ঢাকা      বুধবার ২৪, জুলাই ২০১৯ - ৯, শ্রাবণ, ১৪২৬ - হিজরী

এবার ভারত জুড়েই হাসপাতাল ধর্মঘটের ডাক

মেডিভয়েস ডেস্ক: ভারতের পশ্চিমবঙ্গে চিকিৎসকদের উপর হামলা ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আন্দোলনরত চিকিৎসকদের ‘এসমা’ (Essential Service Maintenance Act) জারির হুঁশিয়ারির প্রতিবাদে গণহারে পদত্যাগের পর এবার ভারত জুড়ে হাসপাতাল ধর্মঘটের ডাক দিল চিকিৎসকদের বৃহত্তম সংগঠন ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ)। আগামী ১৭ জুন (সোমবার) সারা দেশের হাসপাতালগুলোতে ধর্মঘট পালন করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

শুক্রবার আইএমএ’র এক সংবাদ সম্মেলনে ধর্মঘট পালনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। তবে এসময় আউটডোর এবং অন্যান্য পরিষেবা বন্ধ থাকলেও জরুরি ও রুটিন পরিষেবা চালু থাকবে বলে জানানো হয়।

সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, চিকিৎসকদের মারধর অনৈতিক। এনআরএসের আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারদের পাশে রয়েছে আইএমএ। আমাদের সংগঠনের অধীনে সাড়ে তিন লক্ষ চিকিৎসক রয়েছেন। তারা প্রত্যেকে পশ্চিমবঙ্গের চিকিৎসকদের পাশে রয়েছেন।

এদিকে, এ ঘটনায় ভারত জুড়ে হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসকদের গণ-পদত্যাগের ঢেউ উঠেছে। নীলরতন সরকার মেডিকেল কলেজের (এনআরএস) পাশাপাশি উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ, আরজি কর মেডিকেল কলেজ, এসএসকেএম, ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের মতো একাধিক হাসপাতালে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন চিকিৎসকরা। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, নয়াদিল্লি, মুম্বাই ও হায়দরাবাদসহ বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসকদের কর্মবিরতির মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গের একটি সরকারি হাসপাতালের ৮০ জন চিকিৎসক পদত্যাগ করেছেন।

বৃহস্পতিবার এনআরএসের প্রিন্সিপাল এবং সুপার পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার ওই মেডিকেল কলেজের আরও প্রায় ১০০ জন চিকিৎসক পদত্যাগ করেছেন।

পদত্যাগের শুরু সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল দিয়ে। তারপর থেকেই রাজ্য জুড়ে সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকদের গণপদত্যাগ চলছে। এ পর্যন্ত সরকারি হাসপাতালের ৩০০ চিকিৎসক পদত্যাগ করেছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন কলকাতা, বর্ধমান, দার্জিলিং এবং উত্তর ২৪ পরগণাসহ কয়েকটি জেলার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের বিভাগীয় প্রধানরা। তারা মেডিকেল শিক্ষা বিভাগের রাজ্য পরিচালক বরাবর ইতোমধ্যে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন।

আন্দোলনরত চিকিৎসকদেরকে কাজে ফিরে যাওয়ার জন্য শুক্রবার দুপুর ২টা পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়া হলেও মুখ্যমন্ত্রীর এই আল্টিমেটাম মেনে নেননি কোনো চিকিৎসকই। উল্টো বরং ধর্মঘট তুলে নেয়ার জন্য ছয়-দফা দাবি জানিয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে মমতার নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা।

চিকিৎসকেরা বলছেন- প্রথমত, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। দ্বিতীয়ত, রাজ্যের হাসপাতালগুলোতে যে পরিস্থিতি চলছে, তা পুরোপুরি প্রশাসনিক ব্যর্থতা। এর দায় রাজ্য সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রী এড়াতে পারেন না। এই দায় তাকেই নিতে হবে। সিনিয়র চিকিৎসকদের অভিযোগ, রাজ্যের প্রত্যেকটি হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং পরিকাঠামোয় দুরবস্থা চলছে। এই অবস্থায় চিকিৎসকদের পাশে না থেকে মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে চিকিৎসকদের হুমকি দিলেন তা তারা মেনে নিতে পারছেন না।

প্রসঙ্গত, টানা পাঁচদিন ধরে জুনিয়র চিকিৎসকদের কর্মবিরতিসহ আন্দোলনের জেরে পশ্চিমবঙ্গে চিকিৎসা ব্যবস্থা কার্যত ভেঙে পড়েছে। গত সপ্তাহে কলকাতার নীলরতন মেডিকেল কলেজের এক জুনিয়র চিকিৎসককে রোগীর স্বজনরা মারধর করে। অভিযোগ, ওই সময় বহিরাগত কিছু দুষ্কৃতিকারী হাসপাতালে হামলা চালায়। এই ঘটনায় পরপরই রাজ্য জুড়ে চিকিৎসকরা নিরাপত্তার দাবিতে আন্দোলনে নামেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

১০০ চিকিৎসকের রুদ্ধশ্বাস অস্ত্রোপচার: আলাদা হলো জমজ মাথা

১০০ চিকিৎসকের রুদ্ধশ্বাস অস্ত্রোপচার: আলাদা হলো জমজ মাথা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: দুই বোনের দেহ দু’দিকে, তবে মাথা জোড়া লাগানো। পৃথীবিতে আসার…

ডিম্বাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধক আবিষ্কার

ডিম্বাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধক আবিষ্কার

মেডিভয়েস ডেস্ক: উচ্চ ক্ষমতার ডিম্বাশয় ক্যান্সার নারীদের জন্য একটি সাধারণ বিষয়। বেশিরভাগ মানুষের…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর