ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১ ঘন্টা আগে
ডা. ফাহিম উদ্দিন

ডা. ফাহিম উদ্দিন

ইন্টার্ন চিকিৎসক

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।


৩১ মার্চ, ২০১৯ ১১:১৩

প্রিভিয়াস প্রেসক্রিপশন এবং ইনভেস্টিগেশন রিপোর্ট

প্রিভিয়াস প্রেসক্রিপশন এবং ইনভেস্টিগেশন রিপোর্ট

পেশেন্টের বয়স ৪৫ বছর, দীর্ঘদিন দেশের বাইরে ছিলেন। কিন্তু প্রবাসকালীন সময়ে অনেক কষ্টে অর্জিত তার লক্ষ লক্ষ টাকা এক বিরল রোগের পেছনেই শেষ হয়ে গেল! গত চার বছরে অনেক ডাক্তার দেখিয়েছেন, কলকাতা থেকেও ঘুরে এসেছেন, কিন্তু তার রোগটাই ধরা পড়েনি এতদিন যাবৎ। পেশেন্টের হিস্ট্রি, প্রিভিয়াস প্রেসক্রিপশন এবং ইনভেস্টিগেশন রিপোর্ট থেকে যতটুকু জানতে পারলাম তা পর্যায়ক্রমিক ভাবে শেয়ার করছি।

(পেশেন্টের শরীরের বিভিন্ন অংশের ছবি পোস্টের সাথে সংযুক্ত আছে এবং এই ব্যাপারে পেশেন্টকে পূর্বেই অবগত করা হয়েছে।)

চার বছর আগে ওনার দুই কনুই (Elbow region) এবং দুই হাঁটুর (Knee region) আশেপাশের স্কিনে এক ধরনের লেসন দেখা দেয়। ঐ চার জায়গার স্কিন ক্রমান্বয়ে Thickened & Rough হয়ে যাচ্ছিল, সাথে চুলাকানি ছিল (Itching)। উনি প্রথমে একজন ডার্মাটোলজিস্টকে দেখান। প্রাথমিক ভাবে দেখে ডার্মাটোলজিস্ট এর কাছে মনে হয় Homeopathic drug reaction (পেশেন্ট একই সমস্যার জন্য প্রথমে হোমিওপ্যাথিক ঔষধ সেবন করেছিলেন)। পাশাপাশি পেশেন্টের মুখ দেখে Leonine facies মনে হওয়ায় উনি D/D তে Leprosy রাখেন।

কিছু ঔষধ প্রেসক্রাইব করেন এবং IgE Antibody সহ রুটিন কিছু ব্লাড টেস্ট করতে দেন। এদিকে পেসেন্টের স্কিনের এই সমস্যাটা আস্তে আস্তে আশে পাশে ছড়াতে শুরু করে।

পরবর্তীতে আরেকজন ডার্মাটোলজিস্ট দেখান এবং কিন্তু সেদিন রাতেই তার জ্বর, পরবর্তীতে খিঁচুনী (Convulsion) শুরু হয়। তাড়াতাড়ি একটি মেডিকেল কলেজ হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়। পেশেন্ট তখন সেমিকনসাস। সিটি স্ক্যান সহ রুটিন ইনভেস্টিগেশন করে তেমন কিছু পাওয়া যায়নি। সেখানে Enchepalitis ডায়াগনোসিস হয়। পরবর্তীতে খিঁচুনীর জন্য একজন নিউরোমেডিসিন স্পেশালিস্টকে দেখানো হয়। সেখানে কিছু ঔষধ দেয়া হয় এবং স্কিনের সমস্যার জন্য ডার্মাটোলজিস্ট এর সাথে যোগাযোগ করতে বলা হয়।

পরবর্তীতে আরেকজন ডার্মাটোলজিস্ট দেখানো হয়। তিনি Slit skin smear for AFB করতে দেন, রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। পরবর্তীতে D/D তে Lepromatous Leprosy, Sarcoidosis, Leishmaniasis with Fever রেখে হসপিটালে ভর্তির পরামর্শ দেয়া হয়। পেশেন্ট তখন খুলনা মেডিকেল কলেজ হসপিটালের মেডিসিনের একটি ইউনিটে ভর্তি হন। সেখানে রুটিন ইনভেস্টিগেশনের পাশাপাশি HIV, MT test, S. Calcium level(for Sarcoidosis) করা হয়। সবই নরমাল/নেগেটিভ ছিল। কিন্তু পেশেন্টের Fever followed by repeated Convulsion & Disorientation এর কোনো কারন খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। শেষে D/D তে Sarcoidosis & Amyloidosis (associated with Leonine facies) রেখে পেশেন্ট কে ডিসচার্জ/রেফার করা হয়।

পরবর্তীতে পেশেন্ট ঐ ডার্মাটোলজিস্ট এর কাছে আবার গিয়েছিলেন। পেশেন্টের স্কিন বায়োপসির জন্য টিস্যু নিয়ে ঢাকায় ভালো একটি সেন্টারে পাঠানো হয়, কিন্তু রিপোর্টে স্পেসিফিক কিছুই পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে পেশেন্টকে Leprosy সেন্টারে পাঠানো হয়। সেখানকার ডাক্তাররা এটাকে Leprosy হিসেবে ডায়াগনোসিস করে Leprosy এর ড্রাগ শুরু করে দেন। কিন্তু কয়েকমাস সেবন করেও কোনো উন্নতি হচ্ছে না পেশেন্টের!

পরবর্তীতে পেশেন্ট কলকাতা চলে যায়। সেখানকার ডাক্তার কর্তৃক ডিসচার্জ পেপারে লেখা ফাইন্ডিংস ছিল:

1. Generalized erythematous thickening of skin with infiltration & nodule over the ear lobules

2. No hypoesthetic patch seen

3. Nerve thickening (+)

4. Slit skin smear: (+) [outside]

5. HPE:

. Grenz zone: (+)
. No granuloma/Giant cell seen
. Epitheloid cells : (+)
. Lymphocytic infiltration: (+)

6. ZN(5% H2SO4): Negative

7. Giemsa: Negative for LD bodies

এবং সেখানে ২ বার বায়োপসি করেও কোনো ডায়াগনোসিসে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি। তাঁরা কিছু D/D রাখেন এবং Leprosy এর ড্রাগ কন্টিনিউ করার পাশাপাশি কিছু ঔষধ দেন।

D/D:

1. Hansen's disease (Leprosy)

2. Cutaneous T cell Lymphoma

3. Sarcoidosis

4. PKDL

এরপর পেশেন্ট দেশে চলে আসে।কিছুদিন পর আবারো একই সমস্যা Fever followed by repeated convulsion & irrelevant talking. আবারো নিউরোমেডিসিন স্পেশালিস্ট এর আন্ডারে ভর্তি হন, রুটিন ইনভেস্টিগেশন করা হয় এবং Ischaemic Stroke ডায়াগনোসিস হয়।

এরপর পেশেন্ট আরেকজন ডার্মাটোলজিস্টকে দেখান। স্যার D/D তে রাখেন:

1. Lepromatous Leprosy with Type 2 reaction

2. Lichen Myxedomatosis

3. Sarcoidosis

4. Amyloidosis

5. PKDL

তিনি পেশেন্ট কে আবার Leprosy সেন্টারে রেফার করেন। এর কয়েক মাস পর একদিন পেশেন্টের central chest pain & shortness of breath দেখা দেয়ায় আর্জেন্ট একজন মেডিসিন স্পেশালিস্টকে দেখান। তখন পেশেন্টের Myocardial Infarction(Heart Attack) হয়। ("Trophonin I" was 9.67 ng/ml)

এরপরও পেশেন্টের কয়েকবার এরকম খিঁচুনী হয়।

সাধারনত কয়েক মাস পরপর এমন হত।অনেক ক্ষেত্রে খিঁচুনীর আগে জ্বরের হিস্ট্রি দিয়েছে পেশেন্ট। এরপর থেকে খিঁচুনীর জন্য কয়েকবার নিউরোমেডিসিন স্পেশালিস্টকে দেখিয়েছেন এবং মোট মিলিয়ে হসপিটালেও কয়েকবার ভর্তি হয়েছিলেন। একবার খিঁচুনীর পর কয়েকদিন অজ্ঞান ছিলেন এবং ঐ সময়টায় আইসিইউতে ছিলেন পেশেন্ট। তখন ওনারা ভেবেছিলেন এটা হয়ত Amyloidosis with Seizure(suspected, not diagnosed) এবং পাশপাশি Leprosy এর ঔষধও চলছিল। কিন্তু পেশেন্টের কোনো উন্নতি নেই। বরং তার স্কিনের ঐ সমস্যাটা আস্তে আস্তে এখন প্রায় পুরো শরিরেই ছড়িয়ে পড়েছে, সাথে চুলকানিও আছে।

সবশেষে পেশেন্টকে খিঁচুনীর সমস্যার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হসপিটালের নিউরোমেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। এখানে ভর্তি হওয়ার পর নিউরোলজিক্যাল কোনো কারন যখন মেলানো যাচ্ছিল না, তখন সেন্ট্রাল প্রেজেন্টেশনে এই কেইসটি প্রেজেন্ট করার সিদ্ধান্ত হয়। এবং পাশপাশি লেপ্রোসি সেন্টারে একটি লিখিত পত্র পাঠানো হয় যে, কিসের ভিত্তিতে ওনারা Leprosy ডায়াগনোসিস কনফার্ম করেছিলেন/লেপ্রোসির ঔষধ দিয়েছিলেন তা জানার জন্য! কিন্তু ওনারা ব্যাপারটি কে পজিটিভলি না নিয়ে নেগেটিভলি নেন এবং এর কোনো জবাব দেননি ওনারা।

যাই হোক, সেন্ট্রাল প্রেজেন্টেশনে নিউরোমেডিসিনের এসিস্ট্যান্ট রেজিস্ট্রার (সদ্য প্রাক্তন) Dr. Shahidul Islam ভাই কেইসটি প্রেজেন্ট করেন, এবং নিউরোমেডিসিন ডিপার্টমেন্ট হেড Dr. Biplob Das স্যার ছিলেন চেয়ারপার্সন।

তখন উপস্থিত বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টের সিনিয়র স্যারগণ বিভিন্ন মতামত দেন। যখন কোনো কিছু দিয়েই ব্যাখ্যা করা যাচ্ছিল না, তখন কয়েকজন স্যার মতামত দিয়েছিলেন যে, কনভালসন (খিঁচুনী) এবং স্কিন লেসন- দুটোকে একই রোগের আন্ডারে চিন্তা না করে আলাদা এন্টিটি হিসেবে চিন্তা করার জন্য! পাশপাশি পুনরায় বায়োপসি করারও পরামর্শ ছিল (যদিও অলরেডি কয়েকবার বায়োপসি করা শেষ)।

তখন ডার্মাটোলজির এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ডা. মাসুম স্যার বলেন যে, এটা Mucinoses হতে পারে এবং Mucinoses দিয়ে দুটোই ব্যাখ্যা করা যাচ্ছে। পরবর্তীতে আরেকজন স্যার ডার্মাটোলজির একটি টেক্সটবুক নিয়ে এসে আমাদেরকে দেখান এবং আমরা দেখলাম যে ছবি সহ অনেক ইনফরমেশনই সুন্দরভাবে মিলে যাচ্ছে।

[সহজ ভাবে যদি বলি: আমাদের কানেক্টিভ টিস্যুর একধরনের সেল হল ফাইব্রোব্লাস্ট। এই ফাইব্রোব্লাস্টের কাজ হল extracellular matrix, collagen তৈরি করার মধ্য দিয়ে টিস্যুর স্ট্রাকচারাল ফ্রেমওয়ার্ক গঠন করা এবং প্রয়োজনের সময় wound healing এ ভূমিকা রাখা। নরমালি এই কাজের জন্য ফাইব্রোব্লাস্ট কোষগুলো প্রয়োজনীয় পরিমান mucopolysaccharides তৈরি করে। কিন্তু কোনো কারনে, এই ফাইব্রোব্লাস্ট কোষগুলো অতিরিক্ত পরিমান mucopolysaccharides (i.e. mucin) তৈরি করার ফলে সেগুলো বডিতে ডিপোজিশন হয়ে (i.e. dermis of the skin) যে ডিজিজ কন্ডিশন গুলো দেখা দেয়, তাদেরকে একত্রে ব্রড টার্মে Mucinoses বলা হয়।]

পরবর্তীতে ডা. মাসুম স্যার আবারো বায়োপসির জন্য টিস্যু নেন এবং ঢাকায় BSMMU প্যাথলজি ডিপার্টমেন্টের শ্রদ্বেয় প্রফেসর ডা. মোহাম্মদ কামাল স্যারের কাছে পাঠান। পরবর্তীতে স্যারের রিপোর্টের মাধ্যমে ফাইনাল ডায়াগনোসিস হয় Scleromyxedema(one type of Mucinoses).

N.B: The terms scleromyxedema, lichen myxedematosus & papular mucinosis are used interchangeably to describe the same disorder. A spectrum of disease appears to exist, with the more localized, less severe forms, which are generally called lichen myxedematosus or papular mucinosis; and the more sclerotic, diffuse form, which is referred to as scleromyxedema. (Medscape)

বি: দ্র: ইংরেজিতে একটা কথা আছে,, Knowledge increases by Sharing, not by Saving! এই সিরিজের সবগুলো লিখাই একাডেমিক আলোচনার জন্য। সুতরাং কোনো ভুলত্রুটি হয়ে থাকলে দয়া করে "সুন্দর ভাবে" শুধরে দেবার অনুরোধ রইল। প্রাসঙ্গিক কোনো তথ্য/অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে চাইলেও করতে পারেন, আমাদের জুনিয়রদের উপকারে আসবে। দয়া করে ভালো না লাগলে এভয়েড করুন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত