ঢাকা      মঙ্গলবার ১৬, জুলাই ২০১৯ - ১, শ্রাবণ, ১৪২৬ - হিজরী



রাইয়ান মাহমুদ

ঢাকা মেডিকেল কলেজ


ইন্সট্রুমেন্ট বিভিউ

ক্যাটগাটের ইতিবৃত্ত

ক্যাটগাট সুচার গবাদিপশুর অন্ত্র থেকে প্রস্তুতকৃত এক ধরনের বিশেষায়িত সুতা- যা বিভিন্ন অস্ত্রোপচারে বহুলভাবে ব্যবহৃত হয়। এটি স্বাভাবিকভাবেই শরীরের বিভিন্ন প্রোটিনবিশ্লেষী এনজাইম দ্বারা বিশোষিত হয়। 
আবিষ্কার পরবর্তী সময়ে গীটারসহ অন্যান্য বাদ্যযন্ত্রের তার হিসেবে এটি ব্যবহৃত হতো। গীটার শব্দের আদিরূপ Kitara বা Citara থেকে নেয়া হয়েছে Kit/Cit শব্দটি। সে হিসেবে এর নাম হওয়া উচিত ছিল কর Kitgut/Citgut। কারো কারো মতে, গবাদিপশুর (Cattle) অন্ত্র (Gut) থেকে প্রস্তুত করা হয় বলে Catgut নামকরণ হয়েছে। শেষোক্ত মতটি অধিকতর যুক্তিপূর্ণ। যদিও নাম শুনে মনে হতে পারে এটি বিড়ালের অন্ত্র থেকে উৎপন্ন, তথাপি এ বিশেষ তন্তু তৈরীতে বিড়ালের অন্ত্র ব্যবহৃত হয়েছে এমন প্রমাণ নেই। 
সর্বপ্রথম বিশোষণযোগ্য সুচার প্রস্তুত করা হয়েছিল ভেড়ার অন্ত্র থেকে। তখন এটি ভায়োলিন, গীটার, সেলো প্রভৃতি বাদ্যযন্ত্রে এমনকি টেনিসের র‌্যাকেটেও ব্যবহৃত হতো। পরবর্তীতে গ্রীক সার্জন ও দার্শনিক ক্লড গ্যালেন (১২৯-২০০ খ্রীস্টাব্দ) সর্বপ্রথম সার্জিকাল উদ্দেশ্যে এ তন্তুর ব্যবহার শুরু কেেরন। অধুনা চিকিৎসকদের মধ্যে মুসলিম চিকিৎসক আল জাহরাওয়ি দশম শতাব্দীতে অস্ত্রোপচারে এটি ব্যবহার করেন। পশ্চিমা বিশ্বে এটি জনপ্রিয়তা লাভ করে ঊনবিংশ শতাব্দীতে। 
ক্যাটগাট সূচার সাধারণত দ্রুত নিরাময়যোগ্য টিস্যু এবং যেসব অভ্যন্তরীণ অংশে সেলাই অপসারণ কষ্টসাধ্য সেসব স্থানে ব্যবহৃত হয়। বর্তমানে এটি অস্থি চিকিৎসা, চোখের অপারেশন, স্ত্রী-রোগ চিকিৎসা এবং গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিনাল সার্জারিতে বহুলভাবে ব্যবহৃত হয়। সাধারণত ৯০ দিনের মধ্যে বিশোষণ সম্পূর্ণ হয়; তবে ক্যান্সার, রক্তাল্পতা ও অপুষ্টির রোগীদের ক্ষেত্রে এটি দ্রুত শোষিত হয়। 
স্বাস্থ্যবান ও রোগমুক্ত গবাদি পশু যেমন- গরু, ভেড়া, ঘোড়া, ছাগল, গাঁধা প্রভৃতির দেহ থেকে অন্ত্র আলাদা করা হয়। অতঃপর অন্ত্র থেকে চর্বি অপসারণ করে পানিতে ধোয়া হয় এবং ছুরি দিয়ে বাইরের ঝিল্লি ফেলে দেয়া হয়। এরপর ক্ষুদ্রান্ত্রের সেরোসা ও সাবমিউকোসা স্তর থেকে প্রাপ্ত ও বিশোধনকৃত কোলাজেন তন্তুকে একত্রে পাকিয়ে তৈরী করা হয় এক একটি সুচার। একক তন্তুর রূপ লাভ করলে একে গ্লিসারল দ্রবণ দ্বারা ট্রিটমেন্ট করে ইথিলিন অক্সাইড, আইসো প্রেপিনাইল অ্যালকোহল ও পাতিত পানি দ্বারা জীবাণুমুক্ত করে শুষ্ক প্যাকেটে ভরে বাজারজাত করা হয়। 
ক্যাটগাট সুচার প্রধানত দুই ধরণেরঃ 
১. ক্যাটগাট প্লেইন সুচারঃ এটি খড় বর্ণের এবং এর ইউএসপি সাইজ ৬-০ (১ মেট্রিক) থেকে ইউএসপি ৩ (৭ মেট্রিক) পর্যন্ত হয়ে থাকে। 
২. ক্যাটগাট ক্রোমিক সুচারঃ এটি বাদামী বর্ণের এবং এর ইউএসপি সাইজ ৪-০ থেকে ইউএসপি ২ পর্যন্ত হতে পারে। ক্রোমিক সুচারের ট্রিটমেন্ট করা হয় ক্রোমিক এসিডের লবন দ্বারা। ক্রোমিক সুচারের সেলাইয়ের স্থায়িত্ব প্লেইন সুচারের দ্বিগুণ হলেও এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বেশি। 
ক্রোমিক সুচার ব্যবহারের ফলে অনেক সময় অস্ত্রোপচার পরবর্তী এডহেশন, তীব্র ব্যাথা, ক্ষত, সংক্রমণ, ইওসিনোফিলিক সিস্টোসিস এমনকি সেলাইয়ের লাইন বরাবর আন্ত্রিক অবস্ট্রাকশন হতে পারে। এ সুচার ব্যবহারের কারণে ম্যাড কাউ (Bovine Spongiform Encephalopathy) এর সংক্রমণ হতে পারে- এ আশংকায় ইউরোপ ও জাপানে এটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে; যদিও সচরাচর সার্টিফাইড ম্যাড কাউ মুক্ত গবাদি পশু হতেই অন্ত্র আহরিত হয়। 
কার্ডিও ভাস্কুলার ও নিউরোলজিক টিস্যুতে এ সুচার ব্যবহৃত হয় না। 
ক্যাটগাট সুচার চিকিৎসা বিজ্ঞানের আধুনিকতম আবিষ্কারসমূহের একটি। যেসব স্থানে সেলাই অপসারণ কষ্টসাধ্য ও ঝুঁকিপূর্ণ সেখানেই এ সুচার যথেষ্ট কার্যকরী। তবে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকায় বর্তমানে এর বিকল্প হিসেবে কৃত্রিম শোষণযোগ্য পলিমার যেমন- ভিক্রিল ও পলি ডায়োক্সানোন ব্যবহৃত হয়।
(দ্বিতীয় সংখ্যায় প্রকাশিত)

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর