আমি তো মরে গেছি, আমাকে গোরস্তানে রাখো


আমেনা বেগম, বয়স ৪৬।  কিছু দিন পূর্বে জ্বরে ভুগেন।  ৪-৫ দিন জ্বর ছিল।

এরপর থেকে ওনার ঘুম হয় না।  সারা রাত জেগে থাকে, কান্নাকাটি করে, খায় না।  মাথা টনটন করে, ভাইরে ডাকে, মারে ডাকে, বলে আমার সংসার শেষ তোদের সংসারও শেষ।

সে বলে আমাকে নিয়ে কেন টানাটানি করছো আমি তো মারা গেছি, আমাকে গোরস্তানে নিয়ে রাখো।

তিনি আরো বলেন, সব ঘরে মরা লাশ শুয়ে আছে।

ওনাকে জিজ্ঞেস করি কেমন লাগে?

উনি বলেন অস্থির লাগে, অশান্তি লাগে, আনন্দ নেই, কিছুই ভালো লাগে না, সারা রাত কাঁদি, ঘুম নাই।

এই কেইস হিস্ট্রি থেকে যা শিখলামঃ

♦  কিছু মানসিক রোগ শারীরিক অসুস্থতার পরে হতে পারে

♦ অল্প সময়ে ও তীব্র বিষন্নতায় আক্রান্ত হতে পারে

♦ বিষন্নতা বা ডিপ্রেশনে এমন নৈরাশ্য তৈরি হতে পারে যে নিজের সমন্ধে মনে হতে পারে আমি নিঃস্ব, আমার সব শেষ।

এমনকি এটি এমন চূড়ান্ত পর্যায়ে ও যেতে পারে যে তার মনে হতে পারে তিনি আর জীবিত নেই, মারা গেছেন, তার তো এখানে না,কবরস্থানে থাকার কথা।

♦ নিজের অস্তিত্বই নেই এমন চরম পর্যায়ের "ভ্রান্ত বিশ্বাসকে " বলা হয় "নিহিলিষ্টিক ডেলুশন"।

♦ কিছু দিন পূর্বে একজন ১৫-১৬ বছরের ছেলের ও এমন ডিপ্রেশন হয় যে সে মনে করে তার লিভার কিডনি, পাকস্থলী সব পায়খানার সঙ্গে পড়ে গেছে, তার এখন এসব কিছু নেই। তাই তার খাওয়া দাওয়া করার কোন দরকার নেই

♦ এরকম ডেলুশন সহ ডিপ্রেশনকে বলা হয় "সাইকোটিক ডিপ্রেশন"।