ঢাকা      শুক্রবার ১৯, জুলাই ২০১৯ - ৪, শ্রাবণ, ১৪২৬ - হিজরী



মাসউদ বিন হক

শিক্ষার্থী, ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ।


নারী দিবসে ঐতিহাসিক অবদান

এম্বু-সাইকেল আরোহী বিশ্বের প্রথম মুসলিম নারী মাহামিদ

ইউনাইটেড হ্যাত-জালাহর প্রথম মহিলা স্বেচ্ছাসেবী সানা মাহামিদ হ্যাত-জালাহ এম্বুসাইকেল পেয়ে মুসলিম নারীদের মধ্যে আবার প্রথম হলেন।

এম্বু-সাইকেল হচ্ছে এক ধরনের ডুয়েল-স্পোর্ট মোটরসাইকেল, যার সঙ্গে যুক্ত থাকে জীবন রক্ষাকারী বিভিন্ন মেডিকেল উপকরণ, ঠিক যেনো অ্যাম্বুলেন্সের বাইক ভার্সন! একজন এম্বু-সাইকেল আরোহী সাধারণত দুর্ঘটনাকবলিত জায়গা কিংবা মুমূর্ষু রোগীর কাছে খুবই অল্প সময়ে পৌঁছাতে পারেন, কখনো কখনো ৯০ সেকেন্ডেরও কম সময়ে।

৩১ বছর বয়সী, সানা মাহামিদ গত সোমবার তার বাড়ির কাছেই, উম্মেল-ফাহামে তার মোটরবাইকটি গ্রহণ করেন।

জেরুজালেম পোস্টকে তিনি বলেন, ‘গতির জন্য ভয় করি না, আমি সাহসী মহিলা, বিপদের সময় মানুষের পাশে দ্রুত পৌঁছাতে পারবো বরং এতেই আমি অনেক খুশি’।

তার নতুন মোটরসাইকেলটি নিয়ে শহরের উঁচু-নিচু টিলার পথ ধরে চক্কর লাগানোর সময় সারাক্ষণই মাহামিদকে হাস্যোজ্জ্বল দেখা গেছে, আনন্দ তার চোখে-মুখে ফুটে উঠছিল।

‘আমাদের শহরে অনেক বেশি যানবাহন চলাচল করে, একটি গাড়ি নিয়ে তাৎক্ষণিক এগিয়ে যাওয়া খুবই দুঃসাধ্য। ঘটনাস্থলে আমি সবার আগে পৌঁছুতে চাই’, বললেন সানা।

সানা নিজের খরচেই আফুলাতে একটি ড্রাইভিং স্কুলে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ করা রপ্ত করেছেন। দুই বছর আগে হ্যাতজালাহ'য় ৫ হাজার সেচ্ছাসেবীর সঙ্গে একজন ইমার্জেন্সি মেডিকেল টেকনেশিয়ান হিসেবে যোগদান করেছিলেন তিনি। তাদের মধ্যে মাত্র ৪০০ জন ছিলেন মুসলিম এবং সব মিলিয়ে নারী ছিলেন মাত্র ৪৫০ জন।

সানা মাহামিদ স্থানীয় একটি ইমার্জেন্সি মেডিকেল সার্ভিস প্রতিষ্ঠানেও কাজ করে যাচ্ছেন, যেখানে তিনি একটি এম্বুলেন্স চালিয়ে থাকেন। স্থানীয় একটি ক্লিনিকেও তিনি সেবা দিয়ে যাচ্ছেন নিয়মিত। বিভিন্ন স্কুলের খেলাধূলা ও ভ্রমণে তিনি ইমার্জেন্সি মেডিকেল টেকনিশিয়ান হিসেবে সেবা দিতে তাদের সাথে যুক্ত হন।

সানা মাহামিদ নিজের স্মৃতিচারণ করেন, ‘আমি তখন ছোট ছিলাম, আমার চাচা অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন, আমার চাচী আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে সাহায্যের জন্য ডাকছিলেন। আমি চিকিৎসা সম্বন্ধে কিছুই জানতাম না, আমি শুধু একটা এম্বুলেন্স ডাকতে পেরেছিলাম! কিন্তু এম্বুলেন্স আসার আগেই আমার চাচা মারা যান। আমার চাচাতো বোনের কান্না আজো আমার মনে পড়ে, সে বলছিলো, বাবা উঠো, বাবা উঠো, চোখ খুলো বাবা। এ স্মৃতি আমাকে তাড়িয়ে বেড়ায়’।

সানা তার কর্মজীবনে বিভিন্ন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন। কতক দুঃখের, আবার কতক সুখের অভিজ্ঞতা। একবার এক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সানা মাহামিদই প্রথম তাকে চিকিৎসা সেবা দিতে সবার আগে ছুটে যেতে পেরেছিলেন। তিনি তার রক্তপাত বন্ধ করার সকল চেষ্টা করেন এবং তার রক্তনালীতে আইভি স্যালাইন যুক্ত করে দেন। ৪০ মিনিট পর এম্বুলেন্স আসে এবং তাকে শল্যচিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। লোকটি পরে বেঁচে গিয়েছিলেন!

অপরদিকে একদিন এক দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি গাড়ির অভ্যন্তরে ড্রাইভারকে মৃত অবস্থায় পেয়েছিলেন, তার কিছুই করার ছিল না। এর আগেই তিনি মারা গিয়েছিলেন।

তিনি বলেন, ‘কিন্তু তবুও আমি হার মানি না, রাত ২টা বা ৩টা যখনই হোক আমি আমার কাজ, ঘুম আর ঘর ছেড়ে ছুটে যাই, যেতে থাকবো’।

তার পরিবার এবং তার সমাজ তার এই সিদ্ধান্তকে সাদরে গ্রহণ করেছে। তারা তার দিকে তাকিয়ে বলেন, ‘কুল হাকাভোড’!, হিব্রুতে এটি এক সম্মানজনক প্রশংসার বাক্য। তিনি জানান, তার সমাজ অবাক হয়, যে একজন ধর্মপরায়ণ মুসলিম নারী হয়েও এই দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। মাহামিদ শালীন পোশাকে থেকে, তাদের ঐতিহ্যবাহী হিজাবে মাথা আবৃত করেই কাজে রওনা হন সব সময়।

এক টিভি সাক্ষাৎকারে তার বাবা বলেছেন, ‘আমি আর ওর মা সব সময়ই ওকে সমর্থন করে এসেছি, কখনো কোনো প্রয়োজনে আটকাইনি’।

সানা বলেন, ‘অনেক তরুণী আমাকে আমার কাজ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করে, তারা আগ্রহী। আমি তাদেরকে সব রকম দিক-নির্দেশনা দিয়ে সাহায্য করেছি।’

সানা মাহামিদ তার ভবিষ্যৎ স্বপ্ন পূরণেরর ইচ্ছাও ব্যক্ত করেন। তিনি ভবিষ্যতে মেডিকেল ইমার্জেন্সি হেলিকপ্টার উড্ডয়নের প্রশিক্ষণ নিতে চান।

‘এটা খুবই কঠিন, তবুও আমার স্বপ্ন আমি তা করতে চাই, প্লিজ আল্লাহ আমি তা করতে চাই’, উচ্ছ্বাসে বলে চললেন সানা।

‘যখন তুমি জানো যে তোমার কাধে অনেক দায়িত্ব আর যেকোনো সময় ডাক আসবে, তোমার বাইকের গিয়ার বদলে ছুটে যেতে হবে ক্ষীপ্র গতিতে, তখন এই কাজ সবাইকে দেয়া হয় না।’

‘সাবাবা’ এক উচ্ছ্বসিত হাসি হেসে বললেন সানা মাহামিদ, ‘এটা চমৎকার’।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

১০০ চিকিৎসকের রুদ্ধশ্বাস অস্ত্রোপচার: আলাদা হলো জমজ মাথা

১০০ চিকিৎসকের রুদ্ধশ্বাস অস্ত্রোপচার: আলাদা হলো জমজ মাথা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: দুই বোনের দেহ দু’দিকে, তবে মাথা জোড়া লাগানো। পৃথীবিতে আসার…

ভারতে যাওয়া বিদেশি রোগীদের ৪৫ ভাগই বাংলাদেশি

ভারতে যাওয়া বিদেশি রোগীদের ৪৫ ভাগই বাংলাদেশি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: সাম্প্রতিক বছরগুলোয় বাংলাদেশ, ইরাক ও ওমান থেকে চিকিৎসার উদ্দেশ্যে ভারতে…

ফ্রান্সে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধ হচ্ছে

ফ্রান্সে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধ হচ্ছে

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ২০২১ সাল থেকে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় অর্থায়ন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স।…

মেডিকেল সায়েন্স গবেষণায় ইরানের এগিয়ে চলার গল্প 

মেডিকেল সায়েন্স গবেষণায় ইরানের এগিয়ে চলার গল্প 

যতদিন যাচ্ছে ইরানের মেডিকেল সায়েন্স গবেষণায় যুক্ত হচ্ছে অভূতপূর্ব সব অবিষ্কার। বিশ্ব…

ডিম্বাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধক আবিষ্কার

ডিম্বাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধক আবিষ্কার

মেডিভয়েস ডেস্ক: উচ্চ ক্ষমতার ডিম্বাশয় ক্যান্সার নারীদের জন্য একটি সাধারণ বিষয়। বেশিরভাগ মানুষের…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর