ঢাকা      শুক্রবার ১৯, জুলাই ২০১৯ - ৪, শ্রাবণ, ১৪২৬ - হিজরী

৩৯তম বিসিএসে প্রথম হওয়া ডেন্টাল সার্জন ডা. অভির সফলতার গল্প

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের (স্বাস্থ্য) চূড়ান্ত ফলাফলে ব্যাচেলর অব ডেন্টাল সার্জারিতে (বিডিএস) প্রথম হয়েছেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের ডেন্টাল ইউনিটের শিক্ষার্থী ডা. মো: মাহফুজ হাসান অভি।

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) বিকাল তিনটায় ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের (স্বাস্থ্য) চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি)।

শুধু বিসিএস নয়, সফলতার আলো ছড়িয়েছেন মেডিকেল কলেজেও। ১ম পেশাগত বিডিএস পরীক্ষায় তৃতীয় হওয়ার পাশাপাশি তৃতীয় পেশাগত পরীক্ষায় সার্জারীতে পেয়েছেন অনার্স। এরই ধারাবাহিকতায় শেষ বর্ষের পেশাগত পরীক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫ম স্থানও অর্জন করেছেন ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁওয়ের কৃতি শিক্ষার্থী।

মাহফুজ হাসানের পিতার নাম আবদুল মোমেন এবং মাতার নাম উম্মে সালমা। তিন ভাইয়ের মাঝে তিনি সবার ছোট। ১৯৯৬ সালেই বাবা হারান মাহফুজ। তারপর মা আর বড় দুই ভাইয়ের তত্ত্বাবধানেই বেড়ে ওঠা। মাধ্যমিক পরীক্ষায় গফরগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জিপিএ-৫ পান। তারপর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায়ও রাজধানীর নটরডেম কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। চমকপ্রদ এই ফলাফলের অনুভূতি ও তার নানা পরিকল্পনা জানিয়েছেন মেডিভয়েসকে। জানিয়েছেন তার সফলতার গল্প।

সাফল্যের অনুভূতি

মাহফুজ হাসান বলেন, অবশ্যই অনেক ভালো লাগছে। ফার্স্ট হওয়াটা সম্পূর্ণ ভাগ্যের ব্যাপার ছিল। আমরা এখনও ইন্টার্ন করতেছি, খুব বেশি পড়াশুনার যে সুযোগ পাইছি তা না। ফাইনাল প্রফের পর সবমিলিয়ে মাত্র তিন মাসের সময় পাইছি। এর মধ্যেই নিজের সেরাটা দিছি। আল্লাহর রহমতে হয়ে গেছে।

সফলতার পেছনে অনুপ্রেরণা

এ সফলতার পেছনে সবচেয়ে কার অনুপ্রেরণা ছিল জানতে চাইলে মাহফুজ হাসান বলেন, আম্মুর খুব শখ ছিল বিসিএস দাও, ভাল রেজাল্ট কর, বিদেশে যাওয়া লাগবে না। আমার এ রেজাল্টে আম্মুর সবচেয়ে বেশি অনুপ্রেরণা ছিল। তবে এই রেজাল্টের পিছনে বন্ধুদের সহযোগিতাও ছিল অনেক। এক সাথে সবাই মিলে পড়াশুনা করতাম। দুই রুমমেট ছিলো তাদের সাথে গ্রুপ স্টাডি করতাম, এটাই খুব কাজে লাগছে।

গ্রামীন স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে ভাবনা

গ্রামের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে তার ভাবনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপাতত গ্রামে যদি পোস্টিং হয় তাহলে সেখানেই থাকবো। তিন বছর থাকা লাগলে সেখানেই গ্রামের মানুষকে সেবা দেব। তাছাড়া পাশাপাশি সে সময়টা উচ্চশিক্ষার জন্য পড়াশোনা করবো। এরপর তিন বছর পর উচ্চশিক্ষার জন্য চেষ্টা করবো। দেশেই থাকবো, দেশের মানুষকে নিয়েই ভাববো।

সমসাময়িক ভাবনা

বর্তমান সময়ে চিকিৎসকদের নানা সংকট ও এ সময়ে আপনার ভাবনা কি -এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আসলে মিডিয়াতে যতটা প্রচার হচ্ছে, এতোটা নেগেটিভ আমাদের অবস্থা না। চিকিৎসকদের মাঝেও অবশ্যই গ্যাপস আছে। আমরা অনেকেই গ্রামে যাচ্ছি না, বা গেলেও বেশিদিন থাকতে চাচ্ছি না। কেন যা সেটা হচ্ছে তার আসল কারণ বের করে সমাধান করা উচিত। সেক্ষেত্রে যদি সিস্টেমের সমস্যা থাকে তবে তাও সমাধান করা প্রয়োজন।

‘আর আমরা যদি ওষুধপত্রসহ যাবতীয় যন্ত্রাংশ পাই, সেবা দিতে তো আমাদের অসুবিধা নাই। আমার চেষ্টা থাকবে যে ব্যবস্থাপনাই থাকে, সে অনুযায়ীই কাজ করা। সিস্টেমের বাইরে গিয়ে কিছু একটা করা কষ্টকর। তারপরও চেষ্টা করতে হবে সিস্টেমটার পরিবর্তন করার।’

‘সেই সাথে আমরা যারা চিকিৎসক আছি, আমাদেরকেও আমাদের দায়িত্বটা বুঝে নিতে হবে। যে একটা পেশায় আমরা আছি, সেখানে আমাদের প্রফেশনাল মনোভাবটা আনতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, মানুষকে সেবা দিচ্ছি -এই মনোভাব নিয়ে যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা কাজ করবো, ততক্ষন পর্যন্ত আমাদের মনে একটা রিল্যাক্স ভাব থাকবে যে আমি মানুষকে দয়া করছি। এই জিনিসটা থাকা যাবে না। যেহেতু এটাই আমার প্রফেশন (পেশা) সেহেতু প্রফেশনাল মনোভাবটাই থাকা উচিত।

নবীনদের জন্য পরামর্শ

নবীনদের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ডা. অভি বলেন, অবশ্যই নিয়মিত ক্লাস করতে হবে। আমি নিয়মিত ক্লাস করতাম। সবগুলো করতে না পারলেও লেকচার ক্লাসগুলো মিস যেতো না। এছাড়া ক্লিনিকক্যাল কাজগুলো করছি মনযোগ দিয়ে। এসবের মাধ্যমে যদি বেসিকটা ভাল হয়, পরবর্তীতে অনেকটা সহজ হয়ে যায়। আর বিসিএসের জন্য বললে, আমাদের মেডিকেল ছাত্রদের জন্য জেনারেল পার্টটা সবসময়ই কঠিন। এটা কঠিন হয়ে যায় আমাদের জন্য। তারপরও চেষ্টা করা। যদি জেনারেল নলেজটা ভাল থাকে, তাহলে এটা খুব কঠিন কিছু না। একটু চেষ্টা করলে হয়ে যায়। এছাড়া আল্লাহ তায়ালার যদি রহমত থাকে, তাহলে হয়ে যায়।

তিনি বলেন, সব মিলিয়ে পড়াশোনায় নিয়মিত হতে হবে। আমি যদি নিয়মিত ক্লাসে না যাই, নিয়মিত লেকচারগুলো না করি বা ক্লিনিক্যাল কাজগুলো না করি, পরীক্ষায় পাস হয়ে যাবে ঠিকই। কিন্তু বেসিকটা দুর্বল থেকে যাবে। বিসিএসর জন্য বেসিক অনেক স্ট্রং হতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ডাক্তারি সনদ ছাড়াই মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ!

ডাক্তারি সনদ ছাড়াই মা ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ!

মেডিভয়েস রিপোর্ট: লক্ষ্মীপুরে এমবিবিএস সনদ ছাড়াই নিজেকে ডাক্তার এবং মা ও শিশুরোগ…

টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নিহত

টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নিহত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: টাঙ্গাইলে সখীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আলাউদ্দিন আল…

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রোগী ভর্তিতে হাসপাতালগুলোয় রেকর্ড

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রোগী ভর্তিতে হাসপাতালগুলোয় রেকর্ড

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন রেকর্ড…

অধ্যাপক ডা. পারভেজ ইফতেখার আহমেদ আর নেই

অধ্যাপক ডা. পারভেজ ইফতেখার আহমেদ আর নেই

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ঢাকা মেডিকেল কলেজের নেফ্রোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. পারভেজ ইফতেখার…

কমিউনিটি ক্লিনিকের কার্যক্রম আরও জোরদার করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

কমিউনিটি ক্লিনিকের কার্যক্রম আরও জোরদার করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণে কমিউনিটি ক্লিনিকের কার্যক্রম আরও…

“আগস্টে আরও একটি লিভার ট্রান্সপ্লান্ট”

“আগস্টে আরও একটি লিভার ট্রান্সপ্লান্ট”

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হেপাটোবিলিয়ারি ও প্যানক্রিয়েটিক ও…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর