ঢাকা      বুধবার ১২, ডিসেম্বর ২০১৮ - ২৮, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫ - হিজরী

কমপাউন্ডার থেকে এফসিপিএস ডাক্তার!

মেডিভয়েস রিপোর্ট: চিকিৎসকের কমপাউন্ডার (সাহায্যকারী) হিসাবে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে হয়ে যান এমবিবিএস এবং এফসিপিএস'র মতো বড় বড় ডিগ্রিরধারী ডাক্তার। এমনকি লোকজনের কাছে বিষয়টিকে আরও বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে নিজের নামে ছাপান ভিজিটিং কার্ডও। 

পড়েছেন মাত্র মাধ্যমিক পর্যন্ত। এরপর কমপাউন্ডার। কিছুদিন পর বনে যান আপাদমস্তক চিকিৎসক। নিজের নামের সামনে যোগ করেন এমবিবিএস এবং এফসিপিএস। পরিচয় দেন ‘আমি পিজির ডাক্তার’।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগোযুক্ত প্যাডে প্রেসক্রিপশনও লিখতেন। লোকজনও তাকে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বলেই চিনতেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক লোকজনের চোখে ধুলা দিয়ে টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, নরসিংদীসহ বিভিন্ন জায়গায় সাপ্তাহিকভাবে রোগীও দেখতেন। রোগীকে দেখা শেষে তার হাতে ধরিয়ে দিতেন নিজের ভিজিটিং কার্ড। এভাবেই প্রায় চার বছর ধরে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন ভুয়া চিকিৎসক আব্দুল হান্নান মিয়া ওরফে আবুল বাশার মিয়া (৪৮)। 

সম্পতি রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকায় এমন প্রতারণার কাজটি করতে গিয়ে তিনি ধরা খেয়ে বসেন। হাতেনাতে পুলিশ তাকে আটক করে। এখন সেই ভুয়া চিকিৎসকের জায়গা হয়েছে কেরানিগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে। আটকের পর বেরিয়ে এসেছে তিনি কিভাবে একজন ভুয়া চিকিৎসক হয়ে উঠলেন আর কিভাবে প্রতারণার কাজটি চালিয়ে যাচ্ছিলেন। 

পুলিশের এসআই সাইফুল ইসলাম জানান, তিনি যাত্রাবাড়ীর শনিরআখড়ার গোবিন্দপুর বাজার এলাকার আল মক্কা মার্কেটের আল আমিন মেডিকেল হলে যান। সেসময় সেই ভুয়া চিকিৎসক বিভিন্ন রোগী দেখছিলেন। পরে রোগী দেখা শেষ হলে তার সাথে পুলিশের এসআই সাইফুল কথা বলেন এবং আবুল বাশার যে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তার স্বপক্ষে প্রমাণ চান। এ কথা শোনার পর ভুয়া চিকিৎসক আবুল বাশার নানাভাবে তর্কবিতর্ক করতে শুরু করেন। 

এক পর্যায়ে তিনি তার ডিগ্রির সাটিফিকেট দেখাতে রাজি হন। পুলিশ সদস্যরা প্রমাণস্বরূপ তার ব্যবহৃত ডিগ্রির কাগজপত্র চাইলে তিনি বলে উঠলেন, তার স্ত্রী অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন এবং তিনি সেই উত্তরার বাসায় থাকেন। তার স্ত্রীর বাসায় সেই কাগজপত্র রাখা আছে। শুরু হয় তাকে নিয়ে তার সার্টিফিকেট উদ্ধারের কাজ। আবুল বাশারও নিজেকে আসল চিকিৎসক প্রমাণের লড়াইয়ে নেমে পড়েন। 

তার কথা অনুযায়ী তাকে নিয়ে একটি সিএনজি ভাড়া করে যাত্রা শুরু হলো উত্তরা দিকে। পথে তিনি আবারও জানালেন তার নাকি মালিবাগে আরেকটি বাসা আছে কিন্তু সেখানে তিনি ঢুকলেন না। উত্তরায় পৌঁছার পর তার বাসায় না নিয়ে সিএনজি ঘোরাতে বলেন। তার ডিগ্রীর সার্টিফিকেট নাকি ধানমন্ডির বাসায় রাখা আছে। এবার গন্তব্য শুরু হলো ধানমন্ডির বাসার দিকে। সিএনজি ঘুরিয়ে নেয়া হলো। যথারীতি সিএনজি ছুটে চললো ধানমন্ডির বাসার ঠিকানা স্টার কাবাব এলাকার দিকে। সেখানে পৌঁছাতেই তিনি এবার জানালেন তার সার্টিফিকেট নাকি এখানেও রাখা হয়নি। পরে সিএনজিতে নিজের মুখে আবুল বাশার স্বীকার করলেন তিনি একজন ভুয়া চিকিৎসক। 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

সংসদ নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী ডা. সানসিলা

সংসদ নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী ডা. সানসিলা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সবচেয়ে কনিষ্ঠ প্রার্থী হিসেবে বিএনপির মনোনীত ধানের…

এক বছর মেয়াদী অনারারি ট্রেনিংয়ের জন্য দরখাস্ত আহবান

এক বছর মেয়াদী অনারারি ট্রেনিংয়ের জন্য দরখাস্ত আহবান

মাতৃসদন ও শিশু স্বাস্থ্য প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানে অবস অ্যান্ড গাইনী ও শিশু বিভাগে…

বিদেশী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের জন্য নীতিমালা

বিদেশী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের জন্য নীতিমালা

যথাযথ অনুমোদন না নিয়ে বাংলাদেশে দীর্ঘদিন অবস্থান করে চিকিৎসা পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন…

হবু চিকিৎসকের পাশে দাড়ালেন চিকিৎসকরা

হবু চিকিৎসকের পাশে দাড়ালেন চিকিৎসকরা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: সিরাজগঞ্জের বেলকুচির প্রত্যন্ত অঞ্চলের ছেলে আরিফুল ইসলাম। বাবা একজন চা…

বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ পেলেন অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল

বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ পেলেন অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল

দেশের চিকিৎসাসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ ২০১৮ পেয়েছেন…

বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজারে ১৭ জন শিশু অটিজমে আক্রান্ত

বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজারে ১৭ জন শিশু অটিজমে আক্রান্ত

বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজার শিশুর মধ্যে গড়ে ১৭ জন অটিজমে আক্রান্ত। এ…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর