ঢাকা      মঙ্গলবার ২১, মে ২০১৯ - ৭, জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ - হিজরী

নার্সিংয়ে প্রচুর পড়াশোনার মানসিকতা থাকতে হয়: অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও

আজ  (১২ মে) আন্তর্জাতিক নার্স দিবস। বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ) ১৯৭৪ সাল থেকে দেশে দিবসটি পালন করে আসছে। আধুনিক নার্সিংয়ের প্রবর্তক ফ্লোরেন্স নাইটিংগেলের সেবাকর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁর জন্মদিন ১২ মে আন্তর্জাতিক নার্স দিবস পালন করা হয়। এই দিবস উপলক্ষে নার্সিং পেশার নানা দিক নিয়ে মেডিভয়েসের সাথে কথা বলেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েট নার্সিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও। সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ পাঠকদের উদ্দেশে তুলে ধরা হলো-

মেডিভয়েস: আপনার জীবনের গল্প শুনতে চাই

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: আমার শিক্ষা জীবন শুরু হয়েছে গ্রামে। আমি ১৯৭৬ সালে তুমিলিয়া সেন্ট মেরীস গার্লস হাইস্কুল থেকে এসএসসি পাশ করার পর হলি ফ্যামিলি নার্সিং স্কুলে ভর্তি হই। সেখান থেকে ১৯৭৯ সালের নভেম্বরে ডিপ্লোমা ইন নার্সিং এবং ১৯৮২ সালে মিডওয়াইফ ইন ডিপ্লোমা শেষ করি। এরপর সেখানেই আমি সিনিয়র স্টাফ নার্স হিসেবে চার বছর সার্ভিস দিই। ১৯৮৪ সালে মহাখালি নার্সিং কলেজ থেকে বিএসসি ইন নার্সিং কমপ্লিট করি। ১৯৮৬ সালে আমি কুমুদিনী নার্সিং স্কুলে সিস্টার টিউটর হিসেবে জয়েন করি।

১৯৮৮ সালে আমি সেখানে ভাইস প্রিন্সিপাল হিসেবে পদোন্নতি লাভ করি। আমি দীর্ঘ ২৫ বছর সেখানেই কাটিয়েছি। আমি ২০০৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে National Institute of Preventive & Social Medicine (NIPSOM) থেকে এমপিএইচ কমপ্লিট করি। ২০০৭ সালে কুমুদিনী নার্সিং কলেজে বিএসসি প্রোগ্রাম হলে সেখানে আমি ভাইস প্রিন্সিপাল হিসেবে নিয়োগ পাই। ২০১০ সালের নভেম্বরে স্কয়ার নার্সিং কলেজে প্রিন্সিপাল হিসেবে যোগদান করি।

এরপর ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রফেসর হিসেবে জয়েন করি। এই পেশায় আমি ৩৮ বছর ধরে আছি। এরমধ্যে ৩৪ বছর শিক্ষকতা ও ৪ বছর হলি ফ্যামিলিতে ক্লিনিকাল নার্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি।

মেডিভয়েস:বাংলাদেশে নার্সিং পড়াশুনার ধাপগুলো কী কী?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: আমাদের দেশে নার্সিং পড়াশুনায় বিভিন্ন ধাপ রয়েছে। যেমন:ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সাইন্স অ্যান্ড মিডওয়াইফেরী, বিএসসি নার্সিং, এমএসসি নার্সিং ইত্যাদি। ২০০৮ সালে শুরু হয়েছে বিএসসি নার্সিং। বিএসসি নার্সিংয়ের দুটো ধাপ রয়েছে।

এক. বেসিক বিএসসি নার্সিং। এইচএসসি পাশ করে সরাসরি করা যায়। 

দুই. পোস্ট বেসিক বিএসসি নার্সিং। যারা ডিপ্লোমা নার্সিং কমপ্লিট করে তারা এটা করতে পারে।

মেডিভয়েস: দেশে নার্সিংয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ-সুবিধা কেমন?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: বিএসসি পর্যন্ত হলো বেসিক নার্সিং শিক্ষা। এর উপরেরগুলোকে আমরা উচ্চশিক্ষা বলে থাকি। আমাদের দেশে ২০১৬ সালে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব এডভান্সড নার্সিং এডুকেশন এন্ড রিসার্চ এ এমএসসি ইন নার্সিং প্রোগ্রাম শুরু হয়েছে। বর্তমানে এমএসসি নার্সিং ই আমাদের দেশে সর্বোচ্চ পর্যায়ের নার্সিং শিক্ষা। সেখানে ৬০টা সিট ও ৬টা ডিসিপ্লিন আছে। আরেকটা সরকারের পক্ষ থেকে চালু করার চেষ্টা চলছে। বেসরকারিভাবে কুমুদিনীও চেষ্টা করছে। আগামীতে আমাদের দেশে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালু হতে যাচ্ছে। এটা নিয়ে বিভিন্ন ফোরামে আলাপ-আলোচনা চলছে।

মেডিভয়েস: নার্সদের বিদেশে কী কী উচ্চশিক্ষা নেয়ার সুযোগ আছে?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: উচ্চশিক্ষা নেয়ার ক্ষেত্রে উন্নত বিশ্বে সুযোগ-সুবিধা বেশি। বিভিন্ন ধাপে তাদের কোর্সগুলো রয়েছে। ইউএসএতে লাইসেন্সড প্র্যাকটিকেল নার্স (এলপিএন) ও লাইসেন্সড প্র্যাকটিকেল ভকেশনাল নার্স (এলভিএন) কোর্স রয়েছে। এছাড়াও এসোসিয়েট ডিগ্রী প্রোগ্রাম আছে। তাদের উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য বিএসএন, এমএসএন, ডক্টরাল প্রোগ্রাম চালু আছে। ইন্ডিয়াতে নার্সিংয়ে এমফিলও করা যায়। আমাদের দেশ থেকে সরকারিভাবে কিছু নার্স থাইল্যান্ড ও কোরিয়া থেকে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেছে। তারা সবাই নার্সিং সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। এমএসসি নার্সিংও অনেকেই করেছে। ১৯৫২ সালের দিকেও কিছু নার্স লন্ডন থেকে উচ্চতর ডিগ্রী অর্জন করেছে।

মেডিভয়েস: আগের চেয়ে কি এখন শিক্ষার্থীরা বেশি নার্সিং পেশায় ঝুঁকে পড়ছে?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: হ্যাঁ। আগের চেয়ে এখন শিক্ষার্থীরা নার্সিং পড়াশোনার প্রতি ঝুঁকে পড়ছে। ২০১৮-১৯ সালের এডমিশন পরীক্ষায় আমাদের সিট ছিল ১৬ হাজার। সেখানে ৫২ হাজার পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছে। এতেই বোঝা যায় এ অঙ্গনের চাহিদা বেড়েছে।

মেডিভয়েস: উন্নত বিশ্বের নার্সদের সেবার সাথে আমাদের দেশের নার্সদের সেবার পার্থক্য কোথায়?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: পার্থক্য তো অবশ্যই আছে। আমাদের দেশে রোগীর তুলনায় নার্সের স্বল্পতা প্রকট। এইজন্য আমাদের নার্সদের মধ্যে আচরণগত কিছু সমস্যা দেখা দেয়। উন্নত বিশ্বের নার্সরা একটা মেথড বা নার্সিং প্রসেস ব্যবহার করে সেবা দিয়ে থাকে। কিন্তু আমাদের দেশে নার্স স্বল্পতার কারণে সেটা সম্ভব হয় না।

উন্নত বিশ্বে রোগীদের নার্সরা আগে সেবা দিয়ে থাকে তারপর ডাক্তার দেখে। কিন্তু আমাদের দেশে ঠিক উল্টোটা হয়ে থাকে। রেশিও অনুয়ায়ী একজন নার্স চারজন রোগীকে সেবা দেবে। কিন্তু আমাদের দেশে তা সম্ভব নয়।

আবার এই সমস্যার সমাধান রাতারাতি সম্ভব নয়। এটার জন্য নির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। তবে আমাদের নার্সিং ইন্সস্টিটিউট, মানসম্মত শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে হবে। অর্থাৎ পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে।

মেডিভয়েস: ডাক্তার-নার্স-রোগীর মাঝে সম্পর্ক কেমন হওয়া উচিত?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: রোগীদের পরিপূর্ণ সেবার জন্য প্রয়োজন একটা ভালো টিম। বিশেষ করে ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য প্যারামেডিকসদের মাঝে সুসম্পর্ক না থাকলে রোগী যথাযথ সেবা পায় না। এইজন্য সুসম্পর্ক অত্যাবশ্যকীয়। সবার মাঝে মিউচুয়াল রেসপেক্ট থাকা প্রয়োজন। রোগীকে ভালো সেবা দেয়া আমাদের একমাত্র কাজ। সর্বোপরি আমাদের মাঝে একটা সুন্দর সম্পর্ক থাকা প্রয়োজন।

মেডিভয়েস: স্বাস্হ্যখাতে নার্সদের ভূমিকা তাৎপর্যপূর্ণ। আপনারা কতটুকু মূল্যায়ণ পাচ্ছেন?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নার্সদের প্রতি সুদৃষ্টি রাখছেন। তিনি নার্সদের দ্বিতীয় শ্রেণীর পদমর্যাদা দিয়েছেন। সম্প্রতি ২৬৫ জন নার্সকে প্রথম শ্রেণীর পদমর্যাদাও দেয়া হয়েছে। আমাদের সমাজে মানুষের মধ্যেও নার্সদের প্রতি সম্মানবোধ বেড়েছে। অভিভাবকরাও এ পেশাকে মূল্যায়ন করছে। সমাজ ও সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন হচ্ছে। এটা আমাদের পেশার জন্য পজেটিভ।

মেডিভয়েস: যারা নার্সিংয়ে ক্যারিয়ার গড়তে চায় তাদের প্রতি আপনার পরামর্শ কী?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: যারা এ পেশায় আসতে চায় তাদের প্রতি শুভকমনা। তাদেরকে অবশ্যই মেধাবী ও যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে। রোগীদের যত্ন সহকারে সেবা দেয়া এবং সমাজের মানুষের যে নেগেটিভ ধারণা আছে তা দূর করে এ পেশাকে মর্যাদার আসনে আসীন করতে হবে। তাদেরকে প্রচুর পড়াশুনা করতে হবে।

অনেকে মনে করেন, নার্সিংয়ে বেশি পড়াশোনা করতে হয় না। একথাটা ঠিক নয়। এ সেক্টরে আসতে প্রচুর পড়াশোনার মানসিকতা নিয়ে আসতে হবে। তা না হলে এ পেশায় ভালো কিছু করা সম্ভব নয়। তাদেরকে যেমন পড়াশোনা করতে হবে তেমনি ক্লিনিক্যালিও ভালো হতে হবে। উভয় দিকে তাকে প্রচুর সময় দিতে হবে। এটা করতে পারলে সে সফলতা লাভ করতে পারবে।

মেডিভয়েস: সারাদেশে কর্মরত তরুণ নার্সদের প্রতি আপনার পরামর্শ কী?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: আমাদেরকে অবশ্যই নার্সিং পেশার কোড অব ইথিক্স মেনে চলতে হবে। এ পেশার স্ট্যান্ডার্ড মান ধরে রাখ। এটা করতে পারলে নার্সিং পেশার ইমেজ বৃদ্ধি পাবে। আমাদের দেশের নার্সদের ইমেজ নেগেটিভ। সেখান থেকে আমাদের বের হয়ে আসতে হবে। কোড অব ইথিক্স জানতে হবে এবং সর্বক্ষেত্রে সেটার প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। আমাদের অচরণগত উন্নতি ও দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে। উন্নত প্রযুক্তি সম্পর্কে আমাদের যথাযথ জ্ঞান রাখতে হবে।

মেডিভয়েস: মেডিভয়েসের এ উদ্যোগকে কিভাবে দেখছেন। মেডিভয়েসের প্রতি আপনার পরামর্শ কী?

অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও: আপনাদের এ উদ্যোগকে আমি অত্যন্ত ইতিবাচকভাবে দেখছি। এটার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ নার্সিং পেশা সম্পর্কে জানবে। আমি মেডিভয়েসের উত্তরোত্তর উন্নতি কামনা করছি।

সাক্ষাৎকার নিয়েছেন- আহসান হাবিব

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ডা. মুরাদ স্বাস্থ্য থেকে তথ্য মন্ত্রণালয়ে 

ডা. মুরাদ স্বাস্থ্য থেকে তথ্য মন্ত্রণালয়ে 

মেডিভয়েস রিপোর্ট: মন্ত্রিপরিষদ পুনর্বিন্যাস করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। রোববার বিকালে…

`দশ হাজার চিকিৎসক নিয়োগে অনুমোদন দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী'

`দশ হাজার চিকিৎসক নিয়োগে অনুমোদন দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী'

প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দেশের বিভিন্ন খাতের সঙ্গে সঙ্গে…

চিকিৎসক ও নার্সদের আর কোনো তদবির গ্রাহ্য হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

চিকিৎসক ও নার্সদের আর কোনো তদবির গ্রাহ্য হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ঢাকার বাইরে…

ছাত্রীকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদে উত্তাল মমেক ক্যাম্পাস

ছাত্রীকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদে উত্তাল মমেক ক্যাম্পাস

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের (মমেক) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীকে রিকশাচালকের যৌন হয়রানির…

চিকিৎসক নার্সদের কর্মস্থলে উপস্থিতি নিশ্চিতে মনিটরিং সেল

চিকিৎসক নার্সদের কর্মস্থলে উপস্থিতি নিশ্চিতে মনিটরিং সেল

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলোতে চিকিৎসক ও নার্সসহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়মিত কর্মস্থলে উপস্থিতি…

১ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ঢাকায় নির্মাণ হচ্ছে নতুন শিশু হাসপাতাল

১ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ঢাকায় নির্মাণ হচ্ছে নতুন শিশু হাসপাতাল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট: সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী, ঢাকা শহরে এক হাজার শয্যা বিশিষ্ট একটি…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর