ডা. শামীমা জাহান

ডা. শামীমা জাহান

সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান, সার্জারী বিভাগ।
ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ,  ৫৩/১, জনসন রোড, ঢাকা।


১৬ মে, ২০১৯ ০৯:৫৩ এএম

‘এক সময় প্রচুর মেধাবী চিকিৎসক মধ্যপ্রাচ্যে চলে যেত’

‘এক সময় প্রচুর মেধাবী চিকিৎসক মধ্যপ্রাচ্যে চলে যেত’

আপনারা কারণে-অকারণে হাসপাতালে ভাংচুর করেন/করতে চান, ডাক্তারকে গালাগাল করেন, মারেন/মারতে চান। কিন্তু কেন? হাসপাতাল তো ডাক্তারের ব্যাক্তিগত সম্পত্তি নয়, আপনারও নয়। সমস্যা থাকলে অভিযোগ করার জায়গা আছে। আপনারা আইন হাতে তুলে নিচ্ছেন কেন?

গত মাসখানেক ধরে সর্বত্র জুনিয়র (ইন্টার্নসহ) চিকিৎসকদের ওপর দুর্ব্যবহার ও ভাংচুরসহ বাড়াবাড়ি রকমের কিছু কাজ হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে প্রশাসন ব্যার্থ বা অসহায়। কিন্তু এর ফলাফল?

আমরা যদি জুনিয়র চিকিৎসকদের নিরাপত্তা দিতে ব্যার্থ হই, তাহলে মধ্যে হয়তো অনেকেই অবসরে চলে যাবে এবং আমরাও যেতে বাধ্য হবো। এতে করে কার ক্ষতি হবে? প্রথমত ক্ষতি হবে আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার, তারপর নবীন চিকিৎসকদের। তারপর এর ফলাফল কী হবে?

আমি কাউকে কোন অনুরোধ করবো না। দেশ সবার, দেশের ভালো করার দায়িত্বও সবার। এক সময় প্রচুর মেধাবী চিকিৎসক মধ্যপ্রাচ্যে চলে গিয়েছিলেন, কিন্তু তাদের কেউই ফেরেননি আর। এখনও এই পেশার মেধাবী নবীন চিকিৎসকেরা দেশ ছেড়ে ইউরোপ-আমেরিকায় চলে যাচ্ছে, কেউ হয়তো আর এভাবে থাকবে না। নতুন করে কেউ আর এ পেশায় আসবেন না বা আসতে চাইবে না। এটিই হচ্ছে সত্য। ইচ্ছে হলে ভাবুন। এতে করে কার বেশি ক্ষতি হবে?

আমরা আমাদের সন্তানতূল্য নবীন চিকিৎসকদের একবারও দেশপ্রেমের কথা আর বলবো না।

নতুন শনাক্ত দেড় সহস্রাধিক

ঈদের আগে করোনায় একদিনে ২৮ জনের মৃত্যু

দাবি পেশাজীবী সংগঠনের, রিট পিটিশন দায়ের

‘বেসরকারি মেডিকেলের ৮২ ভাগের বোনাস ও ৬১ ভাগের বেতন হয়নি’

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না