১৪ জুন, ২০১৯ ০২:২৫ পিএম

বিশ্ব রক্তদান দিবস আজ

বিশ্ব রক্তদান দিবস আজ

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বিশ্ব রক্তদান দিবস আজ। মানুষকে রক্তদানে উদ্বুদ্ধ করতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি। 

এ উপলক্ষে রক্তদান ক্যাম্পেইনের আয়োজন করেছে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। রক্তদানে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চালানো হচ্ছে প্রচারণা।  

সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে প্রতি বছর দশ লাখের বেশি রোগীর জন্য ৬০ লাখেরও বেশি মানুষ রক্তদান করে থাকেন। তাদের মধ্যে ৫ শতাংশ রোগী নেগেটিভ ব্লাডগ্রুপের, তারা সঠিক সময়ে রক্ত না পাওয়ার কারণে মারা যান। প্রতিবছর ছয় হাজারেরও বেশি শিশু থ্যালাসেমিয়া রোগ নিয়ে জন্ম নেয়, যাদের থ্যালাসেমিয়া রোগের জন্য প্রতি মাসে রক্তের প্রয়োজন হয়। 

গবেষণায় উঠে এসেছে, বাংলাদেশে জাতীয় চাহিদার ৩২ শতাংশ এখনো পেশাদার রক্তদাতারা পূরণ করছেন। অধিকাংশ ক্ষেত্রে মাদকসেবীরাও রক্ত বিক্রি করে থাকেন। বেশিরভাগ উন্নয়নশীল দেশে রক্তদানের চিত্রও অনেকটা এরকম।  

কাদের জন্য রক্তের প্রয়োজন:
১. দুর্ঘটনাজনিত রক্তক্ষরণ: দুর্ঘটনায় আহত রোগীর জন্য দুর্ঘটনার ধরণ অনুযায়ী রক্তের প্রয়োজন।
২. দগ্ধতা: আগুনে পুড়ে যাওয়া বা এসিডে ঝলসানো রোগীর জন্য প্লাজমা রক্তরস প্রয়োজন। এজন্য ৩-৪ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন।
৩. অ্যানিমিয়া: রক্তে R.B.C এর পরিমাণ কমে গেলে রক্তে পর্যাপ্ত পরিমাণ হিমোগ্লোবিনের অভাবে অ্যানিমিয়া রোগ হয়। হিমোলাইটিক অ্যানিমিয়াতে R.B.C এর ভাঙ্ন ঘটে, ফলে রক্তের প্রয়োজন হয়।
৪. থ্যালাসেমিয়া: এক ধরনের হিমোগ্লোবিনের অভাবজনিত বংশগত রোগ। রোগীকে প্রতিমাসে ১-২ ব্যাগ রক্ত দিতে হয়।
৫. হৃদরোগ: ভয়াবহ Heart Surgery Ges Bypass Surgery এর জন্য ৬-১০ ব্যাগ রক্তের     প্রয়োজন হয়। 
৬. হিমোফিলিয়া: বংশগত রোগ। এতে রক্তক্ষরণ সহজে বন্ধ হয় না, তাই রক্ত জমাট বাঁধার উপাদান সমৃদ্ধ Platelet দেয়া হয়।
৭. প্রসবকালীন রক্তক্ষরণ: সাধারণত প্রয়োজন হয় না, তবে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ অনুসারে রক্ত দেয়া হয়।
৮. ব্লাড ক্যান্সার-রক্তের উপাদানসমূহের অভাবে ক্যান্সার হয়, প্রয়োজন অনুসারে রক্ত দেয়া হয়।
৯. কিডনী ডায়ালাইসিস: প্রতিবার ডায়ালাইসিসে এক ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন।
১০. রক্ত বমি: এ রোগে ১-২ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন।
১১. ডেঙ্গু জ্বর: এ রোগে ৪ ব্যাগ রক্ত হতে ১ ব্যাগ Platelet আলাদা করে রোগীর শরিরে দেয়া হয়।
১২. অস্ত্রোপচার: অস্ত্রোপচারের ধরণ বুঝে রক্তের চাহিদা বিভিন্ন।

কারা রক্ত দিতে পারবেন:
১৮-৫৭ বছর বয়সী মানুষ রক্ত দিতে পারবেন, যাদের ওজন: ১০০ পাউন্ড বা ৪৫ কেজির ঊর্ধ্বে। তবে বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে (অনুচক্রিকা, রক্তরস) ওজন ৫৫ কেজি বা তার উর্ধ্বে। 
যাদের রক্তচাপ স্বাভাবিক, রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ ৭৫% বা তার উর্ধ্বে থাকলে।
সম্প্রতি (৬ মাস) কোনো দুর্ঘটনা বা বড় ধরনের অপারেশন না হলে।
রক্তবাহিত জটিল রোগ, যেমন: ম্যালেরিয়া, সিফিলিস, গনোরিয়া, হেপাটাইটস, এইডস, চর্মরোগ, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, টাইফয়েড এবং বাতজ্বর না থাকলে।
কোনো বিশেষ ধরনের ওষুধ ব্যবহার না করলে, চার মাসের মধ্যে যিনি কোথাও রক্ত দেননি।
মহিলাদের মধ্যে যারা গর্ভবতী নন এবং যাদের মাসিক চলছে না।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত