ঢাকা      রবিবার ২০, জানুয়ারী ২০১৯ - ৭, মাঘ, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. তাইফুর রহমান

কনসালটেন্ট কার্ডিওলজি

জেনারেল হাসপাতাল, কুমিল্লা।


নবাগত এমবিবিএস ছাত্রছাত্রীদের প্রতি

বাঁচতে হলে জানতে হবে, জানতে হলে পড়তে হবে

"পড়, তোমার প্রভুর নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন" -আল কোরআনের প্রথম আদেশ। কোরআনের সকল নির্দেশ মান্য করা ফরজ। সুতরাং পড়া প্রতিটি মানুষের জন্য অবশ্য কর্তব্য। নবী (সাঃ) বলেছেন প্রত্যের নর-নারীর ওপর বিদ্যা শিক্ষা করা ফরজ। ফরজ মানে বাধ্যতামূলক। কেউ না করলে গোনাহগার হতে হবে। তাই জানা দরকার কোন বিদ্যা, কতটুকু বিদ্যা শিখতেই হবে।

এছাড়াও কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন- " বলুন,যারা জানে এবং যারা জানেনা তারা কি এক হতে পারে? চিন্তা ভাবনা কেবল তারাই করতে পারে যারা বুদ্ধিমান।" সুরা যুমার। নবী (সাঃ) বলেছেন " আলেমের মর্যাদা মূর্খ ইবাদতকারীর উপড় এত অধিক যেমন আমার মর্যাদা তোমাদের মধ্যকার অধম ব্যক্তির উপড় অধিক"। সুতরাং এলেম ( জ্ঞান) অর্জন করা অতি আবশ্যক।

বদর যুদ্ধের যুদ্ধবন্দীদেরকে রাসুল ( সাঃ) মুক্তিপণ ধার্য্য করেছিলেন যারা লিখাপড়া জানতেননা তাদেরকে লিখতে এবং পড়তে শিখানো! জ্ঞানার্জনের বিকল্প নেই। যার একমাত্র পথ হচ্ছে পড়া। তাহলে কি পড়তে হবে? ধর্ম, বিজ্ঞান, সাহিত্য, ইতিহাস, সংষ্কৃতি, অর্থনীতি, পৌরনীতি কোনটি?

হ্যাঁ। সবই পড়তে হবে, নিষেধাজ্ঞা নেই কোনটাতেই। তবে প্রায়োরিটি দেখতে হবে।

আমার জন্য ফরজ করা হয়েছে কোনটা, কতটুকু? যেটা বাধ্যতামূলক করেছেন আমার মালিক? কতটুকু না জানলে আমি পাপী হয়ে যাব??

১. জীবনের চাইতে বড় কিছু নাই। জীবন সঠিক পথে সুন্দর ভাবে চালানোর জন্য দেয়া আছে গাইড লাইন। সেখানে ষ্পষ্টভাবে বলা আছে বাধ্যতামূলক, পছন্দনীয়ও ঐচ্ছিক বিষয়াবলী। দেয়া আছে নিষিদ্ধ কাজও খাদ্যদ্রব্যের তালিকাও। এগুলো জানা প্রত্যেকটা মানুষের জন্য বাধ্যতামূলক, ফরজ।

২. আল্লাহর হক্ব ও বান্দার হক্ব এর ব্যাপারে থাকতে হবে স্পষ্ট ধারনা।

৩. ধর্মের মৌলিক ভিত্তির ব্যাপারে সচেতনতা থাকতে হবে।

৪. মা-বাবা, সন্তান-সন্ততির হক্ব ও দায়িত্বের ব্যাপারে ধারনা থাকতে হবে।

৫.পেশার জ্ঞান থাকা বাধ্যতামূলক।

৬. দুনিয়ার জীবন চালনার জন্য কৌশলগত জ্ঞানও অর্জন করতে হবে।

তারপর আপনার সাহিত্য, হাস্যরসের স্থান।তবে কোন ক্রমেই সীমালঙ্ঘন করা যাবেনা। যত রসগ্রাহীই হোক না কেন অশ্লীলতা পরিত্যজ্য।

একজন ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে সফল ব্যক্তিত্বের শেষ সময়ের কটা দিনের উল্লেখ করে শেষ করছি- ভদ্রলোক কর্মজীবনে সচিব ছিলেন। আমি যখন দেখি তিনি আইসিইউ তে লাইফ সাপোর্টে। একসময় ওনার অবস্থার উন্নতি হল, লাইফ সাপোর্ট উইথড্র করা হল।

ভদ্রলোক খুব হাসি- খুশিভরা প্রাণবন্ত মানুষ। কথা বলতে ও গল্প করতে ভালবাসেন। গর্বভরে ছেলেদের গল্প করেন। এরা মানুষ হয়েছে, সমাজের উচ্চ স্তরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। দুইজন দেশের বাইরে, একজন দেশে। ছেলেরাও টাকা খরচ করতে কার্পণ্য করছে না বাবার জন্য । বাসায় নেয়ার মত হলেও তারা আরও কিছুদিন এখানেই রাখতে চায়। ৯০ বছরের বৃদ্ধ মানুষের সেবা করার মত কেউ নেই।

ক্রমেই কেমন যেন ঠেকছে!! ছেলেদের টাকা খরচে কোন অসুবিধা নাই। তবে বাসায় নিবে না। এদিকে উনি একটিবার নিজের ভিটেমাটিতে পা রাখতে চান। সময় গড়ায় কিন্তু তার সাধ আর পুরণ হয় না। একসময় প্রায় সাড়ে তিন মাস পর এই হাসপাতালের বিছানায়ই তার মৃত্যু হয়!!!

আমি আজও বুঝিনা কোনটা ভাল ছিল!! সফল ছেলেদের সফল পিতার এটাই কি উত্তম পরিনতি?? তাহলে কি বেসিক পড়ালেখায় কোন গলদ ছিল?

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

চার বছর বয়সেই ডিপ্রেশনে আক্রান্ত!

চার বছর বয়সেই ডিপ্রেশনে আক্রান্ত!

ইশরাত জাহান, বয়স বর্তমানে ১৫। তার মা-বাবা থেকে জানা গেল যখন তার…

সরকারী স্বাস্থ্য সেবা এখন জনগণের দোরগোড়ায়

সরকারী স্বাস্থ্য সেবা এখন জনগণের দোরগোড়ায়

আমাদের দেশের জনগনের বড় অংশ বসবাস করেন গ্রামে। সুতরাং গ্রামের মানুষের কথা…

অপারেশনের আগে রোগীর প্রস্তুতি

অপারেশনের আগে রোগীর প্রস্তুতি

অপারেশন লাগবে শুনলে সবারই ভয় বা দুশ্চিন্তা লাগে। কেউই সহজে অপারেশন করতে…

একজন মোকছেদ ভাই ও আমাদের ব্যর্থতা

একজন মোকছেদ ভাই ও আমাদের ব্যর্থতা

২০০১ সাল, ৫৫/১ আরামবাগ- "ঐ পাগলা! উঠ, দশটা বাজে। আর কত্তো ঘুমাবি?" …

গ্যাসের সমস্যা নিয়ে নানা জটিলতা

গ্যাসের সমস্যা নিয়ে নানা জটিলতা

চাচার বয়স পঞ্চাশের মত। সকাল থেকেই বুকে একটু ব্যাথা ছিল, আর বুক…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর