ঢাকা      মঙ্গলবার ২৩, এপ্রিল ২০১৯ - ৯, বৈশাখ, ১৪২৬ - হিজরী



অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক

 এফসিপিএস, এফআরসিপি (যুক্তরাজ্য), ডিডিভি (অস্ট্রিয়া)


আমারে তুমি অশেষ দিয়েছ প্রভু

একদিনও ভাবিনি, ঢাকা কলকাতার বাইরে কখনও যাওয়া হবে। আমি বহু বছর আগে বরিশাল মেডিকেল কলেজে মেডিসিনের CA ও রেজিস্টারার ছিলাম।

আমার কর্মস্থল ছিল বেশ ভয়াবহ আলেকান্দার অন্দ্ব স্কুলে। কারণ তখনও তা মেডিকেল কলেজে shifted হয়নি। এরপরই আমার মেডিসিন বিশেষজ্ঞ হবার পালা। সে সময় তা ছিল একেবারই অনায়াস সাধ্য।

তবে নিয়তি ছিলো অন্যরকম। সময়টাও ছিল প্রতিকূল। এমনিতে ঢাকার পরেই শিক্ষায় বরিশাল এগিয়ে ছিল। মুরব্বীরা ছিলেন, অভিজাত, উদারমনা,সজ্জন। তবে সেই অসুন্দর, অসংস্কৃত সময়টিতে পাড়ায় পাড়ায় তরুণেরা ছিলেন উন্মত্ত দ্বন্দ্বে লিপ্ত। অপ্রতিরোধ্য।

হাসপাতাল মূল ভবনে শিফট হচ্ছিল।  ভীতিকর আলেকান্দায়, ছিল অস্থায়ী মেডিকেল ওয়ার্ড। আমি সেখানেই কাজ করতাম। আইসিলেশন ওয়ার্ডও ছিল সেখানেই। তখনও ইন্টার্নি না থাকায় (ছাত্র, ডাক্তার না হওয়ায়) আমি ছিলাম মেডিসিনি, শিশু বিভাগ আর আইসোলেশনের  একমাত্র ডাক্তার (অধ্যাপক বাদে)। সারা রাত কল নিয়ে ওয়ার্ডবয় আসছে আর আসছে ।

ক্যাম্পাস থেকে আলেকান্দার হাসপাতালের পথে রক্ষীবাহিনীর সতক' গাড়ি দ্রুত পেরুচ্ছে, এরপরই চাদরে গা ডাকা সিরাজ সিকদারের লোক,একা বা দলে। আমার গলায় স্টেথো, ওয়ার্ড বয়ের হাতে লণ্ঠন। ভীতির চূড়ান্ত। এ সময়টিতে ডাক্তার, নার্সদের উত্ত্যক্ত করা- এক ‘প্রিয় কাজ’ ছিল উঠতি রোমিওদের।

নানা, তুচ্ছ ঘটনায়ও বারবার নিজে মারাত্মকভাবে আহত হতে থাকলে, মায়, এত শান্ত, বিচক্ষণ (বিলাত থেকে খুবই দুঃসাধ্য MRCP করা, সে দেশেই খুবই বড়সড় consultant( অধ্যাপক শাহাদাৎ) পদে কাজ করা অধ্যাপককে ও লাঞ্ছিত করা হলে, আমার প্রফেসর ও তার  বিদেশীনি স্ত্রী,আমাকে মেডিসিনটা ছেড়েই দিতে উপদেশ দেন।

প্রতি মুহূর্তে এসব অন্যায় উত্তেজনার সুযোগবিহীন এক নির্ভেজাল সাবজেক্টে পোস্ট গ্রাজুয়েট করতে বলেন।

খুবই বিক্ষুব্ধ, আমি এক বাক্যে রাজী হই। আমি skin/ std বিশেষজ্ঞ হই। সারাটা দেশে তখন মাত্র ৪ জন স্পেশালিস্ট ছিলাম আমরা।

পরে ইউরোপে আবার পোস্ট গ্রাজুয়েশন করি। সব মিলিয়ে পৃথিবীর নানা দেশ ভ্রমণ করা হয়। প্রচুর বিদেশী আমন্ত্রণ পাই। সম্মান পাই। নানা দেশ-বিদেশ ঘোরা হয়।

নিয়তি যে পথেই নিয়ে গেছে তাতে আল্লাহর কাছে সন্তোষ প্রকাশ করি।

আমারে তুমি অশেষ দিয়েছ প্রভু।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


সম্পাদকীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

হিমোফিলিয়ার চিকিৎসায় সরকারি উদ্যোগ জরুরি

হিমোফিলিয়ার চিকিৎসায় সরকারি উদ্যোগ জরুরি

রাত ১১টা। মোবাইলে অপরিচিত নম্বর থেকে কল আসে। ভয়-সংশয়ে ফোন ধরতেই ওপাশ…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর