ঢাকা      বুধবার ১২, ডিসেম্বর ২০১৮ - ২৮, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. মো. ইমদাদুল হক চৌধুরী

 ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন বিষয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণরত


ইসমাঈল সাহেবের শেষ ইচ্ছা!

ইসমাঈল সাহেব। বয়স ৫৫ বছর। ডায়াবেটিস, প্রেসার ও কিডনি রোগে আক্রান্ত। আমার সাথে পরিচয় হাসপাতালে। আমার বেডের নতুন রোগী। ভদ্রলোকের ইউরিনে ইনফেকশনের কারণে কিডনি সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। S. Creatinine: 14mg/dl.

ডায়ালাইসিসের পরামর্শ দেয়ার পরও ডায়ালইসিস করালেন না। তাই conservative management নিচ্ছিলেন।

ভদ্রলোক আমাকে খুব পছন্দ করতেন। প্রথম দিনে জিজ্ঞেস করলেন, আমি বিবাহিত কিনা। বললাম হ্যাঁ। উনি বললেন, খুব ভালো করেছেন। (বিঃদ্রঃ উনার কোনো মেয়ে ছিল না)

পরদিন থেকেই আমাকে ‘স্যার’ ও ‘ভাতিজা’ alternate করে ডাকতে লাগলেন। আমার অনুমতি নিয়ে ছবি তুললেন। আমাকে দেখতে নাকি উনার খুব ভাল লাগে। তাই ছবি তুলে নিলেন যাতে সব সময় দেখতে পারেন।

৪র্থ দিন ছুটি নিয়া বাড়ি গেলেন। ডায়ালাইসিসের জন্য ছেলেদের সাথে পরামর্শ করে আসবেন। ছেলেরা বললে ডায়ালইসিস নেবেন।

যাওয়ার সময় উনার ঠিকানা আমাকে দিয়ে গেলেন। আমার ফোন নাম্বার নিয়ে গেলেন। তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ। প্রতিদিনই তিনি বলতেন আমাকে উনার বাড়ি নিয়ে যাবেন। আমি বলতাম আপনি সুস্থ হন তারপর আমি যাব। যাওয়ার সময় আমাকে ৫০০ টাকা দিতে চাইলেন।

আমি বললাম, এ টাকা দিয়ে আপনি ঔষধ কিনে খাবেন। বললেন, টাকাটা আমি খুব খুশি হয়ে আপনাকে দিসি।  বললাম, দোয়া কইরেন আমার জন্য।

ঠিক দুইদিন পর আমাকে ফোন দিলেন। শরীর খারাপ। আমি কিছু প্রাথমিক ট্রিটমেন্ট দিয়ে মেডিকেলে আনতে বললাম। বলল আরেকটু দেখি।

একদিন পর উনার স্ত্রী ফোন দিয়া বললেন, উনার অনেক শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। দ্রুত হাসপাতালে আনার পরামর্শ দিলাম। কিন্তু তাকে হাসপাতালে আনা হলো  অনেক দেরিতে।

আজ সকালে উনার স্ত্রী ফোন দিয়া বললেন, ইসমাইল সাহেব আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

স্ত্রীর ভাষ্যমতে, উনার শেষ ইচ্ছা ছিল, আমাকে উনার বাড়িতে নিয়া আপ্যায়ন করবেন। উনার সব আত্মীয়কে আমার ছবি দেখাতেন, আর বলতেন,আমি যাব উনার বাড়িতে।

উনার স্ত্রী আমাকে অনুরোধ করে বললেন, উনার বাড়িতে বেড়াতে গেলে ইসমাইল সাহেবের আত্মা শান্তি পাবে।

একথা শোনার পর চোখটা কেন জানি ভিজে গেল।

আল্লাহ ইসমাইল সাহেবকে বেহেস্ত নসিব করুন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

প্রেসক্রিপশনের ব্যাপারে যত্নশীল হোন!

প্রেসক্রিপশনের ব্যাপারে যত্নশীল হোন!

রোগীর মুল সমস্যা, উপরের পেটে ব্যথা, বুকে জ্বালাপোড়া, পিঠে ব্যথা, দুর্বলতা। একটা…

মেয়েটি বেঁচে থাকলে হয়ত আগামীর মার্গারেট থ্যাচার হতো!

মেয়েটি বেঁচে থাকলে হয়ত আগামীর মার্গারেট থ্যাচার হতো!

আমার এসএসসি পাশের যোগ্যতা ছিল না। স্যারদের কথামত-‘‘ও কোন দিন পাশ করতে…

আবেগীয় স্মৃতির গুদামঘর

আবেগীয় স্মৃতির গুদামঘর

ইন স্টিমের উপরে কাঠবাদামের আকারের অঞ্চলটির নাম "এমাগডেলা"। লিম্বিক সিষ্টেমের দুটি অংশ…

অধ্যাপক মনসুর খলিল স্যারকে শেষ দেখা!

অধ্যাপক মনসুর খলিল স্যারকে শেষ দেখা!

আজ থেকে তিন বছর আগে ২০১৫ সনের ডিসেম্বরের ৭ তারিখে আমি বদলী…

সুইসাইড ও পার্সোনালিটি ডিজঅর্ডার

সুইসাইড ও পার্সোনালিটি ডিজঅর্ডার

"স্যার আদাব, অপিসি পয়সনিং, পুলিশ কেইস..." মোবাইলে ইমার্জেন্সী চিকিৎসকের ফোন পেয়ে আউট…

আত্মহনন কোন সমাধান নয়

আত্মহনন কোন সমাধান নয়

এফসিপিএস সেকেন্ড পার্টের জন্য তিন বছর ট্রেনিং লাগে। তিন বছর শুনতে যত…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর