ঢাকা      মঙ্গলবার ২৩, এপ্রিল ২০১৯ - ৯, বৈশাখ, ১৪২৬ - হিজরী



ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. নাসির উদ্দিন আহমেদ

পরিচালক 

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল


সরকারি স্বাস্থ্যসেবার বর্তমান প্রেক্ষিত

আমি কোন পুরস্কারপ্রাপ্তিতে আনন্দিত হতে পারি না। কারণ আমি মৌলিক বিষয়গুলোর সমাধান করতে পারিনি। বিভিন্ন কারণে একজন পরিপূর্ণ নিবেদিত মানুষ হতে পারিনি। স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে ৩০ বছর কাজ করছি। একবারে মৌলিক বিষয়গুলো আমরা মেনে চলছি না। আমি প্রতিনিয়ত অপরাধ বোধে ভুগি কাজ স্বাধীনভাবে না করতে পারার জন্য। অনেক অদৃশ্য বাধা ও অসহযোগিতা।

সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় এক শ্রেণির নন ডাক্তার ব্যবসায়ীদের সীমাহীন লোভ,ঔষধ কোম্পানিগুলোর অনৈতিক মার্কেটিং সমস্যাকে আরো জটিল করে তুলেছে। আর এসব বিষয়ে অল্প সংখ্যক সুবিধাভোগী ডাক্তাদের জন্য পুরো ডাক্তার সমাজ সীমাহীন দুর্দশায় ও হতাশাগ্রস্থতায় ভুগছে।এতে ভবিষ্যত চিকিৎসকরা মানবিক হতে চাইলেও হতে পারবে না।

বিদ্যমান ব্যবস্থায় ডাক্তাররা মানবিক হতে পারবে না।কারণ সঠিক পরিচর্যার অভাব এবং ল্যাব মালিক ও ঔষধ কোম্পানির অনৈতিকতার সুবিধার হাতছানি এবং প্রাইভেট সেক্টরে বেতন-ভাতার অপর্যাপ্ততা। রোগী হিসেবে গরিবদের কোনো সন্মান নেই।দুই-একটি ব্যতিক্রম দেখি কিছু মানবিক ডাক্তারদের জন্য।

সরকারি হাসপাতালে শয্যার অধিক ৩-৪ গুণ রোগী বেশি থাকে।এগুলো দেখার যাদের কথা তারা গ্রাউন্ডে এসে দেখেন না।সবাই ডাক্তারদের সমালোচনা করে।কিন্তু অন্য কোন পেশায় এত সীমাবদ্ধতা নিয়ে কোন অফিসারকে সরকারি দপ্তরে কাজ করতে হয় না।

অমানবিক পরিস্থিতিতে রোগীরা কেন থাকতে হচ্ছে? কেন স্বল্প সংখক ডাক্তার দিয়ে ৮ কর্ম ঘন্টায় ৮০ থেকে ১২০ জন রোগী দেখা হবে?

বাংলাদেশে এত সুন্দর স্বাস্থ্য অবকাঠামো থাকা স্বত্বেও শুধু নীতি নির্ধারনী পর্যায়ে ধীর গতির সিদ্ধান্ত ও অনৈতিক প্রভাব,স্বার্থ এবং কিছু ব্যাক্তির মন রক্ষায় সম্ভাবনাময় স্বাস্থ্যখাত লাল ফিতায় আজ বন্দি।

কালের বিবর্তনে হয়তো এভাবেই অনেক সম্ভাবনা হারিয়ে যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


সম্পাদকীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

হিমোফিলিয়ার চিকিৎসায় সরকারি উদ্যোগ জরুরি

হিমোফিলিয়ার চিকিৎসায় সরকারি উদ্যোগ জরুরি

রাত ১১টা। মোবাইলে অপরিচিত নম্বর থেকে কল আসে। ভয়-সংশয়ে ফোন ধরতেই ওপাশ…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর