২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০৫:৩৩ পিএম

গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য

গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য

গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য একটি অতি পরিচিত সমস্যা। বেশির ভাগ মহিলাই সাধারণত এ সময় কোষ্ঠকাঠিন্যে কষ্ট পান। এই সময় এমনিতেই নানা ধরনের সমস্যা থাকে। এরপর যদি কোষ্ঠকাঠিন্য থাকে তাহলে গর্ভবতীর শরীর ও মন ভালো থাকে না। পেটে সব সময় একটা অস্বস্তিভাব থাকলে কারো ভালো লাগার কথা নয়। গর্ভাবস্থায় নানা দুশ্চিন্তা থাকে। এসব সমস্যা দুশ্চিন্তা আরও বাড়িয়ে দেয়।  

গর্ভাবস্থায় জরায়ু বড় হতে থাকে। এটি তখন বৃহদন্ত্রের ওপর চাপ সৃষ্টি করে। এই কারণে কোষ্ঠকাঠিন্য এ সময় অনেক বেড়ে যায়। আবার গর্ভাবস্থায় খাবার রুচি অনেক সময় কমে যায়। আঁশ জাতীয় খাবার কম গ্রহণ কিংবা প্রয়োজন মতো পানি পান না করার কারণেও অনেকের কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে। গর্ভাবস্থায় প্রয়োজনীয় শারীরিক পরিশ্রম হয় না। ফলে সমস্যাটি বেড়ে যায়। হরমোনের পরিবর্তনের কারণেও গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দেয়।

গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্যের হাত থেকে মুক্তি পেতে সারাদিনে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করতে হবে। পানি আমাদের দেহের জন্য নানা উপকার করে। যথেষ্ট পানি পান না করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দেয়। এ কারণে প্রচুর পানি পান করতে হবে। দিনে কমপক্ষে ৮ গ্লাস বিশুদ্ধ পানি পান করা উচিত। আঁশযুক্ত খাবার বেশি খেতে হবে। ফলমূল শাকসবজিতে প্রচুর আঁশ থাকে। 

এরপরেও কোষ্ঠকাঠিন্য থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শে সিরাপ খাওয়া যেতে পারে। গর্ভাবস্থায় হাল্কা ব্যায়াম করা উচিত। এতে অনেকের উপকার হয়। 

কোষ্ঠকাঠিন্য নিজে খুব জটিল রোগ না হলেও এর কারণে নানারকম জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে। তাই আগে থেকেই সাবধান হতে হবে। গর্ভাবস্থায় এমন হলে দেরি না করে দ্রুত ডাক্তার দেখাতে হবে। 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে