ঢাকা রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৪ ঘন্টা আগে
ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

সহকারী সার্জন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল


২০ এপ্রিল, ২০১৯ ১০:৩৪

শিশুর ভাইরাস জনিত ডায়রিয়া

শিশুর ভাইরাস জনিত ডায়রিয়া

শিশুদের ডায়রিয়া খুব পরিচিত অসুখ। শিশুদের ডায়রিয়ার অক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বড়দের চেয়ে বেশী। শিশুর ডায়রিয়া হওয়ার বিভিন্ন কারণ রয়েছে। এর মধ্যে ভাইরাস জনিত কারনে শতকরা ৮০ ভাগ ডায়রিয়া হয়ে থাকে। রোটা ভাইরাস দিয়েই সবচেয়ে বেশী ডায়রিয়া হয়ে থাকে।

রোটা ভাইরাস ডায়রিয়ার কারণে পৃথিবীতে প্রতি বছর অনেক শিশুর মৃত্যু হয়ে থাকে। রোটাভাইরাস প্রায় পৃথিবীর সব দেশেই বিরাজমান। এই ভাইরাস আমাদের চারপাশে ছড়িয়ে থাকে। একজনের থেকে অন্যজনের দেহে ভাইরাসটি প্রবেশ করে। সাধারনত দূষিত পানি, খাবার, আশেপাশের বিভিন্ন জিনিস থেকে থেকে এই রোগের জীবাণু ছড়াতে পারে।

রোটাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার এক থেকে দুইদিনের মধ্যেই লক্ষণগুলো প্রকাশ পায়। পানির মত পাতলা পায়খানা হয়। বমিভাব, বমি থাকে। খুব কম সময়ের মধ্যে ডায়রিয়া তীব্র আকার ধারন করতে পারে। পানি শূন্যতা  বেশি হলে হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন হতে পারে। তীব্র ডায়রিয়া থেকে  শিশুর মৃত্যুও হতে পারে। ভাইরাল ডায়রিয়া বেশ কয়েকদিন থাকতে পারে। এই সময় অনেক অভিভাবক অস্থির হয়ে পড়েন। নিজে নিজে বা দোকানদারের পরামর্শে এন্টিবায়োটিক খাওয়ান। অনেক চিকিৎসকও অনেক সময় এন্টিবায়োটিক দেন। এন্টিবায়োটিক ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে পারলেও ভাইরাস মারতে পারেনা। এন্টিবায়োটিকের অপব্যবহার হয় এক্ষেত্রে।

ডায়রিয়ায় পানিশূন্যতা হয়। এই পানিশূন্যতা পূরণ করার জন্য ঘন ঘন খাবার স্যালাইন খাওয়াতে হবে। পানিশূন্যতা বেশি হলে এবং মুখে  স্যালাইন না খেতে পারলে হাসপাতালে ভর্তি করে শিরাপথে স্যালাইন দিয়ে পানিশূন্যতা পূরণ করতে হবে। এটাই সঠিক চিকিৎসা। পাশাপাশি স্বাভাবিক খাবার খাওয়াতে হবে।
 
রোটা ভাইরাস ডায়রিয়া থেকে বাঁচার জন্য বিভিন্নভাবে আমরা ব্যবস্থা নিতে পারি। শিশু যেখানে খেলা করে তার চারপাশ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। শিশু যেসব খেলনা নিয়ে খেলা করে তা সবসময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। শিশুকে খাবার খাওয়ানোর সময় অবশ্যই হাত পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। রোটাভাইরাস এর টিকা পাওয়া যায়। শিশুকে  রোটাভাইরাস টিকা খাওয়ানো উচিত। তাতে রোটাভাইরাস জনিত ডায়রিয়ার প্রকোপ অনেক কমে যাবে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত