পুষ্টিবিদ উম্মে সালমা তামান্না

পুষ্টিবিদ উম্মে সালমা তামান্না

বিআইএইচএস জেনারেল হাসপাতাল, মিরপুর ও

ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক আ্যান্ড কনসালটেশন সেন্টার, বাড্ডা


১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১১:০১ এএম

দাওয়াতে গেলে কী খাবেন

দাওয়াতে গেলে কী খাবেন

ডায়েটিং এর সময় আমাদের দাওয়াত, ফাস্টফুড এগুলো নিষেধ থাকে। কিন্তু মাঝে মাঝে দেখা যায় যে এত কাছের মানুষ কিংবা নিকটাত্মীয়ের দাওয়াত থাকে যে আমাদের আর তা উপেক্ষা করার উপায় থাকেনা। সামাজিকতার খাতিরে অনিচ্ছা সত্ত্বেও তখন সেখানে উপস্থিত হতে হয়।আর এই দাওয়াতে যেয়ে যদি সবার সাথে তাল মিলিয়ে ভরপুর খাওয়া দাওয়া করা হয় তখন সারামাসের কষ্টটাই একদিনে বৃথা হয়ে যায়। আবার সবার সাথে একই টেবিলে বসে না খেয়েও থাকা যায় না।

তাই দাওয়াতে গেলে অবশ্যই এমন খাবার মেন্যু পছন্দ করতে হবে যাতে একদিকে সামাজিকতাও রক্ষা হয় আবার নিজের ডায়েটিং এ তেমন কোন নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে।

আসুন তাহলে জেনে নেই দাওয়াতে গেলে কোন খাবার কতটুকু পরিমানে খাওয়া উচিত এবং কি কি নিয়ম মেনে চলা উচিত।

১. একেবারে খালি পেটে কখনোই দাওয়াত খেতে যাবেন না। আপনি ক্ষুধার্ত থাকলে না চাইলেও আপনার বেশী খাওয়া হয়ে যাবে।তাই দাওয়াতে যাওয়ার আগে হালকা কিছু খেয়ে নিবেন।

২. অল্প পরিমানে খাবার গ্রহন করুন। খাবারের পরিমান যেন অতিরিক্ত না হয়।খাবার অনুযায়ী পরিমান নির্ধারন করুন। যেমন: সবজি, স্যুপ, সালাদ, টক দই এগুলো পরিমানে বেশী হলেও সমস্যা নেই। কিন্তু পোলাও, বিরিয়ানী, রোষ্ট, গরু বা খাসীর মাংস, কাবাব সামান্য পরিমানে গ্রহন করুন।

৩. স্বাস্থ্যসম্মত আইটেম সিলেক্ট করুন। ডিপ ফ্রাইড, তৈলাক্ত,ক্রিমি, চিজি,  সিজনিং যুক্ত খাবার এবং ড্রিংকস এড়িয়ে যেতে হবে। এর বদলে সবজি, সালাদ, স্যুপ, অল্প একটু রাইস আর ঝোল মশলা ছাড়া গোটা মাংস বা মাছ নিতে পারেন।

৪.মিষ্টান্ন আ্যভয়েড করুন। নিতান্তই যদি নিতে হয় তাহলে ২/১ কামড় খাওয়ার চেষ্টা করুন অথবা অন্য কারো সাথে শেয়ার করে খেতে পারেন।

৫. সারাদিনের ক্যালরির হিসাবটা ঠিক রাখুন। আপনার জন্য আপনার পুষ্টিবিদ যতটুকু ক্যালরি নির্ধারিত করে দিয়েছে তার চেয়ে অতিরিক্ত ক্যালরি যেন না খাওয়া হয়। যেমন ধরুন, সারাদিনে আপনার জন্য ১৪০০/১৫০০ ক্যালরির খাবার বরাদ্ধ আছে। তাহলে দাওয়াতে গিয়ে উপরোক্ত নিয়মানুসারে খেলে ৬০০/৭০০ ক্যালরি খাওয়া হয়ে যাবে।

তখন সারাদিনে বাকি ৭০০/৮০০ ক্যালরির খাবার অল্প অল্প করে খেয়ে নিবেন। ফল, শাক-সবজি, স্যুপ, সালাদ, বাদাম, টকদই এগুলো খেয়ে তখন বাকি ক্যালরির চাহিদা পূরণ করতে পারেন। ফ্যাট বার্নিং জ্যুস, ডিটক্স খেতে পারেন দিনে ২/১ বার।

৬. প্রতিদিনের চেয়ে ১৫-২০ মিনিট অন্তত বেশী হাঁটুন।

তবে এভাবেও যদি দাওয়াত মাসে ৩/৪ বার খাওয়া হয় সেটাও আপনার ডায়েটিং এর উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। তাই চেষ্টা করবেন যেন মাসে এক বা দুইবারের বেশী যেন দাওয়াত খেতে না হয়।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত