ঢাকা      শুক্রবার ১৯, জুলাই ২০১৯ - ৪, শ্রাবণ, ১৪২৬ - হিজরী



ডা. কাওসার উদ্দিন

সহকারী সার্জন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।


শ্রীলঙ্কার ঘটনায় ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়াবেন না 

ভারত মহাসগারের দ্বীপ দেশ শ্রীলঙ্কাতে দীর্ঘদিন ধরে গৃহযুদ্ধ চলেছে। এটা ছিল সংখ্যালঘু তামিলদের সঙ্গে সংখ্যাগুরু শ্রীলঙ্কানদের। ১৯৪৮ সালে স্বাধীনতাপ্রাপ্তির পর থেকে নিজস্ব রাষ্ট্রের দাবিতে তামিলরা আন্দোলন শুরু করলেও ১৯৮০ সালে সেটা গৃহযুদ্ধে রূপ নেয়। চলে ২০০৯ সাল পর্যন্ত। সুদীর্ঘ এই ২৯ বছরে মারা যায় প্রায় ৮০ হাজার মানুষ। স্বাধীনতাকামী তামিল টাইগাররা ২০০৯ সালে সরকারী বাহিনীর কাছে পুরোপুরি পরাজিত হয়, অবশেষে শেষ হয় গৃহযুদ্ধ। 

পালের গোদাদের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সমস্যার সমাধান হলেও, বাকি যারা আছে তাদের কেউ কেউ মাঝেমধ্যে মাথাচারা দিয়ে উঠছে, সমস্যাটা এখানেই! শেষ ঘটনার পর অনেক তামিলই দেশ ত্যাগ করে। ধারণা করা হয়—পূর্বে যে তামিল জনগোষ্ঠী ছিল, তাদের এক তৃতীয়াংশই দেশান্তরীন হয়ে বর্তমানে বাস করছে বিভিন্ন দেশে, সেখানে বসেই তারা কলকাঠি নাড়েন। ধর্ম এখানে গৌন, সমস্যা মূলত জাতে! সবমিলিয়ে পক্ষ হলো দুটো, তামিল আর নন-তামিল।

শ্রীলঙ্কার গতকালের (২১ মে) হামলা, চার্চ ও হোটেলে বোমা বিস্ফোরণ! সর্বশেষ খবর অনুযায়ী যেখানে নিহত হয়েছেন ২৯০ জন, আহত হয়েছেন ৪৫০! সংখ্যাটা বেশ বড়, কত বড় ভাবতে এতগুলো লাশের কবর কল্পনা করুন। 

নিহত মানুষগুলোর অধিকাংশই খ্রিস্টান, নন-তামিল। ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক, উদ্বেগজনক ও ন্যাক্কারজনক। মানবিক মানুষ হিসেবে এতগুলো মৃত মানুষের মৃত্যুতে আমি শোকাতুর। যুদ্ধবাজ পৃথিবীতে, অস্থির এ সমাজে আমি প্রতিনিয়ত শোকে কাতর হই, আজ সেটা অনেক বেশি। 

দোষীদের ধরে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। সন্ত্রাসী হলো সন্ত্রাসী—তার কোন ধর্ম জাত পাত নাই, তার পরিচয় সে একজন সন্ত্রাসী। মনে করুন, আপনি এজন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী, যে ধর্মে বলা আছে— জীব হত্যা মহাপাপ। 

এখন আপনি যদি রোহিঙ্গাদের হত্যা করেন, সে দোষ আপনার ধর্মের না, দোষ আপনার। আপনি নিজ ধর্মের বিধিনিষেধ ঠিকমত মানেন না। কিন্তু সমস্যা হলো—আমাদের সমাজে একশ্রেণীর অতি বুদ্ধিমান শ্রেণী তাদের বুদ্ধিকে ব্যবহার করে এসব ঘটনা নিয়ে ধর্মীয় ইস্যু সৃষ্টি করার পাঁয়তারা করে। 

তারা নিজেকে নাস্তিক বলে পরিচয় দিলেও, প্রকৃতপক্ষে তাদের অধিকাংশই আগাগোড়া ধর্মীয় গোঁড়ামিতে মোড়া, বা কোন নির্দিষ্ট ধর্মের প্রতি বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব সম্পন্ন! 

এ কথা বলার একটাই কারণ—কয়েকজনকে দেখলাম তুলনা করছেন, 'নিউজল্যান্ডের ঘটনায় সবাই সরব, বাঙালি নাকি এটাতে নিরব!' এসব দেখে তাদের মনমানসিকতা নিয়ে আমি বেশ চিন্তায় আছি! তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, 'ভাই সকল, ধৈর্য্য ধরেন, সময় দেন, বাঙালি জাতি এখনো হয়তো ঘুমিয়ে! ব্যস্ত বিভিন্ন কাজে। আজ আবার এক ধর্মের ধর্মীয় দিন, তা নিয়েও ব্যস্ত অনেকে। এ খবর এখনো অনেকেই পাননি, পেলেও কেউ তা নিয়ে শোক প্রকাশ করলো কিনা সেটা বড় বিবেচ্য না! কিছু লোক সিলেক্টিভ আবেগ প্রকাশ করবে, যা সব ধর্ম জাতেই আছে সেটাও বিবেচ্য না! আর যদি এসব বিবেচ্য হয়েই থাকে, তবে আপনাদের ওই খোঁচা মারা বক্তব্য আরো বড় বিবেচ্য বিষয়! 

বিদ্বেষ এভাবেই সৃষ্টি হয়, আপনারাই এর বড় নিয়ামক! তার চেয়ে এক কাজ করেন, শ্রীলঙ্কার ইতিহাস নিয়ে পড়াশোনা করেন, তাদের জাতিগত বিবেধ সম্পর্কে জানেন, অপরাধীর বিচার চান। হাতে যদি আরো সময় থাকে তো বৈশ্বিক সাম্রাজ্যবাদী রাজনীতি সম্পর্কে পড়েন, শক্তিশালী পশ্চিমা ও প্রাচ্যের আগ্রাসী মনোভাব সম্পর্কে জানেন, শ্রীলঙ্কায় হামলা হলে দেশ-বিদেশে কাদের লাভ সেসব নিয়ে চিন্তা করেন, শুধু শুধু সময় নষ্ট করে ওসব আজগুবি স্ট্যাটাস প্রসব কইরেন না। 
 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভয়াবহ বিপর্যয়ের দিকে যাচ্ছে

স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভয়াবহ বিপর্যয়ের দিকে যাচ্ছে

হাসপাতালের সকলে মিলে সমাজকে অনেক কিছুই দিতে পারে। সাধারণত যে মানুষ যেভাবে…

মেডিকেল সায়েন্স গবেষণায় ইরানের এগিয়ে চলার গল্প 

মেডিকেল সায়েন্স গবেষণায় ইরানের এগিয়ে চলার গল্প 

যতদিন যাচ্ছে ইরানের মেডিকেল সায়েন্স গবেষণায় যুক্ত হচ্ছে অভূতপূর্ব সব অবিষ্কার। বিশ্ব…

বিদেশে চিকিৎসা: শোনা কথায় কান দিবেন না

বিদেশে চিকিৎসা: শোনা কথায় কান দিবেন না

যখন গাইনী আউটডোরে চাকরি করি তখন এক জুনিয়র এসে বলল "আপু তোমরা abnormal…

সাইমন্ড্স ডিজিজ রোগ ও তার প্রতিকার

সাইমন্ড্স ডিজিজ রোগ ও তার প্রতিকার

আমাদের মাথার ভেতরে পিটুইটারি গ্রন্থির অবস্থান। পিটুইটারি গ্রন্থি থেকে নানা রকম হরমোন…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর