১৭ জুন, ২০১৯ ০৯:২৭ এএম

বিএসএমএমইউতে ৩৫৩ শ্রবণ প্রতিবন্ধীর কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট সম্পন্ন

বিএসএমএমইউতে ৩৫৩ শ্রবণ প্রতিবন্ধীর কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট সম্পন্ন

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ২০১০ সাল থেকে শুরু হওয়া কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট কর্মসূচীর আওতায় এ পর্যন্ত ৩৫৩ জন শ্রবণ প্রতিবন্ধীর কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট সম্পন্ন হয়েছে এবং শীঘ্রই আরো ৬ জন শ্রবণ প্রতিবন্ধীর কক্লিয়ার ইমপ্ল্যান্ট করা হবে। এছাড়াও ১১৭ শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশুর মাঝে অত্যন্ত ব্যয়বহুল চিকিৎসা “কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট”-এর বরাদ্দপত্র নামমাত্র মূল্যে বিতরণ করা হয়। এসকল শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের অধিকাংশই শিশু।

রবিবার (১৬ জুন) সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এ-ব্লকের অডিটোরিয়ামে প্রতিষ্ঠানের কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট কার্যক্রমের আওতায় ‘কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট’র বরাদ্দপত্র বিতরণকালে সংশ্লিষ্টরা এ তথ্য জানান।

জানা যায়, এর আগে বিনামূল্যে ও নামমাত্র মূল্যে ৩২৪ শ্রবণ প্রতিবন্ধীর মাঝে কক্লিয়ার ইমপ্ল্যান্ট ডিভাইস বা যন্ত্র বিতরণ করা হয়েছিল। সবমিলিয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রদত্ত কক্লিয়ার ইমপ্ল্যান্ট ডিভাইস গ্রহীতার সুবিধাভোগীদের সংখ্যা ৪৪১ জনে উন্নীত হলো। 

বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব জুয়েনা আজিজ। সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান।

এছাড়াও স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট কার্যক্রমের কর্মসূচী পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোঃ আবুল হাসনাত জোয়াদার। কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট গ্রহীতাদের বরাদ্দপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এবিএম আব্দুল হান্নান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নাক কান গলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. বেলায়েত হোসেন সিদ্দিকী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব জুয়েনা আজিজ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সদিচ্ছাতেই সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মহতী কার্যক্রমগুলো সম্পন্ন হচ্ছে। কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট কর্মসূচীর সফল বাস্তবায়নও বর্তমান সরকারের অবদান। এই কর্মসূচীর কারণে শিশুসহ শ্রবণ প্রতিবন্ধীরা উপকৃত হচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, শেখ হাসিনার নিরলস প্রচেষ্টাতেই দেশের এত উন্নয়ন ও এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশুদের ১০ লাখ টাকার কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট ডিভাইস বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে। ডিভাইস এর সাথে সাথে এ সংক্রান্ত চিকিৎসাসেবাও বিনামূল্যে প্রদান করা হচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবাসহ সকল দিক থেকে বাংলাদেশ এগিয়েছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত