ঢাকা      মঙ্গলবার ১৬, জুলাই ২০১৯ - ১, শ্রাবণ, ১৪২৬ - হিজরী

বাজেট নিয়ে বিশেষজ্ঞ ভাবনা 

‘দুর্বল পরিকল্পনার কারণে স্বাস্থ্যে সর্বনিম্ন বরাদ্দ’ 

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ২৫ হাজার ৭৩২ কোটি টাকা। নতুন বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন, প্রতিরক্ষা, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ এবং কৃষির চেয়ে কম বরাদ্দ পেয়েছে এ খাত। এছাড়া টাকার অংকে নতুন বাজেটে বরাদ্দ বাড়লেও ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের তুলনায়ও স্বাস্থ্যখাতের অংশ কমেছে। পরিকল্পনায় দুর্বলতার কারণেই স্বাস্থ্যখাত সর্বনিম্ন বরাদ্দ পেয়েছে মন্তব্য করে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্বাস্থ্যসেবায় এর প্রভাব পড়বে। 

তারা জানান, স্বাস্থ্য খাতে বিশ্বে সবচেয়ে কম ব্যয় করে বাংলাদেশ। মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) অনুপাতে এ খাতে বাংলাদেশের ব্যয় এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে সর্বনিম্ন। এমনকি প্রতিবেশী ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ ও আফগানিস্তানের ব্যয়ও বাংলাদেশের চেয়ে বেশি। 

নতুন নতুন সমস্যার কথা মাথায় রেখে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ ব্যাপক হারে বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে তারা বলেছেন, ক্যানসারসহ নানা রোগ ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ছে। সর্বনিম্ন বাজেট দিয়ে এর মোকাবেলা দুরূহ হবে। এছাড়া এ খাতে উন্নয়ন ঘটাতে না পারলে রোগীদের বিদেশমুখিতাও কমানো যাবে না। 

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. শুভাগত চৌধুরী মেডিভয়েসকে বলেছেন, “বাংলাশে থেকে অনুন্নত অনেক দেশও মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) অনুপাতে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বেশি। সুদানের মতো দেশে বরাদ্দ ভালো। বাংলাদেশে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ কম হওয়ার যুক্তি খুঁজে পাচ্ছি না। এমন হতে পারে, স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে কী কী করা উচিত—সে ধরনের পরিকল্পনায় দুর্বলতা আছে। স্বাস্থ্য খাতের সংশ্লিষ্টরা বোধ হয় সরকারের কাছে বিষয়টি ভালোভাবে উপস্থাপন করতে পারেননি।”

তিনি আরও বলেন, “আমার কাছে মনে হয়েছে, প্রকৃত স্বাস্থ্য ব্যবস্থার দিকে নজর কম। এমন কিছু পরিসংখ্যান আছে—স্বাস্থ্য সেবার অর্থ মেটাতে গিয়ে এদেশের অনেক মানুষ দরিদ্র হয়ে যাচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সর্বশেষ কনসেপ্ট হচ্ছে—সবার জন্য গুণগতমানের স্বাস্থ্য সেবা। এ সেবাকে মানুষের কাছে সহজলভ্য করা সরকারের দায়িত্ব।” 

স্বাস্থ্যে বরাদ্দ কম হওয়ায় সেবার মানে এর প্রভাব পড়বে কি-না, জানতে চাইলে ইনফার্টিলিটি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. রাশিদা বেগম মেডিভয়েসকে বলেন, “আধুনিক চিকিৎসার জন্য যেসব লজিস্টিকস দরকার সেগুলো দেওয়া হচ্ছে না। অনেক সরকরি হাসপাতাল, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি নাই। কোথাও যন্ত্রপাতি আছে, ব্যবহার করার মতো দক্ষ জনবল নেই। চিকিৎসকদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য তেমন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নাই। এখানে যদি পর্যাপ্ত বাজেট না থাকে, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি না থাকে, তাহলে তো নিশ্চয় সেবা বিঘ্নিত হবে। এদেশে রোগী অনুপাতে অনেক চিকিৎসক দরকার। হাসপাতালগুলোতে পদের বিপরীতে চিকিৎসক অনেক কম।”

স্বাস্থ্যখাতের বাজেট সর্বনিম্ন হওয়ায় সেবার মান কমে যাচ্ছে। এ অবস্থায় কাঙ্খিত সেবা না পেয়ে রোগীরা অনেক সময় চিকিৎসকদের ওপর ক্ষুব্ধ হন বলে মনে করেন তিনি। অধ্যাপক রাশিদা বেগম বলেন, “আমরা রোগীকে যখন একটি ট্রিটমেন্ট অফার করি। আবার ট্রিটমেন্টের কিছু কমপ্লিকেশন আছে, সেটার জন্য আবার আরেকটি ট্রিটমেন্ট দরকার। তারা মেনে নিতে পারেন না। প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে তার টাকা লাগছে। এক্ষেত্রে রোগীরা চিকিৎসকের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে যাচ্ছেন।” 

সব খাতের চেয়ে স্বাস্থ্যবাজেট কম হওয়ার ভয়াবহতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “যে কয়টা মৌলিক চাহিদা আছে—বাসস্থানের জন্য, কাপড়ের জন্য মানুষ মরে যাচ্ছে না। কিন্তু চিকিৎসা এমন একটি জিনিস, এখানে ধনী-গরিব নাই সবার দারকার। কারও রক্তের দরকার হলে পানি দিলে চলবে না। অ্যান্টিবায়োটিক পথের ভিখারীর জন্য যা লাগবে, দেশের সর্বোচ্চ ব্যক্তিরও তাই। সুতরাং স্বাস্থ্যে বাজেট কম হলে মানুষ বাঁচবে কিভাবে।” 

বাজেটের আকারের সঙ্গে মিল রেখে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে না—বিষয়টি কিভাবে দেখছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের মনোরোগবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ডা. তাজুল ইসলাম মেডিভয়েসকে বলেন, “স্বাস্থ্যখাতের মানোন্নয়ন করা, এ খাতকে আরও সম্প্রসারিত করা, জনগণের সেবা বাড়ানো, স্বাস্থ্যখাতের অনিয়ম-দুর্নীতি দূর করা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সব মানুষের ধারণা বাংলাদেশের চিকিৎসকরা এতোই খারাপ, এখানে কোনো চিকিৎসাই হয় না, খুবই খারাপ অবস্থা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবা দক্ষিণ এশিয়ায় অনেক দেশের চেয়ে ভালো। শ্রীলঙ্কার পরেই আমাদের অবস্থান। এটি সম্ভব হয়েছে স্বাস্থ্যখাতে সংশ্লিষ্টদের অবদানের কারণে।”

তবে ব্যাপক সংখ্যক রোগীর অনুপাতে এদেশের স্বাস্থ্যখাতের অবস্থা সূচনীয় বলেই মনে করেন তিনি। অধ্যাপক ডা. তাজুল ইসলাম বলেন, “এজন্য বাজেট বৃদ্ধি করতে হবে। তা নাহলে এত বিশাল জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে না। সেই সঙ্গে চিকিৎসক-নার্সসহ লোকবল বাড়াতে হবে। এজন্য প্রস্তাবিত বাজেট অপ্রতুল।”

তিনি বলেন, “কর্মস্থলে পরীক্ষ-নিরীক্ষা ও ওষুধ সরবরাহ কমই হয়। এজন্য রোগীরা মনে করেন ডাক্তার দিচ্ছেন না। পরীক্ষার জন্য বাইরে পাঠাচ্ছেন অথচ ওষুধ দিচ্ছেন না। কিন্তু এগুলো তো ডাক্তারের হাতে না। এমন একটা ব্যবস্থাপান থাকা দরকার, যেন প্রতিটি সরকারি হাসপাতালে প্রচুর পরিমাণে মানসম্মত পরীক্ষা করা যায়। যাতে রোগীদের বাইরে পাঠাতে না হয়। প্রত্যেকে যেন যথেষ্ট পরিমাণে প্রয়োজনীয় ওুষধ পান। এক্ষেত্রে যেন কোনো দুর্নীতি না হয়। এজন্য খুব বেশি অর্থ ব্যয় হবে তা না।  সেটা নিশ্চিত করতে বাজেটে যথেষ্ট পরিমাণে অর্থ বরাদ্দ রাখা দরকার। তাহলে জনগণ যেমন উপকৃত হবে এবং ডাক্তারের বদমানটাও কমে আসবে।”

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আরও পাঁচ চিকিৎসকের অধ্যাপক পদে পদোন্নতি 

আরও পাঁচ চিকিৎসকের অধ্যাপক পদে পদোন্নতি 

মেডিভয়েস রিপোর্ট: অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন আরও পাঁচজন চিকিৎসক। গত চার জুলাই…

ডাক্তারি সনদ ছাড়াই মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ!

ডাক্তারি সনদ ছাড়াই মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ!

মেডিভয়েস রিপোর্ট: লক্ষ্মীপুরে এমবিবিএস সনদ ছাড়াই নিজেকে ডাক্তার এবং মা ও শিশুরোগ…

টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নিহত

টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নিহত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: টাঙ্গাইলে সখীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আলাউদ্দিন আল…

জন্মনিয়ন্ত্রণ সামগ্রী ব্যবহারে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে: রাষ্ট্রপতি

জন্মনিয়ন্ত্রণ সামগ্রী ব্যবহারে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে: রাষ্ট্রপতি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, পরিসংখ্যান অনুযায়ী ১৯৯৪ সালে বিশ্বের…

অধ্যাপক ডা. পারভেজ ইফতেখার আহমেদ আর নেই

অধ্যাপক ডা. পারভেজ ইফতেখার আহমেদ আর নেই

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ঢাকা মেডিকেল কলেজের নেফ্রোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. পারভেজ ইফতেখার…

সারাদেশে আরও বিশেষায়িত ও উন্নত হাসপাতাল হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সারাদেশে আরও বিশেষায়িত ও উন্নত হাসপাতাল হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বাংলাদেশে সরকারি…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর