ডা. কাওসার উদ্দিন

ডা. কাওসার উদ্দিন

সহকারী সার্জন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।


০৩ জুন, ২০১৯ ১১:০১ এএম

এমন সমস্যার জন্য আউটডোরেই আসবেন

এমন সমস্যার জন্য আউটডোরেই আসবেন

অমুক ছুটি, তমুক ছুটি, আজ কিন্তু সরকারী ছুটি! সকাল থেকে এ অবধি রোগীর কিন্তু শেষ নাই। গুনে গুনে ৫০টা রোগী দেখেছি, যার অধিকাংশই বহির্বিভাগের। সাধারণ মানুষ বোঝে না কোন সমস্যাটা বেশি জরুরী, আর কোনটা কম। তাদের কাছে সব সমস্যাই গুরুতর, এবং হাসপাতালে আসার আগে তারা অতশত চিন্তা করে না, ভাবে না আজ কি বার বা ছুটি আছে কিনা।

এখন আপনি যদি নিয়মের কথা বলে এটা তাদের বুঝাতে চান, আপনার সমস্যা জরুরী না, এখন দেখা যাবে না, আউটডোরে যেদিন খোলা সেদিন দেখাবেন, সেটা তারা সহজভাবে নিবে না। অনেকে আসবে ভিআইপি নিয়ে, আতি পাতি নেতা সাংবাদিক তো আছেই।

সেবার জন্য আছি, সমস্যা যাই হোক, যে সময়ই এসে উপস্থিত হোক না কেন, জরুরী বিভাগের ডাক্তারকে চাহিবামাত্র সেবা দিতে হবে। সেই হিসেবে অলিখিতভাবে প্রতিটি ছুটির দিনেই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আউটডোর খোলা! ছুটির দিন, সকালে উঠে ভাবি আজ হয়তো কষ্ট একটু কম হবে, কিন্তু এদিনেই কষ্ট বেশি হয়। কারণ, অন্য দিনে মেডিকেল এসিট্যান্ট ফার্মাসিস্ট অনেকে থাকে ওষুধ লেখার জন্য, কিন্তু এসব দিনে জরুরী বিভাগের একমাত্র ডাক্তার হলেন সবেধন নীলমনি।

তাকে একটা প্যাড নিয়ে বসতে হয় ওষুধ লিখে দিতে, কারণ ছুটির দিনে টিকেট বন্ধ। আবার গলা ফাটিয়ে এটাও বারবার বুঝিয়ে দিতে হয় যে 'আজ ছুটির দিন, ফ্রি ওষুধ নাই', না হলে আবার এসে হাজির হবে 'ওষুধ তো দিলেন না!' এ সমস্যার কোন সমাধান নাই মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধি ছাড়া, তাই চিকিৎসা দিয়ে এতটুকু বলে শুধু শান্তি পাই, 'এরপর থেকে এমন সমস্যার জন্য আউটডোরেই আসবেন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না