ঢাকা      শুক্রবার ২০, সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ৫, আশ্বিন, ১৪২৬ - হিজরী



ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

সহকারী সার্জন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল


পোস্ট পারটাম ব্লু

মাতৃত্ব প্রত্যেক নারীর জীবনেই পরম পাওয়া। নতুন সন্তানের আগমনে মায়ের আনন্দের যেন শেষ থাকেনা। তবে সন্তান জন্মের পর কয়েক দিন থেকে কয়েক সপ্তাহ পর্যন্ত মায়ের মন খারাপ হয়ে উঠতে পারে। তাই এর নাম পোস্ট পারটাম ব্লু । বেদনার রঙ নীল। এসময় মানসিক বেদনা বা কষ্ট হয় অনেক মায়ের।

পোস্ট পারটাম ব্লু তে বিভিন্ন উপসর্গ থাকে। এর মধ্যে আছে:

১. মেয়েরা খিটখিটে হয়ে উঠে।

২. বিষাদগ্রস্ত থাকে মন।

৩. মুড উঠানামা করে।

৪. মায়েরা কখনো  কখনো একা একা কাঁদে।

৫. ঘুম এর সমস্যা হয়।

৬. রুচিতে পরিবর্তন হয়।

সবার এক রকম উপসর্গ থাকে না। সবার আবার তীব্রতাও একই রকম থাকে না। কেন এই সমস্যা হয় তা নিয়ে বিভিন্ন মতামত আছে।

হরমোনের উঠা-নামাকে অনেক সময় দায়ী করা হয়। আবার এই সময় হঠাৎ বাচ্চার দায়িত্ব এসে পড়ে। দৈনন্দিন জীবনযাত্রা পরিবর্তন হয়। গবেষকেরা দেখেছেন প্রায় ৯০ শতাংশ নারীই এই সমস্যায় কষ্ট পেতে পারেন। প্রথম সন্তানের বেলায় এই সমস্যা বেশি হয়। 

সন্তান প্রসবের পর কাছের মানুষদের সমবেদনা এই সমস্যা অনেক কমাতে পারে। সবার আন্তরিক সহযোগিতা এই সমস্যাকে কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করে অনেকটাই। তবে এসব সমস্যা যদি বেশি দিন থাকে এবং উপসর্গগুলো বাড়তে থাকে তবে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

বর্তমানে অনেক ভাল মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ আছেন। প্রয়োজনে তাদের সাথে পরামর্শ করতে হবে। অবহেলা করা যাবেনা। তাতে সন্তান এবং মা দুইজনেরই ক্ষতি হতে পারে।

পোস্ট পারটাম ব্লু  খুবই স্বাভাবিক একটা ঘটনা, এ সময় মাকে একটু সাহায্য করতে হবে। সহমর্মিতা দেখাতে হবে। মায়ের  আচরণ সহানুভূতির সঙ্গে মেনে নিতে হবে। একটু সময় দিলেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই সমস্যা ভাল হয়ে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

স্থুলতা: উচ্চতা অনুযায়ী ওজন কত হবে?

স্থুলতা: উচ্চতা অনুযায়ী ওজন কত হবে?

মাত্র একুশ বছরের টগবগে তরুণ ফাহিম। বয়সের তুলনায় একটু বেশিই তরুণ। মায়ের…

কিডনিজনিত নানা সমস্যা, কারণ ও প্রতিকার

কিডনিজনিত নানা সমস্যা, কারণ ও প্রতিকার

কিডনি মানুষের শরীরের অন্যতম অপরিহার্য অঙ্গ। কিডনি ব্যতীত মানুষ বেঁচে থাকতে পারে…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর