপ্যাথিক ওষুধ নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে গবেষণার পর একটি স্বাস্থ্য প্যানেলের সুপারিশের ভিত্তিতে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। গবেষণায় বলা হয়েছে, বিকল্প এ ওষুধের কোনো উপকারিতার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। 

গত ১০ জুলাই দ্য গার্ডিয়ানে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ খবর দেওয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ফরাসি হোমিওপ্যাথিক বড়ি ও টিংকচার প্রস্তুতকারক কোম্পানি বোঁয়াহো ও এর প্রতিদ্বন্দ্বীদের অর্থায়ন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স সরকার। 

ফরাসি স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যাগনেস বুঁজে বলেন, চলতি বছরের জুনে জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ হোমিওপ্যাথিক ওষুধ নিয়ে মারাত্মক রায় প্রকাশ করেছে। রায়ে হোমিওপ্যাথির বিরুদ্ধে নিজেদের কঠোর অবস্থানের কথা জানান চিকিৎসকরা। তারা বলেন, এ বিকল্প ওষুধের উপকারিতার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এরপর তিনি অর্থায়ন বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

চিকিৎসক বুঁজে জানিয়েছেন, ফ্রান্সের সামাজিক নিরাপত্তা তহবিল থেকে বর্তমানে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার জন্য ৩০ শতাংশ বরাদ্দ রয়েছে। ২০২০ সাল নাগাদ এ বরাদ্দের পরিমাণ কমিয়ে ১৫ শতাংশ এবং ২০২১ সাল নাগাদ শূন্যে নামিয়ে আনা হবে।

প্যারিসের সংবাদ মাধ্যমকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “হোমিওপ্যাথিকে সম্পূর্ণরূপে অর্থায়ন বন্ধের বিষয়ে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

ফ্রান্সের জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জুনের শেষের দিকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে যে, হোমিওপ্যাথি ওষুধে যথেষ্ট কার্যকারিতার বিষয়টি বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত নয়। 

দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, হোমিও চিকিৎসা বন্ধে ফ্রান্স সম্পূর্ণরূপে জার্মানির পথে হাঁটছে, যেখানে প্রায় সাত হাজার হোমিওপ্যাথিক নিবন্ধিত চিকিৎসক আছেন।

অন্যদিকে ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ ২০১৭ সালে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়। এছাড়া সুইডেন, বেলজিয়াম ও অস্ট্রেলিয়াসহ অন্যান্য ইউরোপীয় ইয়নিয়নের দেশগুলোও তাদের জনস্বাস্থ্যে এ চিকিৎসা পদ্ধতি সমর্থন করে না। 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত