১৫ জুন, ২০১৯ ০২:১০ পিএম

চট্টগ্রামে চালু হলো আন্তর্জাতিক মানের “ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল”

চট্টগ্রামে চালু হলো আন্তর্জাতিক মানের “ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল”

মেডিভয়েস রিপোর্ট: চট্টগ্রাম নগরীতে এই প্রথম আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ৩৭৫ শয্যা বিশিষ্ট আধুনিক এবং বহুমুখী বিশেষায়িত ‘ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল লিমিটেড’ চালু করা হয়েছে। পাহাড়তলী চক্ষু হাসপাতালের পাশে সাত একর জমির ওপর প্রায় সাড়ে ৮শ’ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত এ হাসপাতালটি। লক্ষ্য হলো দেশেই বিশ্বমানের চিকিৎসা সেবা প্রদান করে রোগীদের বিদেশমুখিতা বন্ধ করা।

শনিবার (১৫ জুন) সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে হাসপাতালটির উদ্বোধন করেছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিমান হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ও ভারতের নারায়ণা হেলথের চেয়ারম্যান ডা. দেবী প্রসাদ শেঠী।

জানা গেছে, বিশ্বমানের আধুনিক চিকিৎসা সুবিধার সমন্বয়ে সমৃদ্ধ এ হাসপাতালে নার্সেস এবং টেকনিশিয়ান প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও যাবতীয় অনুষাঙ্গিক সেবা সম্বলিত ৫টি ভবন নিয়ে মোট ৬৬০,০০০ বর্গফুট জায়গা এই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি বিখ্যাত স্থাপত্য সংস্থা এই হাসপাতালের মূল নকশা প্রণয়ন করেন এবং ইউরোপিয়ান কনস্যারটেন্ট গ্রুপ নকশানুযায়ী কাজ বাস্তবায়নে কাজ করেন।

হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় কিছু বিষয়কে বেশি প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। এগুলো হচ্ছে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ, রোগী ও কর্মীদের নিরাপত্তা, উন্নতমানের সার্বক্ষণিক ইমার্জেন্সি সেবা এবং কার্ডিয়াক, ট্রান্সপ্ল্যান্ট, নিউরো, অর্থপেডিক ও গাইনি অবস ইত্যাদি।

এ হাসপাতালে রয়েছে, ৮৮টি সিঙ্গেল, ৭৬টি ডাবল কেবিন, ১৪টি অস্ত্রোপচার কক্ষ, ১৬টি নার্স স্টেশন, ৬৪টি ক্রিটিক্যাল কেয়ার বেড, ৬২টি কনসালটিং রুম, নবজাতকদের জন্য ৪৪ ময্যবিশিষ্ট নিওনেটাল ইউনিট, ৮টি পেডিয়াট্রিক আই সি ইউ, রোগীর স্বজনদের থাকার জন্য ৪০টি রুম এবং ২৭১ জন থাকার ডরমেটরিও থাকছে।

হাসপাতালটি ভারতের বিখ্রাত নারায়ণা হেলথ এবং ইমপেরিয়াল যৌথভাবে কার্ডিয়াক সেন্টার পরিচালনা করবে এবং ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে গুরুতর রোগীদের দ্রুত ও নিরাপদ স্থানান্তরের জন্য আধুনিক লাইফ সাপোর্ট চিকিৎসা সংবলিত অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা থাকছে। সেইসঙ্গে দূরবর্তী বা সংকটাপন্ন এলাকা থেকে রোগীদের আনার জন্য হেলিপ্যাড সেবাও রয়েছে। একই সঙ্গে দূরবর্তী রোগীদের দর্শনার্থীদের থাকার সুবিধার জন্য হাসপাতাল ক্যাম্পাসেই আবাসন সুযোগও আছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল (আইএইচএল) বোর্ড চেয়ারম্যান ও চিটাগাং আই ইনফারমারি অ্যান্ড ট্রেনিং কমপ্লেক্স (সিইআইটিসি) ম্যানেজিং ট্রাস্টি অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানান।

স্বাগত বক্তব্যে হাসপাতালের কয়েকটি বিশেষ দিক তুলে ধরেন। তিনি বলেন, উন্নত মানের স্বাস্থ্যসেবার অপ্রতুলতায় বহুসংখ্যক রোগী বিদেশে যেতে বাধ্য হচ্ছে। তাদের ও তাদের পরিবারকে আর্থিক শারীরিক এবং মানসিক চাপের মুখে পড়তে হয়। এমন অবস্থা থেকে কিছুটা মুক্তি পেতে উন্নত বিশ্বের আদলে হাসপাতালটির প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। সরকার স্বল্পমূল্যে হাসপাতালের জন্য জায়গা দিয়ে কাজকে আরও সহজতর করে দিয়েছে। এক্ষেত্রে বিশ্ব ব্যাংক ও বাংলাদেশ ব্যাংক সহযোগিতা প্রদান করে এবং কতিপয় বেসরকারি ব্যাংক সহযোগিতা প্রদান করে যার নেতৃত্বে ছিলেন ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক।

তিনি আরও বলেন, এই হাসপাতালের এক ছাদের নিচে সব ধরনের চিকিৎসা সেবা রয়েছে। বিত্তবান, মধ্যবিত্ত অসুস্থ থেকে শুরু করে সব ধরনের রোগীরা চিকিৎসা সেবা পাবে শুধু চিকিৎসাসেবা নয় একজন রোগী ভর্তি থেকে শুরু করে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করা পর্যন্ত হসপিটালিটি বিভাগের মাধ্যমে যাবতীয় সেবা প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া দক্ষ মানবসম্পদ ধরে লোকে চিকিৎসক, নার্স, মেডিকেল টেকনিশিয়ানের জন্য প্রশিক্ষণসহ আবাসিক ব্যবস্থা, অচল রোগীদের জন্য ১০ শতাংশ চিকিৎসা সুবিধা, দূরবর্তী দর্শনার্থীদের থাকার সুবিধাসহ আবাসন সুযোগ রয়েছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত