০৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ১২:০৭ পিএম

জামালপুরে মেডিকেলে টেকসই কাজ না হলে ব্যবস্থা: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

জামালপুরে মেডিকেলে টেকসই কাজ না হলে ব্যবস্থা: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল নির্মাণকাজ টেকসই ও মানসম্মত ভাবে সুনির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে যদি শেষ না করেন তাহলে আমরা ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব। শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জামালপুরে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের নবনির্মিত ছাত্রাবাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মো: আব্দুল ওয়াকিলের সভাপতিত্বে ছাত্রাবাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- কলেজটির স্বপ্নদ্রষ্টা সদ্য সাবেক পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি, ইঞ্জিনিয়ার মোজাফফর হোসেন এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চৌধুরীসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

শুরুতেই মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল নির্মাণ কাজে ঠিকাদারের অনিয়ম-দুর্নীতি নিয়ে স্বাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রীর ডা. মুরাদ হাসানের সামনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মির্জা আজম। তিনি বলেন, ‘‘নির্মাণাধীন মেডিকেল কলেজ পরিদর্শনে গিয়ে নিম্নমানের কাজ হাতেনাতে ধরেছি, কিন্তু সেই কাজ চলমান রয়েছে। ঢালাইয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিমেন্টের পরিমাণের তুলনায় বালু বেশি ব্যবহার করেছে। নিম্নমানের কাজ নিয়ে গণপূর্তের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিলেও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।”

স্বাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রী অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘‘ আমি নতুন, অত কিছু জানি না। সবই জানেন আমার বড় ভাই মির্জা আজম। যথাযথ ব্যবস্থার মাধ্যমে টেকসই কাজ ও দ্রুততম সময়ে সম্পন্ন না হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

উল্লেখ্য, জামালপুর শহরের নতুন বাইপাস সড়কের পাশে মনিরাজপুর এলাকায় ৩০ একর জমিতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে ৪৫৬ কোটি ৭২ লাখ টাকা ব্যয়ে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ ও ৫০০ আসন বিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মাণ করা হচ্ছে।

পাঁচটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ২০১৭ সালের আগস্ট থেকে বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৫ সালের ১০ জানুয়ারি এর উদ্বোধন করেন এবং ২০১৭ সালের ১০ নভেম্বর তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিম এই প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

প্রকল্পের শর্ত অনুযায়ী, ২০১৯ সালের জুন মাসের মধ্যে এর সবগুলো অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি